ঢাকা, বুধবার, ১৫ আশ্বিন ১৪২৭, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১ সফর ১৪৪২

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের ৩টি করে গাছ লাগানোর আহ্বান

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১২৯ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২০
আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের ৩টি করে গাছ লাগানোর আহ্বান বক্তব্য দেন দেলোয়ার হোসেন

চট্টগ্রাম: আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির বন ও পরিবেশ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন বলেছেন, নগর আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের প্রত্যেক নেতাকর্মীকে তিনটি করে গাছের চারা রোপণ করতে হবে।

মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) দক্ষিন পতেঙ্গা ওয়ার্ডের সী বীচে নগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে ৪৩ টি সাংগঠনিক ওয়ার্ড জুড়ে বৃক্ষ চারা বিতরণ কর্মসূচির সমাপনী অনুষ্ঠানে তিনি এই নির্দেশনা দেন।

দেলোয়ার হোসেন বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী স্মরণে সারাদেশে এক কোটি গাছের চারা রোপণ করার নির্দেশনা দিয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু করোনা কাল ও ৩৪ জেলায় বন্যার কারণে আমাদের কর্মসূচি বাস্তবায়নে সাময়িক সমস্যা হয়েছে। তবে সারাদেশে এককোটি নয় এই কর্মসূচির আওতায় আমাদের প্রায় পাঁচ থেকে সাত কোটি  গাছের চারা লাগানোর সক্ষমতা  রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, সমুদ্র, পাহাড় পরিবেষ্টিত এই চট্টগ্রামের মানুষ যেকোন প্রাকৃতিক দুর্যোগের পূর্বাভাস পেলে আতংকে থাকেন। জীবনের ঝুঁকিতে অনিদ্রায় রাত কাটান। প্রাকৃতিক বিপর্যয় থেকে এই চট্টগ্রামকে বাঁচাতে হলে বৃক্ষ রোপণই একমাত্র উপায়।

নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, বৃক্ষ চারা রোপণ কর্মসুচির আওতায় এবার নতুন উদ্যোগ বাস্তবায়ন করা হবে। নগরের পাহাড় ধস, সিলট্রেশন রোধ করার জন্য সকল পাহাড়ে বৃক্ষ রোপণ করা হবে। প্রতি বর্ষা মৌসুমে এই চট্টগ্রাম মহানগরে পাহাড় ধসে নিরীহ লোকের প্রাণহানি ঘটে। আবার ভূমি দস্যুরা পাহাড় দখল করে রাতের আঁধারে মাটি কেটে পাহাড়গুলো নিশ্চিহ্ন করে ফেলছে। তাই পাহাড় বাঁচাতে হলে বৃক্ষ রোপণের বিকল্প নেই। নগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে এবার পাহাড়গুলোতে গাছ রোপন করা হবে। একই সঙ্গে উপকূলীয় অঞ্চলে ও নদী অববাহিকায় গাছের চারা রোপণ করবে নগর আওয়ামী লীগ।

তিনি আরও বলেন, কাগজে কলমে কমিটিতে অনেকেই পদে আছেন। কিন্তু সাংগঠনিক কোন কর্মকাণ্ডে তাদের দেখা যাচ্ছে না। দলের সাংগঠনিক শক্তি দৃশ্যমান হলেও বাস্তবতা ভিন্ন। ৪৩ ওয়ার্ড ও ১২৯ টি ইউনিট কমিটি রয়েছে। একেকটা কমিটির বয়স ১৫-৩০ বছর পর্যন্ত হয়েছে। নেতাদের অনেকেই পদে থেকে মৃত্যু বরণ করেছেন। আবার বয়সের ভারে অনেকেই বর্তমানে নিস্ক্রিয়। এতে করে প্রত্যেকটি কমিটির অনেক পদে শূন্যতা সৃষ্টি হয়েছে। কেন্দ্রের নির্দেশনা মোতাবেক ইউনিট,ওয়ার্ড এবং থানা কমিটিগুলোতে  শূণ্যপদ পূরণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সাংগঠনিক রীতি অনুযায়ী  চেইন অব কমাণ্ডের ভিত্তিতে  শূন্য পদে নতুন নেতৃত্ব নির্বাচন করা হবে। এ ব্যাপারে আগামীকাল ১৬ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত বর্ধিত সভায় চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

দক্ষিণ পতেঙ্গা ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সভাপতি ছালেহ আহমদের সভাপতিত্ব ও  সাধারণ সম্পাদক নুরুল আলমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী, সহ-সভাপতি চসিক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন, যুগ্ম সম্পাদক মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী, এম এ রশিদ, উপদেষ্টা শফর আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, বন ও পরিবেশ সম্পাদক মসিউর রহমান চৌধুরী, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক দিদারুল আলম চৌধুরী, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক চন্দন ধর, আইন সম্পাদক অ্যাডভোকেট শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরীসহ মহানগর, ৩৯ নম্বর দক্ষিণ  হালিশহর ও  ৪০ নম্বর উত্তর পতেঙ্গা ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতারা বক্তব্য রাখেন।

বাংলাদেশ সময়: ২১২৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২০
জেইউ/এসকে/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa