php glass

দুর্গাপূজার সপ্তমীতে নবপত্রিকা পূজা

নিউজরুম এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

বর্ণিল সাজে সজ্জিত পূজামণ্ডপ। ছবি: উজ্জ্বল ধর

walton

চট্টগ্রাম: নবপত্রিকা দুর্গাপূজার এক বিশেষ কর্মানুষ্ঠান। সপ্তমী তিথিতে মণ্ডপে নবপত্রিকা বা কলাবউ এর পূজা করা হয়। শনিবার (৫ অক্টোবর) এ উপলক্ষে পূজা বেদীর পাশে সাজানো হয় কলাবউ।

শাস্ত্র মতে, ৯টি উদ্ভিদ- কদলী বা রম্ভা (কলা), কচু, হরিদ্রা (হলুদ), জয়ন্তী, বিল্ব (বেল), দাড়িম্ব (দাড়িম), অশোক, মান ও ধান সমূল সপত্র একটি কলাগাছের সঙ্গে একত্র করে একজোড়া বেলসহ শ্বেত অপরাজিতা লতা দিয়ে বেঁধে দেওয়া হয়। এরপর লাল পাড়ের সাদা শাড়ি জড়িয়ে ঘোমটা দেওয়া বধূর আকার দেওয়া হয়। তারপর তাতে সিঁদুর দিয়ে সপরিবার প্রতিমার ডান দিকে দাঁড় করিয়ে পূজা করা হয়।

বর্ণিল সাজে সজ্জিত পূজামণ্ডপ। ছবি: উজ্জ্বল ধরএ প্রসঙ্গে পণ্ডিত অমল চক্রবর্তী বাংলানিউজকে জানান, নবপত্রিকার ৯টি উদ্ভিদ আসলে দুর্গার ৯টি বিশেষ রূপের প্রতীকরূপে কল্পিত হয়। এই দেবীরা হলেন- রম্ভাধিষ্ঠাত্রী ব্রহ্মাণী, কচ্বাধিষ্ঠাত্রী কালিকা, হরিদ্রাধিষ্ঠাত্রী উমা, জয়ন্ত্যাধিষ্ঠাত্রী কার্তিকী, বিল্বাধিষ্ঠাত্রী শিবা, দাড়িম্বাধিষ্ঠাত্রী রক্তদন্তিকা, অশোকাধিষ্ঠাত্রী শোকরহিতা, মানাধিষ্ঠাত্রী চামুণ্ডা ও ধান্যাধিষ্ঠাত্রী লক্ষ্মী। তাঁরা একত্রে ‘নবপত্রিকাবাসিনী নবদুর্গা’ নামে নবপত্রিকাবাসিন্যৈ নবদুর্গায়ৈ নমঃ মন্ত্রে পূজিতা হন। কলাবউ গণেশের স্ত্রী নয়। কলাবউ শস্যশালিনী দেবী দুর্গার প্রতীক।

বিভিন্ন মণ্ডপের পূজার আয়োজকরা জানান, সপ্তমীর দিন সকাল ৯টা ৫৮ মিনিটের মধ্যে পূজামণ্ডপে নবপত্রিকা প্রবেশের মাধ্যমে দুর্গাপূজার মূল অনুষ্ঠানের প্রথাগত সূচনা হয়েছে। নবপত্রিকা প্রবেশের পর দর্পণে দেবীকে মহাস্নান করানো হয়। দুপুর ২টা ৩৭ মিনিটের মধ্যে পূজা শেষে দেওয়া হবে পুষ্পাঞ্জলি। সন্ধ্যায় হবে মায়ের আরতি। রোববার (৬ অক্টোবর) মহাষ্টমী তিথিতে কুমারী পূজা অনুষ্ঠিত হবে।

বর্ণিল সাজে সজ্জিত পূজামণ্ডপ। ছবি: উজ্জ্বল ধর এ বছর নগরের ১৬টি থানায় ২৭০টি মণ্ডপে দুর্গাপূজা চলছে। মহানগর ও জেলা মিলিয়ে মণ্ডপ ২ হাজার ১৪৪টি। উপজেলা পর্যায়ে সবচেয়ে বেশী পুজামণ্ডপ রাউজানে ২৩২টি। কম পূজামণ্ডপ কর্ণফুলী উপজেলায় ১৩টি।

তবে এখন পূজা মানে থিমের ছড়াছড়ি। আছে প্রতিযোগিতা। কোথাও মণ্ডপে, কোথাও প্রতিমায়, আবার কোথাও আলোর কারিকুরিতে মাত করার চেষ্টা। হাজারী লেইন পূজামণ্ডপে  এবারের থিম- ‘এ জগত এ আমার মা’, পাথরঘাটা মনোহরখালী পূজামণ্ডপের থিম ‘অন্যায়, অত্যাচার প্রতিরোধ’, জয়নাব কলোনী বৃন্দাবন আঁখেড়ায় ‘ধর্ষণ রোধে সচেতনতা’, গোসাইলডাঙ্গা একতা গোষ্ঠীর দুর্গাপূজার থিম ‘জাগ্রত হোক মানবতাবোধ’ এবং টেরিবাজার আফিমের গলি মণ্ডপের থিম ‘স্মৃতির ডানা’।

বর্ণিল সাজে সজ্জিত পূজামণ্ডপ। ছবি: উজ্জ্বল ধর মণ্ডপগুলোতে সন্ধ্যার পর বাড়ছে ভক্ত-দর্শনার্থীদের সমাগম। দুর্গাপূজাকে ঘিরে অপ্রীতিকর পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রস্তুত আছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীও। পোশাকধারীর পাশাপাশি আছে সাদা পোশাকের পুলিশ সদস্য। বড় পূজামণ্ডপগুলোতে বসানো হয়েছে সিসি ক্যামেরা।

জেলা পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা বলেন, জেলার ১৫ উপজেলার ১৬টি থানায় সব পূজামণ্ডপের নিরাপত্তায় ৩ হাজার পুলিশ ফোর্স মোতায়েন করা হয়েছে। পুলিশের পাশাপাশি আছে আনসার সদস্যও। পাশাপাশি কয়েকটি পূজামণ্ডপ মিলে পেট্রোল টিম কাজ করছে। তারা ঘুরে ঘুরে পূজামণ্ডপগুলো মনিটরিং করছে।

বাংলাদেশ সময়: ১১০০ ঘণ্টা, অক্টোবর ৫, ২০১৯
এসি/টিসি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: চট্টগ্রাম
ksrm
পাবনায় সহকারী দিয়ে ট্রেন চালানোর ঘটনায় তদন্ত কমিটি  
মহাখালীতে চালু হচ্ছে স্টার সিনেপ্লেক্সের তৃতীয় শাখা
পুলিশের ওপর হামলা: দুই জেএমবি সদস্য রিমান্ডে
র‌্যাগিং ঠেকাতে জাবির হলে বসছে সিসি ক্যামেরা
সাতক্ষীরায় যুবক হত্যার দায়ে এক ব্যক্তির যাবজ্জীবন


আইসিসিবিতে সেকেন্ড সাসটেইনেবল অ্যাপারেল ফোরাম ৫ নভেম্বর
৫ স্কুলছাত্রের মাথা মুড়িয়ে শাস্তি দিলেন ইউপি চেয়ারম্যান
ইডকলের ১৪৯ কোটি টাকা আত্মসাৎ, ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা
টাকার জন্যই মা-মেয়েকে হত্যা করে রাইজুদ্দিন!
ঝালকাঠিতে ৪০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল-তিন মণ ইলিশ উদ্ধার