php glass

মরণসাগর পারে তোমরা অমর…

নিউজরুম এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

জামালখান ওয়ার্ডের ডা. এম এ হাসেম স্কোয়ার (গোল চত্ত্বর) সংলগ্ন সড়কের একপাশে টাঙানো লম্বা ব্যানারে শোভা পাচ্ছে এই শোকচিত্র।

walton

চট্টগ্রাম: মরণসাগর পারে তোমরা অমর/তোমাদের স্মরি।/ নিখিলে রচিয়া গেলে আপনারই ঘর,/তোমাদের স্মরি।

বাঙালির শোকের মাসে পঁচাত্তরের ১৫ আগস্টের স্মৃতি ধরা দিয়েছে সাদা-কালো আর রঙিন ব্যানারে। সড়কপথে চলতে গিয়ে পথিক থমকে দাঁড়ায়, রিকশা-বাসে যাওয়া যাত্রীরা জানালার বাইরে দেয় উঁকি। 

নগরের জামালখান ওয়ার্ডের ডা. এম এ হাসেম স্কোয়ার (গোল চত্ত্বর) সংলগ্ন সড়কের একপাশে টাঙানো লম্বা ব্যানারে শোভা পাচ্ছে এই শোকচিত্র।

ডা. এম এ হাসেম স্কোয়ার সংলগ্ন সড়কের পাশে ব্যানারে শোভা পাচ্ছে এই শোকচিত্র।ইতিহাসে নৃশংসতম হত্যাকাণ্ডের কালিমালিপ্ত বেদনাবিধুর শোকের দিন স্মরণে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের নির্দেশনায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও সকল শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করে ওয়ার্ড কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমনের এ উদ্যোগ প্রশংসিত হয়েছে সর্বমহলে।

১৯৭৫ সালের ১৪ আগস্ট শেষ রাতে (১৫ আগস্ট) ঘাতকরা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে তার ধানমন্ডির ৩২ নম্বরের বাসায় নৃশংসভাবে হত্যা করে। সপরিবারে নিঃশেষ করার পরিকল্পনার অংশ হিসেবে বঙ্গবন্ধুর স্ত্রী বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব, জ্যেষ্ঠ পুত্র মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন শেখ কামাল, দ্বিতীয় পুত্র মুক্তিযোদ্ধা লেফটেন্যান্ট শেখ জামাল, কনিষ্ঠ পুত্র শিশু শেখ রাসেল, সদ্য বিবাহিত পুত্রবধূ সুলতানা কামাল ও রোজী জামাল, বঙ্গবন্ধুর একমাত্র ভাই শেখ আবু নাসেরকে সেখানে হত্যা করা হয়।

ডা. এম এ হাসেম স্কোয়ার সংলগ্ন সড়কের পাশে ব্যানারে শোভা পাচ্ছে এই শোকচিত্র।বেইলি রোডে সরকারি বাসায় হত্যা করা হয় বঙ্গবন্ধুর ভগ্নিপতি আবদুর রব সেরনিয়াবাত, তার ছোট মেয়ে বেবি সেরনিয়াবাত, কনিষ্ঠ পুত্র আরিফ সেরনিয়াবাত, দৌহিত্র সুকান্ত আবদুল্লাহ বাবু, ভাইয়ের ছেলে শহীদ সেরনিয়াবাত, আবদুল নঈম খান রিন্টুকে। আরেক বাসায় হত্যা করা হয় তার ভাগ্নে যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা শেখ ফজলুল হক মণি ও তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী বেগম আরজু মণিকে। ব্যানারে থাকা ছবিগুলো দেখে বয়োবৃদ্ধ এক পথচারী ফেললেন দীর্ঘশ্বাস। মুখ থেকে বেরুলো-হায় হায়!

রঙিন ব্যানারে ফুটে উঠেছে, ১৯৭১ সালে মুক্তিবাহিনীর যুদ্ধ পরবর্তী ১৬ ডিসেম্বর আত্মসমর্পণের দলিলে সই করা পাকিস্তানি বাহিনীর পূর্বাঞ্চলীয় কমান্ডের অধিনায়ক লে. জেনারেল এ এ কে নিয়াজি। পাশে বসে আছেন মিত্রবাহিনীর লে. জেনারেল জগজিৎ সিং অরোরাl আরেকটি ছবিতে পিতা শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, পাশাপাশি স্ত্রী বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ও পুত্র শেখ রাসেলসহ পারিবারিক ছবিও প্রদর্শিত হচ্ছে। আছে ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি পাকিস্তানের কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে লন্ডন ও নয়াদিল্লি হয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন ও ঢাকার রমনা রেসকোর্স ময়দানে ঐতিহাসিক সাতই মার্চের ভাষণদানের চিত্র।

ডা. এম এ হাসেম স্কোয়ার সংলগ্ন সড়কের পাশে ব্যানারে শোভা পাচ্ছে এই শোকচিত্র।কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন বাংলানিউজকে বলেন, ‘নতুন প্রজন্মের কাছে বাঙালি জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের পরিচয় করিয়ে দিতে এই প্রচেষ্টা। মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের দিকনির্দেশনায় এসব কাজ করা হচ্ছে। ওয়ার্ডের পরিত্যক্ত স্থানগুলোকে শিক্ষার উপজীব্য করা হচ্ছে। প্রায় ১২০ ফুট লম্বা ব্যানারের মাধ্যমে তাদের স্মরণ করেছি, মরণসাগর পারে যারা আজও অমর হয়ে আছেন-থাকবেন আজীবন আমাদের হৃদয়ে’।

এর আগে সেন্ট মেরীস স্কুলের দেওয়ালে টাইল্‌স ম্যুরালে বসানো হয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলাম, ভাষাবিদ ড. মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ, কবি জীবনানন্দ দাশ, মাইকেল মধুসুধন দত্ত, ফকির লালন শাহ্‌, মাস্টারদা সূর্যসেন, বিপ্লবী প্রীতিলতা ওয়াদ্দেদার, মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী, শেরে বাংলা এ কে ফজলুল হক, হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী, ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর, শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদীন, অতীশ দীপঙ্কর, পল্লীকবি জসীমউদ্দীন, বেগম রোকেয়া সাখাওয়াৎ হোসেন, বেগম সুফিয়া কামাল, কবি শামসুর রাহমান এবং দৈনিক আজাদীর প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ আবদুল খালেক এর প্রতিচিত্র। খাস্তগীর স্কুলের সীমানা প্রাচীরে টেরাকোটায় ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলন থেকে শুরু করে বায়ান্ন, ছেষট্টি, ঊনসত্তর ও একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধ পর্যন্ত পুরো ইতিহাস তুলে ধরা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৯০০ ঘণ্টা, আগস্ট ১১, ২০১৯
এসি/টিসি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: চট্টগ্রাম
ksrm
ঢামেক হাসপাতালে আরও এক ডেঙ্গুরোগীর মৃত্যু
তৃতীয় ড্রিমলাইনার 'গাঙচিল' উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী
বাগেরহাটে সপ্তাহব্যাপী বৃক্ষমেলা শুরু
প্রাচীন স্থাপত্যের নিদর্শন কিশোরগঞ্জের কুতুব মসজিদ
বৃষ্টির কবলে পড়েছে কলম্বো টেস্ট 


আফগানিস্তান ইস্যুতে ভারতের কোনো ভূমিকা নেই: ট্রাম্প
হৃদরোগ এড়াতে লাইফস্টাইলে যোগ-বিয়োগ
ঠাকুরগাঁওয়ে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ৩
সংশয় নিয়ে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের অপেক্ষা
বিএনপি’র রাজনীতি নিষিদ্ধ করার দাবি