php glass

জাপান বাংলাদেশের পরীক্ষিত বন্ধু: চুয়েট উপাচার্য

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

জাপানের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে মতবিনিময় করেন চুয়েট উপাচার্য

walton

চট্টগ্রাম: জাপান বাংলাদেশের পরীক্ষিত বন্ধু বলে মন্তব্য করেছেন চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম।

বুধবার (৭ আগস্ট) বাংলাদেশে নিয়োজিত জাপান দূতাবাসের একটি প্রতিনিধি দল চুয়েট উপাচার্যের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে এসে মতবিনিময়ের সময় তিনি এ মন্তব্য করেন।

প্রতিনিধি দলের সদস্যরা হলেন- জাপান দূতাবাসের মিনিস্টার তাকেশি ইতো এবং দূতাবাসের জনসংযোগ বিভাগের প্রধান মাই তোমোরি।

মতবিনিময়কালে জাপান দূতাবাসের প্রতিনিধিরা চুয়েটের সঙ্গে উচ্চশিক্ষা ও গবেষণাক্ষেত্রে দ্বি-পাক্ষিক সহযোগিতা ও সম্পর্কোন্নয়নে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেন।

এ সময় চুয়েটে কর্মরত জাপানের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যালামনাই পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. আব্দুর রহমান ভূঁইয়া, যন্ত্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. সজল চন্দ্র বনিক, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মশিউল হক, ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. কাজী দেলোয়ার হোসেন, যন্ত্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. জামাল উদ্দিন আহম্মদ, পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. আসিফুল হক, ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আহসান উল্লাহ, পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. জি.এম. সাদিকুল ইসলাম, পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. মহি উদ্দিন, রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক ড. এম কে মো. জিয়াউল হায়দার উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, জাপান থেকে উচ্চশিক্ষা ও গবেষণা সম্পন্ন করে ২১ জন শিক্ষক বর্তমানে চুয়েটের বিভিন্ন বিভাগে শিক্ষক হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৯২৫ ঘণ্টা, আগস্ট ০৭, ২০১৯
এমআর/টিসি

ksrm
ঢামেক হাসপাতালে আরও এক ডেঙ্গুরোগীর মৃত্যু
তৃতীয় ড্রিমলাইনার 'গাঙচিল' উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী
বাগেরহাটে সপ্তাহব্যাপী বৃক্ষমেলা শুরু
প্রাচীন স্থাপত্যের নিদর্শন কিশোরগঞ্জের কুতুব মসজিদ
বৃষ্টির কবলে পড়েছে কলম্বো টেস্ট 


আফগানিস্তান ইস্যুতে ভারতের কোনো ভূমিকা নেই: ট্রাম্প
হৃদরোগ এড়াতে লাইফস্টাইলে যোগ-বিয়োগ
ঠাকুরগাঁওয়ে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ৩
সংশয় নিয়ে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের অপেক্ষা
বিএনপি’র রাজনীতি নিষিদ্ধ করার দাবি