php glass

আড়তদারদের কারসাজিতে বাড়ছে মাছ ও সবজির দাম

নিউজরুম এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

বেড়েছে প্রায় সব ধরণের মাছের দাম। ছবি: বাংলানিউজ

walton

চট্টগ্রাম: সাগরে মাছ ধরা বন্ধ থাকায় বাজারে বেড়েছে প্রায় সব ধরণের মাছের দাম। তবে অপরিবর্তিত আছে মুরগি ও মাংসের দাম। পাশাপাশি আড়তদারদের কারসাজিতে সবজি একেক বাজারে একেক রকম দামে বিক্রি হচ্ছে।

সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী, সামুদ্রিক মৎস্য সম্পদের উন্নয়নে আগামি ২৩ জুলাই পর্যন্ত মাছ ধরা বন্ধ রয়েছে। বঙ্গোপসাগরে বাংলাদেশের একচ্ছত্র অর্থনৈতিক অঞ্চলে প্রজনন মৌসুমে ডিমওয়ালা মাছ ও কঠিন আবরণযুক্ত জলজ প্রাণী, কাঁকড়ার নিরাপদ পরিবেশ সৃষ্টি করা এবং মাছের মজুদ সংরক্ষণ সুষ্ঠু ও সহনশীল আহরণ নিশ্চিত করার স্বার্থে ২০১৫ সাল থেকে প্রতিবছর এই সময় মাছ ধরা নিষিদ্ধ থাকে।

নগরের চকবাজার ও রেয়াজউদ্দিন বাজারে প্রতিকেজি দেশি রুই ৩০০ টাকা, কাতাল মাছ ৩৫০ টাকা, তেলাপিয়া ১৩০-১৪০ টাকা, ১ কেজি ওজনের ইলিশ ১১শ’-১২শ’ টাকা, পাঙ্গাস ১২০-১৩০ টাকা, রূপচাঁদা ৬৫০-৭০০ টাকা, লাল কোরাল ৫০০ টাকা, বড় চিংড়ি ১ হাজার টাকা, সরপুঁটি ২৫০ টাকা, সুরমা ৪৫০ টাকা, কই মাছ ২০০ টাকা, শিং মাছ ৪০০-৫০০ টাকা, সিলভার কার্প ২০০-২৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

রেয়াজউদ্দিন বাজারের মাছ ব্যবসায়ী মো. সামশুদ্দিন বলেন, সামুদ্রিক মাছের সরবরাহ কম। কোল্ড স্টোর থেকে মাছ আনতে খরচ একটু বেশি পড়ছে, যার প্রভাবে মাছের দাম বাড়ছে।

সবজির দাম এখনও ক্রেতাদের নাগালের মধ্যে। ছবি: বাংলানিউজবাজারে ফার্মের মুরগীর কেজিপ্রতি বিক্রি হচ্ছে ১৩৫-১৪০ টাকা, সোনালী মুরগী ২৪০-২৫০ টাকা, দেশি মুরগী ৪৮০ টাকা, গরুর মাংস (রান) কেজি ৬৫০-৭০০ টাকা, হাড়সহ ৫৫০ টাকা, ছাগলের মাংস কেজি ৭৫০ টাকা। ফার্মের ডিম প্রতি ডজন ১০৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

ক্রেতাদের অভিযোগ, আড়তদারদের কারসাজিতে মাছ ও সবজির দাম বাড়ছে। সরবরাহ যথেষ্ট থাকলেও তারা সিন্ডিকেট করে দাম বাড়াচ্ছে। প্রস্তাবিত বাজেট বাস্তবায়িত হওয়ার আগেই নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিষপত্রের দাম বাড়ানো হচ্ছে।

কাঁচাবাজারে কাঁকরোল ৪০ টাকা, বেগুন ৪০-৪৫ টাকা, বরবটি ৫০ টাকা, ছোট কচু ৫০ টাকা, পটল ৪০ টাকা, ঝিঙা ৩৫ টাকা, ঢেঁড়স ৪০ টাকা, তিতকরলা ৪৫ টাকা, পেঁপে ৩০ টাকা, শসা ৩০ টাকা, গাজর ৩০ টাকা, টমেটো ৪০ টাকা, চিচিঙ্গা ৩৫ টাকা, লাউ ও মিষ্টি কুমড়া ৩০-৩৫ টাকা এবং কাঁচামরিচ ৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

ভোগ্যপণ্যের দামও বাড়ছে প্রতিনিয়ত। চকবাজারের সবজি বিক্রেতা মো. হায়দার বলেন, বর্ষা মৌসুমে সবজির দাম সাধারণত বাড়ে। বৃষ্টি বাড়লে দামও বাড়বে। গত সপ্তাহ থেকে সবজির দাম একটু বেড়েছে, তবে তা এখনও ক্রেতাদের নাগালের মধ্যেই আছে।

এদিকে দাম বেড়েছে গুঁড়ো দুধ, চিনি, সয়াবিন তেল, এলাচি, দারচিনি, জিরা, আদা ও পেঁয়াজ-রসুনের। প্রতি কেজি পেঁয়াজ ২০ টাকা থেকে বেড়ে ৩০-৩৫ টাকা, রসুন ও আদা ১০০ টাকা থেকে বেড়ে ১৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন খুচরা বিক্রেতারা।

বাংলাদেশ সময়: ১১৪৭ ঘণ্টা, জুন ২১, ২০১৯
এসি/টিসি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: চট্টগ্রাম
সাভারে বিদ্যুতায়িত হয়ে যুবকের মৃত্যু
চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের নেতাকে কুপিয়ে জখম
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২
সংযোগ সড়ক না থাকায় ভরসা মই
ভৈরবে ট্রেনে কাটা পড়ে নারীর মৃত্যু


উল্লাপাড়ার অরক্ষিত সেই রেলক্রসিংয়ে নিযুক্ত হলো গেটম্যান
মাগুরায় ডেঙ্গু মশার উপদ্রবে সাধারণ মানুষ অতিষ্ঠ
নয়নার হাত ধরে কলকাতা পাচ্ছে বাংলাদেশের স্বাদ
‘মোবাইল ছিনতাইয়ের জেরে’ রিফাত খুন!
রিইমাজিং নেটওয়ার্কিং ও ডেটা সেন্টারস সামিট অনুষ্ঠিত