লোহাগাড়ায় আলো ছড়াচ্ছে জয়নাল আবেদীন উচ্চ বিদ্যালয়

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

লোহাগাড়ায় আলো ছড়াচ্ছে জয়নাল আবেদীন উচ্চ বিদ্যালয়

walton

চট্টগ্রাম: প্রতিষ্ঠার অল্প সময়ের মধ্যে সাফল্য দেখিয়েছে লোহাগাড়ার বীর বিক্রম জয়নাল আবেদীন উচ্চ বিদ্যালয়। এ বছর মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষায় অংশ নিয়ে শতভাগ পাশের রেকর্ড করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

php glass

বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষা ও মানবিক তিন বিভাগ থেকে মোট ৩৩ জন শিক্ষার্থী অংশ নিয়ে পাশ করেছে সব শিক্ষার্থী।

লোহাগাড়ার চুনতি ইউনিয়নের দুর্গম এলাকা পানত্রিশায় ২০১৫ সালে প্রতিষ্ঠিত হওয়া এ বিদ্যালয় থেকে এ বছর দ্বিতীয় বারের মতো এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে শিক্ষার্থীরা।

প্রথমবারের মতো ২০১৮ সালের এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ২০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৯ জনই পাশ করেছে বীর বিক্রম জয়নাল আবেদীন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আক্কাস আলী বাংলানিউজকে বলেন, ‘শিক্ষার্থী, শিক্ষক সকলের চেষ্টায় ভালো ফলাফল করেছে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। দুর্গম এ এলাকায় শতভাগ পাস করবে এটা অকল্পনীয় ছিল। কিন্ত আমরা করে দেখিয়েছি।’

তিনি বলেন, ‘বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মেজর জেনারেল জয়নাল আবেদীন মহোদয়। উনার আন্তরিকতা আর উৎসাহে এ এলাকায় শিক্ষার আলো ছড়াচ্ছে। বিদ্যালয়মুখী হয়েছে শিশুরা।’

শরীরচর্চারত বীর বিক্রম জয়নাল আবেদীন উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।‘দুর্গম এ এলাকায় বাবা-মায়েরা চিন্তা করেন কীভাবে মেয়ের বিয়ে দেবেন, কীভাবে ছেলেকে বিদেশে পাঠিয়ে অর্থ উপার্জন করবেন। তারা সন্তানদের স্কুলে পাঠাতে চান না। তাদের বুঝিয়ে অনেক কষ্ট করে ছেলে-মেয়েকে স্কুলে আনা হয়েছে। মেয়েদের সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত স্কুলে রেখে এবং ছেলেদের অস্থায়ী হোস্টেল সিস্টেম করে স্কুলে রেখে পড়ানো হয়েছে। এ জন্য সবাই পাস করেছে।’ বলেন মো. আক্কাস আলী।

বিদ্যালয়ের উপদেষ্টা মো. ঈসমাইল মানিক বাংলানিউজকে বলেন, ‘২০১৫ সালে যখন বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করা হয় তখন শিক্ষার্থী পাইনি আমরা। বাড়ি বাড়ি গিয়ে খুঁজে নিয়ে এসেছি। বাড়িতে গিয়ে বাবা-মাকে বুঝিয়েছি-সন্তানকে স্কুলে পাঠান। বাবা-মাকে রাজি করাতে আমাদের হিমশিম খেতে হয়েছে।’

মো. ঈসমাইল মানিক বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য ছিল-ভালো ফলাফল করা। আমরা পেরেছি। শিক্ষার্থীদের নার্সিং করে ভালো ফলাফল পেয়েছি আমরা। এখন ভালো ফলাফলের ধারাবাহিকতা ধরে রাখাটাই আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জ। আশা করি এ চ্যালেঞ্জে আমরা সফল হবো।’

বিদ্যালয়টিতে মোট শিক্ষক রয়েছেন ১২ জন। কর্মচারী রয়েছেন তিনজন।

বাংলাদেশ সময়: ২০৪৫ ঘণ্টা, মে ০৯, ২০১৯
টিসি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: চট্টগ্রাম
গুলিস্তানে ছিনতাইকারী চক্রের ৫ সদস্য আটক
ঈদের পোশাকের টাকা না দেয়ায় ছেলের হাতে প্রাণ গেলো মায়ের
‘ওয়ার্ল্ড প্রেস ফ্রিডম ডে ২০১৯’ উদযাপন
ককটেল বিস্ফোরণে নারী পুলিশ সদস্যসহ আহত ২
মিরপুরে সিঁড়ির ফাঁক দিয়ে পড়ে নারীর মৃত্যু


সৈয়দ আশরাফ ছিলেন তেজোদীপ্ত ও সাহসী: কৃষিমন্ত্রী
কাজী শুভ’র ‘ভুলিয়া না যাইও’
মোদীকে ইমরানের ফোন, একসঙ্গে কাজ করার আহ্বান
পুণ্যময় রমজানে রিজিকে লাগে বরকতের ছোঁয়া
বিএনপির সিদ্ধান্তের কোনো ঠিক নেই: নাসিম