৫০০ বছর পূর্তিতে আলোকিত দিয়াং

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

৫০০ বছর পূর্তিতে আলোকিত দিয়াং

চট্টগ্রাম: বঙ্গে খ্রিস্টবিশ্বাস আগমনের ৫০০ বছর পূর্তিতে শ্রদ্ধার আলোয় আলোকিত হয়ে উঠেছিল কর্ণফুলী উপজেলার দৌলতপুরের মরিয়ম আশ্রম।

দুই দিনব্যাপী তীর্থোৎসবের প্রথম দিন বৃহস্পতিবার (৭ ফেব্রুয়ারি) বিকেল চারটায় আরাকান বাহিনীর হাতে শহীদ হওয়া ৬০০ খ্রিস্টানের সমাধিতে মঙ্গলপ্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়।

>> খ্রিস্টবিশ্বাস আগমনের ৫০০ বছর পূর্তি উৎসব বৃহস্পতিবার

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন আর্চযায়োসিসের বিশপ মজেজ কস্তার আহ্বানে এতে যোগ দেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ভ্যাটিকানের রাষ্ট্রদূত জর্জ কোচ্চেরি, ভারতের আগরতলা ধর্মপ্রদেশের বিশপ লুমেন মন্টেরিও, সিলেট ধর্মপ্রদেশের বিজয় এন’ডি ক্রুজ, ময়মনসিংহের পল পনেন কুবি, রাজশাহীর জেভার্স রোজারিও, খুলনার জেমস রমেন বৈরাগী, বরিশালের লরেন্স সুব্রত হাওলাদার, দিনাজপুরের সেবাস্টিয়ান টুডু, ঢাকার সহকারী বিশপ শরৎ ফ্রান্সিস গমেজ, থিওটনিয়াস গমেজ প্রমুখ।

৫০০ বছর পূর্তিতে আলোকিত দিয়াংমঙ্গলানুষ্ঠানের পর অতিথিদের দেখানো হয় ১৫১৮-২০১৮ সালের খ্রিস্টবিশ্বাসের দুর্গম যাত্রা, অর্জন ও বর্তমান প্রেক্ষাপটের ওপর নির্মিত প্রামাণ্যচিত্র। এরপর আর্চবিশপ মজেজ কস্তা উদ্বোধন করেন আশ্রমে নির্মিত মা-মারিয়ার প্রার্থনা স্থান রোজারি গার্ডেন। এ সময় তিনি দেশের কল্যাণ ও মানুষের মধ্যে ভ্রাতৃত্ববোধ বৃদ্ধির জন্য প্রার্থনা করেন।

উৎসবের অন্যতম কর্মসূচি ছিল সাক্রামেস্তিয় আরাধনা ও আলোক শোভাযাত্রা। এ সময় মোমবাতি হাতে নিয়ে খ্রিস্টভক্তরা প্রার্থনা করতে করতে দিয়াংয়ের পাহাড়ি পথ প্রদক্ষিণ করেন।

আর্চবিশপ মজেজ কস্তা বাংলানিউজকে জানান, ১৫১৮ খ্রিস্টাব্দে চট্টগ্রামে পর্তুগিজ বণিকদের আগমনের সঙ্গে সঙ্গে পূর্ববঙ্গে খ্রিস্টবিশ্বাসেরও আগমন ঘটে। ১৫৩৭ খ্রিস্টাব্দ থেকে পর্তুগিজ বণিকরা চট্টগ্রামে স্থায়ীভাবে বসতি স্থাপন করে। তাদের ধর্মীয় যত্ন নেওয়ার জন্য ১৫৯৮ সালে দক্ষিণ ভারতের কোচিন ডাইয়োসিস থেকে বঙ্গদেশে প্রথম মিশনারিরা আসেন। প্রথম মিশনারি জেজুইট ধর্মসংঘের পুরোহিত ফাদার ফ্রান্সেসকো ফার্নান্দেজ দিয়াংয়ে পূর্ববঙ্গের প্রথম গির্জা নির্মাণ করেন ১৫৯৯ খ্রিস্টাব্দে। ১৬০০ খ্রিস্টাব্দে তিনি পাথরঘাটা বান্ডেল রোড ও জামালখানে ২টি গির্জা নির্মাণ করেন। পরবর্তীতে শিশু ও নারীদের ওপর আরাকানি সৈন্যদের অত্যাচারের প্রতিবাদ করতে গিয়ে তাকে নিষ্ঠুরভাবে মৃত্যুবরণ করতে হয়। তার চোখ উপড়ে ফেলা হয় এবং বর্বর নির্যাতনের মাধ্যমে তাকে হত্যা করা হয়। তার সমাধির ওপরই বর্তমানে চট্টগ্রামের ক্যাথিড্রাল গির্জা দাঁড়িয়ে আছে।

শুক্রবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টায় মহা খ্রিস্টজাগ ও সন্ধ্যা ছয়টায় নগরের পাথরঘাটায় আর্চ বিশপ ভবনে আন্তঃধর্মীয় সমাবেশ হবে।

বাংলাদেশ সময়: ২১৪৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৭, ২০১৯
এআর/টিসি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: চট্টগ্রাম
বিনা টিকিটে রেল ভ্রমণ করায় ৫৬৫ যাত্রীর জরিমানা
নেত্রকোণায় সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেফতার
কথার ঝুড়ি নিয়ে বাড়ি ফেরা
চকবাজার ট্র্যাজেডিতে ভবনগুলো ‘ব্যবহার অনুপযোগী’
৭ তলার ছাদেও বিস্ফোরকের চিহ্ন!


ভিয়েতনাম মিশনে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন 
ময়মনসিংহে ডিবির সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদকবিক্রেতা নিহত
চকবাজারে এখনও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যদের সতর্ক অবস্থান
টিভি ব্যক্তিত্ব স্টিভ আরউইনের জন্ম
চকবাজার ট্র্যাজেডি তদন্তে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কমিটি