চট্টগ্রাম-৯ আসনে ইভিএমের দায়িত্বে ৫৬১ সেনা সদস্য

সিফায়াত উল্লাহ, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

চট্টগ্রাম-৯ আসনে ইভিএমের দায়িত্বে ৫৬১ সেনা সদস্য

চট্টগ্রাম: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কোতোয়ালী (চট্টগ্রাম-৯) আসনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) পরিচালনায় সেনাবাহিনীর ৫৬১ সদস্য দায়িত্বে পালন করবেন। তারা পাঁচটি দলে ভাগ হয়ে কারিগরি সহায়তা দেবেন।

ইভিএমে সম্পূর্ণ ভোটগ্রহণ প্রক্রিয়া সেনাবাহিনী ও নির্বাচন কমিশনের (ইসি) চারটি নিয়ন্ত্রণ কক্ষ এবং একটি উচ্চ পর্যায়ের কারিগরি দল নিয়ন্ত্রণ করবে।

এ সংক্রান্ত একটি ‘ছক’ ইসি থেকে জেলা নির্বাচন কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে। জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম স্বাক্ষরিত সেই ছক অনুযায়ী কোতোয়ালী থানা নির্বাচন কার্যালয় একটি পরিকল্পনা তৈরি করে সেনাবাহিনী বরাবর পাঠিয়েছে।

শিগগির পরিকল্পনাটি চূড়ান্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন কোতোয়ালী থানা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ কামরুল আলম। তিনি বাংলানিউজকে বলেন, ইসির ছক অনুসারে একটি পরিকল্পনা তৈরি করা হয়েছে। সেটি সেনাবাহিনীর দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বরাবর পাঠিয়েছি।

মোহাম্মদ কামরুল আলম বলেন, ‘কোতোয়ালী আসনে ১৪৪টি ভোটকেন্দ্র রয়েছে। এর মধ্যে প্রতি কেন্দ্রে ৩ জন করে ৪৩২ জন, প্রতি ৫ কেন্দ্রে ৩ জন করে ৮৬ জন, প্রতি ১৫ কেন্দ্রে ৩ জন করে ২৯ জন, প্রতি ৫০ কেন্দ্রে তিন জন করে ৯ জন ও পুরো আসনে ৫ সদস্যের একটি উচ্চ পর্যায়ের দলসহ মোট ৫৬১ জন সেনাসদস্য ভোটগ্রহণের দায়িত্বে থাকবেন।’

যেভাবে দায়িত্ব পালন করবেন সেনাবাহিনী

ইসির ছক অনুযায়ী কোতোয়ালী আসনে সেনাবাহিনীর পাঁচটি দলে ৫৬১ সদস্য কাজ করবেন।

এর মধ্যে প্রতি কেন্দ্র ভিত্তিক একটি কারিগরি দল থাকবে। প্রতি দলে সদস্য থাকবেন তিন জন। তাদের মধ্যে একজন করপোরাল, দুই জন ল্যান্স করপোরাল অথবা সৈনিক পদমর্যাদার সদস্য।

এ দলের ওপরে কাজ করবে পাঁচ কেন্দ্র ভিত্তিক ভ্রাম্যমাণ কারিগরি দল। এ দলেও তিন জন সদস্য থাকবেন। তাদের মধ্যে একজন সার্জেন্ট এবং দুই জন করপোরাল অথবা ল্যান্স করপোরাল বা সৈনিক পদমর্যাদার।

তাদের ওপরে থাকবে ১৫ কেন্দ্র ভিত্তিক গঠিত ভ্রাম্যমাণ তদারকি দল। এ দলে একজন জুনিয়র কমিশন অফিসার (জেসিও) ও দুই জন সার্জেন্ট অথবা ল্যান্স করপোরাল পদমর্যাদার সদস্য দায়িত্বে থাকবেন।

তাদের ওপরে কাজ করবে প্রতি ৫০ কেন্দ্রের জন্য গঠিত দল। এ দলেও সদস্য থাকবেন তিন জন। তাদের মধ্যে একজন মেজর অথবা ক্যাপ্টেন অথবা লেফটেন্যান্ট, একজন জেসিও এবং একজন করপোরাল অথবা ল্যান্স করপোরাল অথবা সৈনিক পদমর্যাদার সদস্য দায়িত্বে থাকবেন।

সবার ওপরে পুরো আসন নিয়ে গঠিত পাঁচ সদস্যের একটি দল কাজ করবে। এতে দায়িত্বে থাকবেন একজন মেজর, দুই জন ক্যাপ্টেন অথবা লেফটেন্যান্ট, একজন জেসিও অথবা সার্জেন্ট এবং একজন করপোরাল অথবা ল্যান্স করপোরাল অথবা সৈনিক সমমর্যাদার সদস্য।

যেভাবে নিয়ন্ত্রণ হবে ইভিএমে ভোট

ইভিএমে ভোটগ্রহণ চারটি নিয়ন্ত্রণ কক্ষের মাধ্যমে হবে। এর মধ্যে একটি নিয়ন্ত্রণ কক্ষ ইসিতে অন্যটি সেনা সদর দফতরে স্থাপন করা হবে। এছাড়া মাঠ পর্যায়ে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে কন্ট্রোল রুম স্থাপন করা হবে। সব কার্যক্রম তদারকি করবে ইসির একটি উচ্চ পর্যায়ের কারিগরি কমিটি।

এর মধ্যে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে স্থাপিত নিয়ন্ত্রণ কক্ষ ইসির নিয়ন্ত্রণ কক্ষের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করবে। অন্যদিকে সেনাবাহিনীর ৫টি দল সেনা সদর দফতরের নিয়ন্ত্রণ কক্ষের সঙ্গে সমন্বয় করবে।

চার জায়গায় জমা হবে ইভিএমের ভোট

প্রতি ইভিএমের ভোটের হিসাব মেশিনের স্থায়ী মেমোরি, অস্থায়ী মেমোরি ও পোলিং কার্ডে জমা হবে। এ ছাড়া ব্ল্যাক বক্সে জমা থাকবে হিসাব। ভোটগ্রহণকালীন যদি কোনো মেশিনে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেয়, তাহলে যেকোনো একটি মেমোরি থেকে রিজার্ভ মেশিনে হিসাব স্থানান্তর করা যাবে।

ভোটের আগের দিন কেন্দ্রে যাবে ইভিএম

কোতোয়ালী আসনের ১৪৪টি কেন্দ্রের ৯২০টি ভোটকক্ষ রয়েছে। প্রতি কক্ষে একটি করে ইভিএম বসানো হবে। সে হিসেবে ওই আসনে ৯২০টি ইভিএমে ভোট হবে। তবে ইসি একটি রিজার্ভসহ ১৮৪০টি ইভিএম চট্টগ্রামে পাঠিয়েছে। ভোটের আগের দিন তথা শনিবার (২৯ ডিসেম্বর) সকালে কেন্দ্রে এসব ইভিএম প্রেরণ করা হবে।

প্রথমবারের মতো জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইভিএমে ভোটগ্রহণের জন্য কোতোয়ালীসহ দেশে ৬টি আসনকে দ্বৈবচয়নের ভিত্তিতে বেছে নেয় ইসি। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ১৫ থেকে ২৩ ও ৩১ থেকে ৩৫ নম্বর ওয়ার্ড নিয়ে কোতোয়ালী আসন।ভোটার রয়েছে ৩ লাখ ৯০ হাজার ৪৩১।

বাংলাদেশ সময়: ২০২৫ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৭, ২০১৮
এসইউ/টিসি

ধান-চাল মজুতের জন্য গুদাম নির্মাণ করা হবে
এবার একুশের অপেক্ষা...
বায়তুল মোকাররমে কবি আল মাহমুদের দ্বিতীয় জানাজা সম্পন্ন
ফেনীতে ফুটবল টুর্নামেন্ট উদযাপনে র‌্যালি
‘নন্দলালের’ ভূমিকা নয়, কর্মকর্তাদের ইসি


নিখোঁজ রাকিবের সন্ধান চায় পরিবার
মাদক নিয়ন্ত্রণে সীমান্তকে কঠোরভাবে সুরক্ষা করবো
আল মাহমুদের কাজে পরবর্তী প্রজন্ম সাহিত্যের উপজীব্য পাবে
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন বিভাগে নিয়োগ
আট গান নিয়ে প্রকাশ পেলো ‘সর্বনামের পাখিরা’