বিএনপি ‘নোংরা রাজনীতি’ করছে, অভিযোগ নওফেলের

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

মতবিনিময় সভায় বক্তব্য দেন মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। ছবি: সোহেল সরওয়ার

চট্টগ্রাম: বিএনপি নেতারা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ‘নোংরা রাজনীতি’ করছে বলে অভিযোগ করেছেন চট্টগ্রাম-৯ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

বৃহস্পতিবার (২৭ ডিসেম্বর) দুপুরে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে আয়োজিত সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় প্রশ্নের উত্তরে তিনি এমন অভিযোগ করেন।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন, ‘বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী শিষ্টাচার বর্হিভূত আচরণ করছেন।’

তিনি বলেন, ‘বিদেশিরা আসবেন, কথা বলবেন, মতামত চাইবেন, মতামত দেব আমরা। এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু একটা সাদা চামড়ার মানুষকে নিয়ে এসে মনগড়া বক্তব্য-বিবৃতি দেওয়ার যে নোংরা রাজনৈতিক সংস্কৃতি চালু করা হয়েছে, আমরা এই বিকৃত মানসিকতার প্রতিবাদ করছি।’

মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন, ‘ইউরোপীয় ইউনিয়নের দুজন এক্সপার্ট, কানাডীয় হাই কমিশনার, ব্রিটিশ হাই কমিশনের রাজনৈতিক বিশ্লেষক আমার কাছেও এসেছিলেন। আমি কথা বলেছি। আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরীর সঙ্গেও তারা আলোচনা করেছেন। কিন্তু আলোচনা শেষে তিনি গণমাধ্যমের কাছে কিছু মিথ্যা, ভিত্তিহীন বক্তব্য তুলে ধরে জল ঘোলা করার চেষ্টা করেছেন।’

তিনি বলেন, ‘বিদেশি ব্যক্তিরা বলেছিলেন, তাদের সাথে যে আলোচনা হয়েছে, সেটা নিয়ে গণমাধ্যমে আমরা যেন কোন ব্রিফিং না দিই। কিন্তু আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী তাদের কথার মূল্যায়ন করেননি, শিষ্টাচার যেটা দেখানোর কথা সেটাও তিনি করেননি, শুধুমাত্র রাজনীতিকরণ করবার জন্য মনগড়া বক্তব্য দিয়েছেন।’

মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেন, ‘বিদেশিরা বরং জানতে চেয়েছেন, জামায়াত ইসলামী যেটা আন্তর্জাতিকভাবে এখন সন্ত্রাসী সংগঠন, তাদের ভূমিকা বিএনপি জোটে কি হবে? এই গোষ্ঠীর বিষয়ে আমাদের মতামত কী এবং সহিংসতার আশঙ্কা আমরা করছি কি-না তা জানতে চেয়েছেন। আমি তাদের বলেছি, বিএনপি এবং জামায়াত এক হয়ে বিভিন্ন পরিকল্পনা করছে। বিদেশিদের কাছেও আশঙ্কা আছে যে, জামায়াতে ইসলামীর মতো সন্ত্রাসী সংগঠন এসব কাজ করবে।’

কালুরঘাট সেতু করতে না পারলে পদত্যাগ: বাদল

নির্বাচিত হয়ে সরকার গঠন করে এক বছরের মধ্যে কালুরঘাট সেতুর কাজ শুরু করতে না পারলে পদত্যাগ করবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন চট্টগ্রাম-৮ আসনে নৌকা প্রতীকের মনোনীত প্রার্থী মইনুদ্দীন খান বাদল।

মতবিনিময় সভায় বক্তব্য দেন মইনুদ্দীন খান বাদল। ছবি: সোহেল সরওয়ারকালুরঘাট সেতু নির্মাণ সংক্রান্ত প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘নির্বাচিত হলে, আমাদের সরকার ক্ষমতায় এলে, লিখে রাখেন, এক বছরের মধ্যে সেতুর কাজ শুরু করতে না পারলে পদত্যাগ করব।’

মইনুদ্দীন খান বাদল বলেন, ‘এটা নিয়ে অহেতুক কিছু কনফিউশন ক্রিয়েট করা হয়েছে। চট্টগ্রাম থেকে কক্সবাজার পর্যন্ত রেললাইন প্রধানমন্ত্রীর ট্রাস্ট সেক্টরের অন্তর্ভুক্ত।’

পাল্টা প্রশ্ন করে মইনুদ্দীন খান বাদল বলেন, ‘কালুরঘাট যদি সেতু না হয় রেল কি পূর্বদিক থেকে লাফ মেরে বটতলী আসবে? এ পশ্নটা কেউ করেনা। এ প্রকল্পের ইন্টারনাল পার্ট হলো এই সেতুটি। এ সেতুটি একনেকে উঠেছে। প্রধানমন্ত্রী বিস্তারিত ডিজাইন চেয়েছেন। কোরিয়ানরা ডিজাইন করছে।’

আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের সঙ্গে দূরত্ব নেই: আনিস

আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গে কোনো দূরত্ব নেই বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম-৫ আসনে মহাজোটের লাঙল প্রতীকের প্রার্থী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ।

মতবিনিময় সভায় বক্তব্য দেন আনিসুল ইসলাম মাহমুদ। ছবি: সোহেল সরওয়ারঅন্য দলের লোক হয়েও জোটের অন্তর্ভুক্ত হওয়ার কারনে আওয়ামী লীগের সমর্থন পেয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গে দূরত্ব থাকা নিয়ে করা পশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গে আমার কোনো দূরত্ব নেই। বরং তাদের নিজেদের মধ্যে ছোটখাটো মনোমালিন্য থাকলে সেটি দূর করতে কাজ করেছি।’

আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেন, ‘আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ভোটেই তো নির্বাচিত হয়েছি। হাটহাজারীতে আমার রিজার্ভ ভোট বাদ দিয়ে এতো ভোট পেলাম। আমাকে তো বিএনপি ভোট দেয়নি, অতিরিক্ত যা ভোট পেয়েছি আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরাই তো দিয়েছে।’

নাশকতার চেষ্টা করছে বিএনপি-জামায়াত: দিদার

সীতাকুণ্ড এলাকায় বিএনপি-জামায়াত নাশকতার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করেছেন চট্টগ্রাম-৪ আসনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী দিদারুল আলম।

মতবিনিময় সভায় বক্তব্য দেন দিদারুল ইসলাম। ছবি: সোহেল সরওয়ারতিনি বলেন, ‘২০১২ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত যে নাশকতা করেছিল, তা পুনরাবৃত্তি করার জন্য চেষ্টা করছে বিএনপি জামায়াত। গত দুইদিন আগে তারা আমাদের নেতাকর্মীদের উপর পেট্রোল বোমা হামলা করেছে। গতকাল (বুধবার) বিএনপি প্রার্থীর গাড়ি থেকে বিপুল পেট্রোল বোমা ও অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ।’

দিদারুল আলম বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াতের এ আগুন সন্ত্রাস মোকাবেলায় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীসহ সাধারণ জনগণ প্রস্তুত রয়েছে।’

মতবিনিময় সভায় আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগ ও মহাজোট মনোনীত চট্টগ্রাম-১০ আসনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ডা. আফছারুল আমীন ও চট্টগ্রাম-৪ আসনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী দিদারুল আলম।

মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন, অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল, নঈম উদ্দিন চৌধুরী, অ্যাডভোকেট সুনীল সরকার, জহিরুল আলম দোভাষ, আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চুসহ নেতাকর্মীরা।

সভা শেষে পাঁচ প্রার্থীকে হাত তুলে পরিচয় করিয়ে দেন নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী এবং সিটি মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন।

সভার শুরুতে গত দশ বছরে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে করা উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের চিত্র তুলে ধরে বক্তব্য দেন আ জ ম নাছির উদ্দীন।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৩৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৭, ২০১৮
এসকে/টিসি

শ্যামলীতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদকবিক্রেতা নিহত
সাব্বির-সাইফউদ্দিনের ব্যাটে শতক পার হলো বাংলাদেশ
টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রোহিঙ্গা মাদক কারবারি নিহত
লক্ষ্মীপুরে ছোট ভাইয়ের হাতে বড় ভাই খুন
নগরে চিকিৎসক সম্মেলন বৃহস্পতিবার


নড়াইলে ৫ মাদকবিক্রেতাসহ গ্রেফতার ২৮
শীতের কুয়াশায় ঢাকা পড়েছে বসন্তের সকাল
‘বন্দুকযুদ্ধে’ ছিনতাইকারী গুলিবিদ্ধ, অস্ত্র উদ্ধার
বড় লক্ষ্যে শুরুতেই নেই বাংলাদেশের চার উইকেট
ভিপি-জিএসদের জন্য প্রস্তুত হচ্ছে ডাকসু ভবন