নারীর অধিকার ফিরিয়ে দিতে সচেষ্ট হতে হবে: ড. অনুপম সেন

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

প্রদর্শনী ঘুরে দেখেন উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেন

চট্টগ্রাম: প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেন বলেছেন, বিশ্বকে মানবিক করতে হলে শ্রম আইন মানবিক করতে হবে।

দেশে দেশে যুগে যুগে শ্রমিকের বঞ্চনা ও নির্যাতিত হওয়ার ইতিহাস বর্ণনা করে তিনি বলেন, শ্রমকে মূল্য দিয়ে মানবতাকে মূল্য দিতে হবে। শিশুশ্রম বন্ধ করতে হবে। নারীর অধিকার ফিরিয়ে দিতে আন্তরিক, সচেতন ও সচেষ্ট হতে হবে।

রোববার (২৩ ডিসেম্বর) সকাল ১১টায় হাজারী লেইন প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি ভবনে আইন বিভাগের ‘শ্রমিক অধিকার’ শীর্ষক প্রদর্শনী ও শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

‘১৮৪৮ সালে অ্যাঙ্গেলস ও কার্ল মার্কস  যৌথভাবে তাদের লিখিত গ্রন্থের মাধ্যমে বিশ্বের শ্রমিক শ্রেণিকে অধিকার আদায়ের জন্য একত্রিত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন’ উল্লেখ করে ড. সেন বলেন, অ্যাঙ্গেলস ও মার্কসের আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে লেনিন চেয়েছিলেন শ্রমিক শ্রেণির জীবনমানের উন্নয়ন ঘটাতে। তাই রাশিয়া সমাজতান্ত্রিক দেশে পরিণত হলে তিনি শ্রমিকের শ্রমের উপযুক্ত মূল্য দেয়ার পাশাপাশি তাদের জীবনমান উন্নয়নের জন্য শিক্ষাকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়েছিলেন। ফলে রাশিয়া খুব দ্রুত জ্ঞান-বিজ্ঞানের বিভিন্ন স্তরে উৎকর্ষ লাভ করে। ১৯৫৭ সালে রাশিয়া প্রথম মহাকাশে স্যাটেলাইট, আরো পরে ইউরি গ্যাগারিনকে মহাশূন্যে পাঠাতে সক্ষম হয়।

দরিদ্রদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন ড. অনুপম সেন‘মাও সেতুংও প্রায় ২৭ বছর চীনে ক্ষমতায় থাকাকালে শ্রমিক শ্রেণির জীবনমানের উন্নয়ন ঘটাতে শিক্ষাকে সর্বাধিক গুরুত্ব দেন’ উল্লেখ করে তিনি বলেন, ৫০ এর দশকের প্রথমে ভারত ও চীনের জিডিপির মধ্যে তেমন বড় কোন পার্থক্য না থাকলেও আজ পার্থক্যের পরিমাণ বিশাল। দক্ষিণ এশিয়ায় ভারত সবচেয়ে অগ্রগামী অর্থনীতি হলেও চীনের তুলনায় তার উন্নয়ন সামান্য। বর্তমানে চীনের জিডিপি ১৪ ট্রিলিয়ন ডলার এবং ভারতের জিডিপি প্রায় আড়াই ট্রিলিয়ন ডলার। এর প্রধান কারণ শিক্ষাকে চীন যেভাবে গুরুত্ব দিয়েছে, তা ভারত থেকে অনেক বেশি। ভারত বর্তমানে জিডিপির ২.৬ শতাংশ খরচ করে শিক্ষায়, চীন করে ৪ শতাংশ।

আইন বিভাগের চেয়ারম্যান তানজিনা আলম চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ফেনীর অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আবু হান্নান ও প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির প্রক্টর আহমদ রাজীব চৌধুরী।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন প্রদর্শনীর পরিচালক ও সমন্বয়ক সহকারী অধ্যাপক হিল্লোল সাহা। স্বাগত বক্তব্য দেন সহকারী অধ্যাপক নুর মোহাম্মদ।

অনুষ্ঠানে আইন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষিকা ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। শেষে প্রধান অতিথি ড. অনুপম সেন প্রদর্শনী ঘুরে দেখেন এবং দরিদ্রদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন।

প্রদর্শনীতে ২৫টি দেয়ালিকা ও ২টি ডকুমেন্টারি প্রদর্শন করা হয়। দেয়ালিকাগুলোর মধ্যে জাহাজভাঙা শিল্পের শ্রমিকের অন্ধকার জীবন, শিশু শ্রম, শ্রমিকের শিশুর বেদনা, গার্মেন্টস শ্রমিক ও তাদের ক্ষতিপূরণ, গার্মেন্টস ট্র্যাজেডি, প্রতিবন্ধী শ্রমিকের জীবনী, ফটোগ্যালারি, নারী শ্রমিক, প্রসূতি কল্যাণ প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৫০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৩, ২০১৮
এসি/টিসি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: চট্টগ্রাম
বগুড়ায় মা ভবানী মন্দিরে পূণ্যার্থীদের মিলনমেলা
জাবিতে র‌্যাগিং বন্ধে প্রশাসনের ভিন্নধর্মী পদক্ষেপ
সালমান মুক্তাদিরকে সিটিটিসির জিজ্ঞাসাবাদ
বইমেলায় বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা
সিআইইউতে প্রোগ্রামিং কনটেস্টে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই


আপিলের নথি গায়েবের অভিযোগ স্বতন্ত্র প্রার্থীর
সম্পদ বিবরণী দাখিল না করায় দুদকের চার্জশিট
নাজিরপুরে প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেফতার 
ঐক্যফ্রন্টের গণশুনানি এগিয়ে ২২ ফেব্রুয়ারি
চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের ‘নির্বাচনে বাধা নেই’