অন্ধকার নয়, আলোর পক্ষে কাজ করবে সুচিন্তা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

সুচিন্তা বাংলাদেশের মতবিনিময় সভা

চট্টগ্রাম: যারা দেশকে অন্ধকারের দিকে নিয়ে গেছে তাদের পক্ষে নয়, যারা দেশকে আলোর পথে- উন্নয়নের পথে নিয়ে এসেছে তাদের পক্ষে কাজ করবে সুচিন্তা বাংলাদেশ। মঙ্গলবার (১১ ডিসেম্বর) চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় সংগঠনটির নেতারা এসব কথা জানান।

সভায় সুচিন্তা বাংলাদেশের চট্টগ্রাম বিভাগীয় সমন্বয়ক জিনাত সোহানা চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে অভাবনীয় উন্নতি হয়েছে। আওয়ামী লীগ সরকারের ১০ বছর সময়ে করা এসব উন্নয়নের মাধ্যমে দেশ আলোর পথে, উন্নয়নের পথে এগিয়ে যাচ্ছে। সরকারের এসব উন্নয়নের অডিও ভিজুয়্যাল আমরা সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরছি।

তিনি বলেন নগরের জিইসি, লালখানবাজার, চকবাজার, নতুন চাক্তায় ব্রিজ, নিউ মার্কেট, মুরাদপুর, দেওয়ান হাট, ইপিজেডসহ নগর ও জেলার বিভিন্ন এলাকায় সুচিন্তা বাংলাদেশ জঙ্গিবাদ বিরোধী কার্যক্রম পরিচালনা করছে। মানুষকে সচেতন করছে। স্বাধীনতার পক্ষে, উন্নয়নের পক্ষে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করছে।

বিএনপি-জামায়াত রাজাকার এবং জঙ্গি অর্থায়নে জড়িতদের মনোনয়ন দিয়েছে অভিযোগ করে জিনাত সোহানা চৌধুরী বলেন, নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপি-জামায়াত এক হয়ে গেছে। তারা চিহ্নিত রাজাকার এবং জঙ্গি অর্থায়নে জড়িত ৪৭ জনকে মনোনয়ন দিয়েছে। এ অবস্থায় সমাজের একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে আমরা বসে থাকতে পারিনা। মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি, উন্নয়নের পক্ষের শক্তিকে ক্ষমতায় আনতে আমাদের কাজ করতে হবে।

তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াত সরকারের অপকর্ম, লুটপাট, অপশাসন মানুষ ভুলে যায়নি। ক্ষমতায় না থেকেও সাঈদীকে চাঁদে দেখা গেছে গুজব ছড়িয়ে দেশব্যাপী নৈরাজ্য করেছে তারা। বাসে, লঞ্চে মানুষ পুড়িয়ে মেরেছে। মাইকে গুজব ছড়িয়ে ফটিকছড়িতে নৃশংস হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে। দেশকে অন্ধকারের দিকে নিয়ে যেতে চেয়েছে। তবে দেশের মানুষ এসব ভুলে যায়নি। তারা রাজাকার-জঙ্গিদের ঐক্য ঘৃণাভরে প্রত্যাখান করবে।

সুচিন্তা ফাউন্ডেশনের চট্টগ্রাম বিভাগীয় উপদেষ্টা স্থপতি আশিক ইমরান বলেন, দেশের মোট ভোটারের ৩ কোটিরও বেশি তরুণ। এর মধ্যে অনেকে এবার প্রথমবারের মতো ভোট দেবেন। আমরা তাদেরকে উন্নয়নের পক্ষে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানায়।

যুগ্ম সমন্বয়ক সাংবাদিক তপন চক্রবর্তী বলেন, দেশের মানুষকে সুচিন্তা ইতিবাচক বার্তা দিতে চায়। উন্নয়নকে অব্যাহত রাখতে, নৌকার পক্ষের প্রার্থীকে জয়ী করতে আমরা কাজ করতে চাই। এজন্যই আমরা সবার সঙ্গে বসে আমাদের পরিকল্পনা তুলে ধরছি। আশা করি গণমাধ্যমসহ সবার সহযোগিতা নিয়ে আমরা এগিয়ে যাবো। নৌকাকে বিজয়ী করতে পারবো।

কার্যকরী সদস্য সাংবাদিক শুকলাল দাশ বলেন, নিরপেক্ষ সেজে বসে থাকার সময় এখন নয়। মুক্তিযুদ্ধের শক্তির পক্ষে মাঠে নেমে আমাদের কাজ করতে হবে। উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মার্কা, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মার্কা নৌকাকে জয়ী করতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও বক্তব্য দেন মো. এমরান সংগঠনের যুগ্ম সমন্বয়ক আবুল হাসনাত ও ডা. হোসেন আহমেদ, কার্যকরী সদস্য দেবাশীষ পাল দেবু ও বোখারী আজম।

বাংলাদেশ সময়: ১৪০০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১১, ২০১৮
এমআর/টিসি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: চট্টগ্রাম
খুলনা-মোংলা রেলপথের সিংহভাগ কাজ শেষের নির্দেশ
কাঁঠালিয়ায় স্কুলছাত্রের মরদেহ উদ্ধার
পুরুষ ক্রিকেটারদের হারিয়ে গিনেজ বুকে অজি নারী ক্রিকেটার
অগ্নিকাণ্ড নিয়ে বিএনপির মন্তব্য দায়িত্বজ্ঞানহীন
ছুটির দিনে জমজমাট বইমেলা


জার্মানিতে ২ ব্যক্তির গুলিবিদ্ধ মরদেহ
কেমিক্যালে ঠাসা সেই ভবনের বেজমেন্ট!
যশোরে হাতবোমা বিস্ফোরণে যুবক আহত
দাদা সাহেব ফালকে ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে ‘গ্রে লাইট’
আলজেরীয় সামরিক এয়ারক্রাফট বিধ্বস্ত, নিহত ২