ম্যাক্স’র ল্যাবে পরীক্ষা হয় না, রিপোর্ট হয়!

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

র‌্যাবের ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারওয়ার আলম ম্যাক্স হাসপাতালের ল্যাবে অভিযান চালান। ছবি: সোহেল সরওয়ার

চট্টগ্রাম: বিতর্কিত ম্যাক্স হাসপাতালের রোগ নিরূপণ কেন্দ্রে (ল্যাব) কোনো পরীক্ষা না হলেও প্রতিদিন প্রচুর রিপোর্ট হয়! এমনকি যে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের সইতে এসব রিপোর্ট দেওয়া হতো তা-ও ছিল জাল।

php glass

রোববার (৮ জুলাই) র‌্যাবের ম্যাজিস্ট্রেট মো. সারওয়ার আলমের অভিযানে উঠে এসেছে অভিনব জালিয়াতি ও প্রতারণার চিত্র।

অভিযানে সহযোগিতা দিচ্ছেন ঢাকার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রতিনিধি ডা. দেওয়ান মো. মেহেদি হাসান, ওষুধ প্রশাসন চট্টগ্রামের তত্ত্বাবধায়ক গুলশান জাহান প্রমুখ।

আটতলা ভবনের তৃতীয় তলায় রয়েছে ম্যাক্স হাসপাতালের রোগ নিরূপণ কেন্দ্র। সেখানে রোগীদের বিভিন্ন রিপোর্ট দেখে অসঙ্গতি পান মো. সারওয়ার আলম।

তিনি সাংবাদিকদের জানান, রোগীদের বেশিরভাগ পরীক্ষার রিপোর্ট পপুলার, এপিকসহ বাইরের ডায়গনস্টিক সেন্টার থেকে করে আনা। তারা বাইর থেকে রোগ নির্ণয় করে আনলেও তাদের নিজের নামে চালিয়ে দিতো। এমনকি যে ডাক্তার রিপোর্টটি তৈরি করতো তার সই না দিয়ে অন্য ডাক্তারের সই থাকতো।

তিনি জানান, কিছু কিছু রিপোর্টের স্যাম্পল তারা বিদেশেও পাঠিয়েছেন। সাধারণত কোনো স্যাম্পল বিদেশে পাঠাতে হলে সরকারের অনুমতি লাগে। এক্ষেত্রে তারা অনুমতি নেয়নি। যেটা সম্পূর্ণ বেআইনি।

পুরো হাসপাতাল ও ডায়গনস্টিক সেন্টার পর্যবেক্ষণ করে তারপর এই হাসপাতালের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেওয়া যায় সেটি দেখবেন বলে জানান তিনি।

সেই ম্যাক্স হাসপাতালে র‌্যাবের অভিযান

বাংলাদেশ সময়:১৩২০ ঘণ্টা, জুলাই ০৮, ২০১৮

জেইউ/টিসি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: ম্যাক্স হাসপাতাল
ষড়যন্ত্র চলছে, সতর্ক থাকতে হবে
আদালতের মালখানা থেকে খোয়া গেছে ২৭ লাখ টাকা
ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের ওপর হামলা, আহত ৫
‘মেসিকে জাতীয় দলে নেওয়ার সময় এটা নয়’
ভালোবাসায় স্মরণ কবি আবু জাফর ওবায়দুল্লাহকে


রাজবাড়ীতে ২ সেবা প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা
মাদারীপুরে ইসলামী মহাসম্মেলন অনুষ্ঠিত
সিআইইউতে ‘ব্যাংকারস হান্ট’
জবিতে ২ দিনব্যাপী সংগীত উৎসব শুরু বুধবার
জিডিপিতে শেয়ার বাজারের অবদান ৪০ শতাংশ হওয়া উচিৎ