ঢাকা, রবিবার, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৯ আগস্ট ২০২০, ১৮ জিলহজ ১৪৪১

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

১১ বছর পর বন্দরে ৬ গ্যান্ট্রি ক্রেন ক্রয়ের অনুমোদন

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫২৬ ঘণ্টা, আগস্ট ২৩, ২০১৭
১১ বছর পর বন্দরে ৬ গ্যান্ট্রি ক্রেন ক্রয়ের অনুমোদন ফাইল ছবি

চট্টগ্রাম: অবশেষে প্রায় ১১ বছর পর ৩৪৪ কোটি ৯২ লাখ টাকায় ছয়টি কী গ্যান্ট্রি ক্রেন ক্রয়ের অনুমোদন পেয়েছে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ। বুধবার সচিবালয়ে মন্ত্রিসভা কক্ষে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়।

বৈঠকে উপস্থিত চট্টগ্রাম বন্দরের একজন কর্মকর্তা বাংলানিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বন্দর সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরের এপ্রিলে ছয়টি কী গ্যান্ট্রি ক্রেন ক্রয়ের দরপত্র আহ্বান করা হয়েছিল।

টেন্ডারে অংশ নিয়ে চীনের জেডপিএমসি সর্বনিম্ন দরদাতা হিসেবে কাজটি পায়। ক্রয় সংক্রান্ত কমিটির অনুমোদন পাওয়ার পর পণ্য সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানকে কার্যাদেশ দেবে বন্দর।

জানা গেছে, চট্টগ্রাম বন্দরের জট নিরসনে ভারি যন্ত্রপাতি ক্রয়ের দাবি করে আসছিলেন ব্যবসায়ীরা। বিভিন্ন সময়ে উদ্যোগ নিয়েও জটিলতার কারণে যন্ত্রপাতি ক্রয় করতে পারেনি বন্দর কর্তৃপক্ষ। গত প্রায় দুই মাস ধরে জাহাজ ও কন্টেইনার জট লেগেই আছে। এরমধ্যে বিদেশি একটি জাহাজের ধাক্কায় দুটি কী গ্যান্ট্রি ক্রেন অচল হয়ে পড়ে। এতে অবস্থা আরও জটিল হয়।

এদিকে দেশের আমদানি-রফতানি বাণিজ্য গতিশীল করতে চট্টগ্রাম বন্দর ২৪ ঘণ্টা খোলা রাখার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নির্দেশনা মেনে ২৪ ঘণ্টা খোলা রাখলেও সেবা দিতে হিমশিম খেতে হচ্ছে বন্দরকে। কোনভাবেই জটমুক্ত করা যাচ্ছে না।

এ অবস্থায় বন্দর ব্যবহারকারী সংস্থাগুলোর সঙ্গে একাধিকবার বৈঠক করেছে বন্দর কর্তৃপক্ষ। কিন্তু কন্টেইনার জটমুক্ত করা সম্ভব হয়নি। সম্প্রতি এফসিএল কন্টেইনার নির্দিষ্ট সময়ে খালাস না নিলে দণ্ড আরোপ করা হবে বলে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে বন্দর কর্তৃপক্ষ।

এ অবস্থায় ছটি কী গ্যান্ট্রি ক্রেন কেনার অনুমোদনকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন বন্দর ব্যবহারকারীরা। তারা বলছেন, ছয়টি গ্যান্ট্রি ক্রেন বন্দরে যুক্ত হলে হ্যান্ডেলিং প্রবৃদ্ধি বাড়বে।

বাংলাদেশ সময়: ২১২৭ঘণ্টা, আগস্ট ২৩, ২০১৭

এমইউ/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa