চট্টগ্রামে শিশুপার্ক

শিশু নয়, আসে বড়রা!

696 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
শিশু বিনোদনের অন্যতম মাধ্যম শিশুপার্ক। এখানে শিশুরা হাসি-আনন্দে মেতে থাকবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু শিশুপার্কে শিশুদের তুলনায় বড়দের উপস্থিতিটা যেন একটু বেশিই ঘটে চলেছে। চট্টগ্রাম মহানগরীর কাজির দেউড়ি জিয়া শিশুপার্ক ও আগ্রাবাদ কর্ণফুলী শিশুপার্কে গিয়ে এমন দৃশ্যই দেখা গেছে।

চট্টগ্রাম: শিশু বিনোদনের অন্যতম মাধ্যম শিশুপার্ক। এখানে শিশুরা হাসি-আনন্দে মেতে থাকবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু শিশুপার্কে শিশুদের তুলনায় বড়দের উপস্থিতিটা যেন একটু বেশিই ঘটে চলেছে।

চট্টগ্রাম মহানগরীর কাজির দেউড়ি জিয়া শিশুপার্ক ও আগ্রাবাদ কর্ণফুলী শিশুপার্কে গিয়ে এমন দৃশ্যই দেখা গেছে। শিশুদের বিনোদনের জন্য মহানগরীতে পার্ক দুটি নির্মিত হলেও শিশুদের থেকে বড়দের উপস্থিতিটা চোখে পড়ে বেশি। 

অপরিচ্ছন্ন পরিবেশ, তরুণ-তরুণীদের অনাবশ্যক উপস্থিতি, রাইডের অতিরিক্ত মূল্য প্রভৃতি কারণে পার্কের সার্বিক অবস্থা  শিশুবান্ধব নয় বলে মনে করছেন শিশুপার্কে বেড়াতে আসা অভিভাবকরা।

হালিশহর থেকে সন্তানদের নিয়ে কর্ণফুলী শিশুপার্কে বেড়াতে আসা রেহেনা বেগম বাংলানিউজকে জানান, সন্তানদের বার্ষিক পরীক্ষা শেষ। তাই, আবদার মেটাতে তাদের নিয়ে এখানে বেড়াতে এসেছি।  কিন্তু, পার্কের পরিবেশ আর আগের মতো নেই।
 
পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতার অভাব, অপর্যাপ্ত নিরাপত্তা, শিশুদের জন্য পর্যাপ্ত রাইডের অভাব, রাইড ফি বেশি, পার্ক রক্ষণাবেক্ষণের অব্যবস্থাপনাসহ বেশ কিছু সমস্যার কথা জানান তিনি।

চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (সিডিএ) আবাসিক এলাকা থেকে আসা মণিকা বাংলানিউজকে জানান, সন্তানরা শিশুপার্কে এলে বিভিন্ন রাইডে চড়ে আনন্দ পায়। তাই, ঘুরতে আসা।  তবে এখানে এলে অনেক সময় সন্তানদের সামনেই অনেক বিব্রতকর পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে হয়।

হালিশহর থেকে কাজির দেউড়ি শিশুপার্কে বেড়াতে আসা শাম্মী আকতার বাংলানিউজকে বললেন, পার্কের পরিবেশ শিশুদের নিয়ে আসার উপযুক্ত নয়। তাছাড়া বিভিন্ন রাইডের মূল্যও অনেক বেশি।

রাইডের মূল্য আরেকটু কমানো হলে শিশুরা শিশুপার্কে ঘুরে আরো বেশি মজা পেতো বলে জানান বহদ্দারহাট থেকে আসা ইউসুফ চৌধুরী।

কর্ণফুলী শিশুপার্কের ব্যবস্থাপক সাহাব উদ্দিন আহমেদ বাংলানিউজকে জানালেন, নয় একর জায়গার ওপর তৈরি এ পার্কটি যাত্রা শুরু করে ২০০০ সালে।  শুরু থেকে এখন পর্যন্ত পার্কে দর্শকের সংখ্যা সন্তোষজনক। তবে সকালে পার্ক খোলা থাকলেও দর্শক বেশি হয় বিকেল থেকে। 

এখানে ৩০টি ভিন্ন রাইড রয়েছে বলেও জানান তিনি।

টিকেটের মূল্য প্রসঙ্গে সাহাব উদ্দিন আহমেদ বলেন, একটি ফ্রি রাইডসহ টিকেটের মূল্য ৪০ টাকা।  রাইডের মূল্য ২৫ টাকা বাদ দিলে টিকেটের দাম পড়ে ১৫ টাকা; যা অন্যান্য পার্কের তুলনায় খুবই কম।  নিম্ন ও মধ্যবিত্তদের নাগালের মধ্যেই প্রবেশ মূল্য রাখা রয়েছে।

কাজির দেউড়ি ‍শিশুপার্ক কর্তৃপক্ষ জানায়, তিন একর জায়গা নিয়ে বেসরকারি উদ্যোগে তৈরি দেশের প্রথম এ পার্ক যাত্রা শুরু করে ১৯৯৪ সালে।  পার্কে ২০ থেকে ২৫টি রাইড রয়েছে।  টিকেটের মূল্য একটি রাইডারে চড়াসহ ৪০ টাকা।  পার্ক খোলা থাকে সকাল ১০টা থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত।

সরেজমিন দেখা যায়, নামে শিশুপার্ক হলেও এখানে শিশুতোষ গানের পরিবর্তে বাজানো হচ্ছে হিন্দি সিনেমার গান। এছাড়া টিকেটের পেছনে দেওয়া হয়েছে, বাংলা সিনেমার বিজ্ঞাপন।

মহানগরীতে শিশুপার্কের সংখ্যা পর্যাপ্ত নয় জানিয়ে এ দুটি শিশুপার্কের পরিবেশের মানোন্নয়নসহ শিশুপার্কের সংখ্যা আরো বাড়ানোর দাবি জানান অভিভাবকরা।

বাংলাদেশ সময়: ১৩১৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০২, ২০১৫

Nagad
করোনায় আরও এক চিকিৎসকের মৃত্যু
চীনের সঙ্গে ৯০০ কোটি রুপির ব্যবসা বাতিল হিরোর
সিলেটে বিনামূল্যে বাসায় পৌঁছাবে অক্সিজেন সেবা
সাংবাদিক নাজমুল হকের জন্ম
ইতিহাসের এই দিনে

সাংবাদিক নাজমুল হকের জন্ম

স্বর্ণের মাস্ক পরছেন ভারতীয়!


জাপানে বন্যা-ভূমিধস, ১৫ জনের মৃত্যুর আশঙ্কা
ভুতুড়ে বিল: ডিপিডিসির ৫ প্রকৌশলী বরখাস্ত, ৩৬ জনকে শোকজ
ইন্ডাস্ট্রি একাডেমিয়া লিংকেজ তৈরি করা খুবই জরুরি: উপমন্ত্রী
সীমান্তে ২৮টি ভারতীয় গরু জব্দ
লাল-সবুজ পতাকা অস্তিত্বে, তাই শিবনারায়নের পাশে দাঁড়িয়েছি