কনফিডেন্স সিমেন্ট বর্ষপঞ্জিতে চট্টগ্রামের ছয় কিংবদন্তী

440 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
বেসরকারি সিমেন্ট প্রতিষ্ঠান কনফিডেন্স সিমেন্ট লিমিটেড চট্টগ্রামের আঞ্চলিক গানের ছয় কিংবদন্তি গীতিকার, সুরকার ও শিল্পীর জীবন ও কর্ম দিয়ে সাজিয়েছে প্রতিষ্ঠানটির ২০১৫ সালের বর্ষপঞ্জি।

চট্টগ্রাম: বেসরকারি সিমেন্ট প্রতিষ্ঠান কনফিডেন্স সিমেন্ট লিমিটেড চট্টগ্রামের আঞ্চলিক গানের ছয় কিংবদন্তি গীতিকার, সুরকার ও শিল্পীর জীবন ও কর্ম দিয়ে সাজিয়েছে প্রতিষ্ঠানটির ২০১৫ সালের বর্ষপঞ্জি।

‘ছোড ছোড ঢেউ তুলি’, ‘বদর বদর হেইঁয়ো’, ‘কূলা চালইন’, ‘পাঞ্জাবিওয়ালা’, ‘কইলজার ভিতর গাঁথি’, ‘ওরে সাম্পানওয়ালা’র মতো চট্টগ্রামের ছয়টি বিখ্যাত আঞ্চলিক গান এবং এসব গানের গীতিকার, সুরকার ও শিল্পী মলয় ঘোষ দস্তিদার, অচিন্ত্যকুমার চক্রবর্তী, শ্যামসুন্দর বৈষ্ণব, আবদুল গফুর হালী, এমএন আখতার ও শেফালী ঘোষের জীবনী দিয়ে এ বর্ষপঞ্জি সাজানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নগরীর জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে কনফিডেন্স সিমেন্টের নতুন বছরের বর্ষপঞ্জির প্রকাশনা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়।  এতে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ উপাচার্য ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, কনফিডেন্স সিমেন্ট প্রতিবছর বর্ষপঞ্জিতে বাঙালি মনীষীদের জীবন-কর্ম ও ছবি দিয়ে সমাজকে শেকড় সন্ধানী করে তোলার প্রয়াস চালিয়ে আসছে।  প্রতিষ্ঠানটি পরিকল্পিতভাবে আমাদের মহান পুরুষদের তরুণ প্রজন্মের কাছে তুলে ধরছে।  এর মধ্য দিয়ে আমাদের নতুন প্রজন্ম নতুনভাবে উজ্জীবিত হওয়ার সাহস ও শক্তি পাচ্ছে।’

কনফিডেন্স সিমেন্ট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক লায়ন রূপম কিশোর বড়ুয়ার সভাপতিত্বে উৎসবে বিশেষ অতিথি ছিলেন কবি-সাংবাদিক বিশ্বজিৎ চৌধুরী এবং গীতিকার, সুরকার ও শিল্পী আবদুল গফুর হালী।

লায়ন রূপম কিশোর বড়ুয়া বলেন, ‘কনফিডেন্স সিমেন্ট লিমিটেড চট্টগ্রামের প্রথম সিমেন্ট ফ্যাক্টরি হিসেবে সাফল্যের সঙ্গে পাড়ি দিয়েছে ২০টি বছর।  শুধু মুনাফা অর্জন আমাদের লক্ষ্য ছিল না। আমরা মানুষকে কিছু দিতে চেয়েছি।  কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করতে চেয়েছি।

তিনি বলেন, কনফিডেন্স সিমেন্ট এর আগেও রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, পঞ্চকবিসহ অনেক বাঙালি মনীষাদের নিয়ে বর্ষপঞ্জি বের করেছিল।  আমরা সংস্কৃতিকে সাধারণ মানুষের কাছে তুলে দিতে চাই। এ বর্ষপঞ্জির প্রতি শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের আগ্রহই বেশি।

উৎসবে স্বাগত বক্তব্য দেন নির্বাহী পরিচালক জহির উদ্দিন আহমদ।  উৎসবে গুণিজন সংবর্ধনা ও আঞ্চলিক গানও পরিবেশন করা হয়।  আবৃত্তিশিল্পী আয়েশা হক শিমুর সঞ্চালনায় বর্ষপঞ্জিতে ঠাঁই পাওয়া গানগুলো পরিবেশন করেন শিল্পী দীপঙ্কর দে।  বর্ষপঞ্জিটি রচনা ও সম্পাদনা করেছেন আইউব সৈয়দ। 

শিল্পীদের স্কেচ এঁকেছেন সুব্রত দাশ।

বাংলাদেশ সময়: ১১০৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০২, ২০১৪

Nagad
নালিতাবাড়ী-ঝিনাইগাতীতে ২৫ গ্রাম প্লাবিত
বিপিও উদ্যোক্তাদের বিনিয়োগের আহ্বান পলকের
বিনিয়োগ আকর্ষণে নীতিমালা সংস্কারের পরামর্শ
ভুয়া চিকিৎসকসহ ৩ জনকে কারাদণ্ড, হাসপাতাল সিলগালা
পশ্চিমবঙ্গে একদিনে করোনা আক্রান্ত ১,৫৬০ জন


নভোএয়ারে ভ্রমণ করলে ফ্রি কাপল টিকিট
‘টাউট’ শহীদুলের আইন পেশা, আছে মানবাধিকার সংগঠন!
সব বিভাগে ভারী বর্ষণের শঙ্কা, বন্যার অবনতি
অর্ধেক দামে মিলবে কৃষি যন্ত্রপাতি, একনেকে প্রকল্প
খুলনায় নতুন করোনা রোগী শনাক্ত ৭৩, মোট ৩১০৮