নতুন বইয়ের ঘ্রাণে মাতোয়ারা চট্টগ্রাম

670 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: সোহেল সরওয়ার/বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
সারাদেশের মত চট্টগ্রামেও উৎসব মূখর পরিবেশে শুরু হয়েছে বই উৎসব। বৃহষ্পতিবার শিক্ষাপঞ্জি শুরুর প্রথম দিন সকাল নয়টা থেকে নগরী ও জেলার বিভিন্ন প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের হাতে নতু্ন বই তুলে দেয়া হচ্ছে। রং-বেরঙের মলাটের নতুন বই হাতে পেয়ে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে উচ্ছসিত হতে দেখা গেছে শিক্ষক ও অভিভাবকদের।

চট্টগ্রাম: সারাদেশের মত চট্টগ্রামেও উৎসব মূখর পরিবেশে শুরু হয়েছে বই উৎসব। বৃহষ্পতিবার শিক্ষাপঞ্জি শুরুর প্রথম দিন সকাল নয়টা থেকে নগরী ও জেলার বিভিন্ন প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের হাতে নতু্ন বই তুলে দেয়া হচ্ছে। রং-বেরঙের মলাটের নতুন বই হাতে পেয়ে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে উচ্ছসিত হতে দেখা গেছে শিক্ষক ও অভিভাবকদের।

সকাল নয়টায় নগরীর মিউনিসিপ্যাল মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে বই উৎসবের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, হরতালের না থাকলে প্রতিটি স্কুলেই আরো উৎসবমুখর পরিবেশে বই বিতরণ করা যেত। আনুষ্ঠানিক আড়ম্বরতা না থাকলেও প্রতিকূলতার মধ্যেও প্রতিটি স্কুলে বছরের প্রথম দিন শিক্ষার্থীরা বই পাচ্ছে।

“আমি যখন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ছিলাম ২০০৩ সাল থেকে ২০০৬-০৭ সাল পর্যন্ত বছরের প্রথম দিন একটা-দুইটার বেশী বই দিতে পারি নাই। এপ্রিল-মার্চ পর্যন্ত বই দেওয়ার রেকর্ড রয়েছে। কিন্তু বর্তমান সরকারের আন্তরিক উদ্যোগের কারণেই বছরের প্রথম দিন সব বই শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দেওয়া যাচ্ছে।”

মেজবাহ উদ্দিন বলেন, হরতালসহ বিভিন্ন কারণে কিছু স্কুলে এখনো পর্যন্ত শতভাগ বই পৌঁছায়নি। সেগুলোতে কয়েকদিনের মধ্যেই পর্যায়ক্রমে বই পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নাসরিন সুলতানা, সহকারি কর্মকর্তা (এডি) মো. জহির উদ্দিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মিউনিপ্যাল স্কুলের শ্রেণী ভিত্তিক মেধা তালিকা অনুসারে প্রথম শ্রেণীর বৃষ্টি আক্তার, দ্বিতীয় শ্রেণীর রূপা মজুমদার, তৃতীয় শ্রেণীর সুরাইয়া জাহাঙ্গীর (প্রমি), চতুর্থ শ্রেণীর মায়মুনা বিনতে অনিভা, পঞ্চম শ্রেণীর নাফিস হাসনাতের হাতে বই তুলে দেন জেলা প্রশাসক।

চট্টগ্রাম বিভাগীয় প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালে চট্টগ্রামে প্রাথমিক পর্যায়ে বইয়ের চাহিদা ৫২ লাখ ২৮ হাজার ৭৬৪টি। জেলা ও নগরীর ৪ হাজার ১২০ স্কুলের ২ লাখ ১৫ হাজার ২৬৬ শিক্ষার্থীর কাছে এ বই পৌঁছানো হবে।

বৃহষ্পতিবার নগরীর বিভিন্ন স্কুল ঘুরে দেখা গেছে, নতুন বই নিতে ভোর থেকেই বিদ্যালয়গুলোতে হাজির হয় ছাত্র-ছাত্রীরা। শিক্ষার্থীরা মেতে ওঠে আনন্দ উৎসবে। এসময় নতুন বই হাতে পেয়ে পাতা উল্টিয়ে বইয়ের ঘ্রাণ নিতে দেখা গেছে শিক্ষার্থীদের।

বাংলাদেশ সময়: ১১৩২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১, ২০১৪

Nagad
এক মিনিটও দুর্নীতির সঙ্গে থাকতে চাই না: স্বাস্থ্য সচিব
জাহাকে বর্ণবাদী মেসেজ, গ্রেফতার ১২ বছরের বালক
‘সাহেদের ব্যাপারে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সতর্কতা প্রয়োজন ছিল’
ধরা পড়লেই বলে হাওয়া ভবনের লোক: রিজভী
ঈদের এক সপ্তাহ আগেই বেতন-বোনাস পরিশোধের দাবি স্কপের


কুয়েতের নতুন রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল আশিকুজ্জামান
ভারতের এক কিউরেটরের মৃত্যু
চলে গেলেন হলিউড অভিনেত্রী কেলি প্রেসটন
‘পাটশিল্পের সঙ্গে জড়িতরা অভিশপ্ত জীবনের দিকে ধাবিত হচ্ছেন’
দলের ভাবমূর্তি নষ্ট করে অর্থ-সম্পদ বাড়ালে ছাড় নয়