ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৩ আগস্ট ২০২০, ২২ জিলহজ ১৪৪১

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

ই-কমার্সের জন্য নীতিমালা দাবি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৫১ ঘণ্টা, নভেম্বর ২১, ২০১৪
ই-কমার্সের জন্য নীতিমালা দাবি ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

চট্টগ্রাম: দেশের ইন্টারনেট ভিত্তিক ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানগুলোকে নীতিমালার আওতায় আনার দাবি জানিয়েছে ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব)।

শুক্রবার চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের নেতারা এ দাবি জানান।



সংগঠনের পরিচালক রেজওয়ানুল হক জামি বলেন, দেশে গত ঈদে ই-কমার্সে অন্তত ৪০০ কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে। ইন্টারনেট ভিত্তিক কেনাবেচার প্রতিষ্ঠানগুলোর জনপ্রিয়তা দিন দিন বাড়ছে।   এ অবস্থায় এই ব্যবসাকে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতার পাশাপাশি নীতিমালার আওতায় আনা প্রয়োজন।

তিনি বলেন, ‘জনসচেতনতার অভাবে অনেকেই ই-কমার্সের নামে প্রতারণা বাড়ছে।   নীতিমালা থাকলে এ ধরনের প্রতারণার সুযোগ থাকবে না। ’

সংগঠনের এই নেতা বলেন, ‘ই-কমার্সের সঙ্গে জড়িত প্রতিষ্ঠানগুলোর নিবন্ধন করারই সুযোগ পাচ্ছে না। সিটি কর্পোরেশন বা সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্টানগুলো বলছে ই-কমার্স হিসেবে নিবন্ধন করা যাবে না।   স্বপ্নের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে এ ধরণের বাধাগুলো দূর করতে হবে। ’

সংবাদ সম্মেলনে ই-ক্যাব সভাপতি রাজিব আহমেদ বলেন, ই-কমার্সকে বাংলাদেশের অর্থনীতির মূল চালিকা শক্তি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার স্বপ্ন নিয়ে আমাদের সংগঠনের যাত্রা শুরু হয়েছে।   দেশের সর্বত্র এ ব্যবসায় ছড়িয়ে দিতে চলতি বছরের ডিসেম্বরে আমরা সবগুলো জেলায়  ই-কমার্স দিবস পালন করব।

একইসঙ্গে, আগামী বছরের ফেব্রুয়ারিতে চট্টগ্রামে বড় পরিসরে মেলা আয়োজনের ঘোষণা দেন ই-ক্যাব সভাপতি।

সংবাদ সম্মেলনে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি আবু সুফিয়ানসহ ই-ক্যাবে নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন বলেন, বাংলাদেশের আগামীর ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করবে ইন্টারনেট ভিত্তিক প্রতিষ্ঠানগুলো। ই-ক্যাব বাণিজ্যিক রাজধানী চট্টগ্রামকে গুরুত্ব দিয়ে তাদের কার্যক্রম পরিচালনার মধ্য দিয়ে দূরদর্শিতার পরিচয় দিয়েছে।

তিনি বলেন, ই-ক্যাবের অধীনে ৭০টি ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান নিবন্ধিত হয়ে কাজ করছে।   ক্রেতারা যাতে কোনভাবে প্রতারিত না হয় সে ব্যাপারে সংগঠনকে সোচ্চার থাকতে হবে।

এসময় ভবিষ্যতে ই-ক্যাবের যে কোন কার্যক্রমে সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন জেলা প্রশাসক।

প্রেস ক্লাব সভাপতি আবু সুফিয়ান বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের জন্য ই-কমার্সের ধারণা সারা দেশে ছড়িয়ে দিতে হবে। যাতে ক্রেতারা আর গতানুগতিক বাজার নির্ভর না থাকে। এর মধ্য দিয়ে ক্রেতারা যেমন উপকৃত হবে, তেমনি অনেক ছোট উদ্যোক্তা বের হয়ে আসবে।

সংবাদ সম্মেলন শেষে নিজল ক্রিয়েটিভ ও মিস্টিক ওয়েভ সলিউশন নামে দু’টি ইন্টারনেট ভিত্তিক ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫১ ঘণ্টা, নভেম্বর ২১, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa