চাকরিচ্যুত পুলিশ ‘ডিবি’ পরিচয়ে ছিনতাই চক্রে

574 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
চট্টগ্রাম নগর পুলিশের চাকরিচ্যুত কনস্টেবল খলিলুর রহমানের নেতৃত্বে একটি চক্র নগরীতে ‘গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি)’ পরিচয়ে ছিনতাই করে বেড়াচ্ছে। বৃহস্পতিবার খলিলসহ দু’জনকে গ্রেফতারের পর এ তথ্য পেয়েছে পুলিশ।

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম নগর পুলিশের চাকরিচ্যুত কনস্টেবল খলিলুর রহমানের নেতৃত্বে একটি চক্র নগরীতে ‘গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি)’ পরিচয়ে ছিনতাই করে বেড়াচ্ছে। বৃহস্পতিবার খলিলসহ দু’জনকে গ্রেফতারের পর এ তথ্য পেয়েছে পুলিশ।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের পরিদর্শক পরিচয়ে একটি ছিনতাইয়ের ঘটনার পর গত ২৭ এপ্রিল খলিলকে নগরীর দামপাড়া পুলিশলাইন থেকে গ্রেফতার করেছিল পুলিশ। জামিনে বের হয়ে এসে খলিল গত মঙ্গলবার ‘ডিবি পুলিশ’ পরিচয়ে একজনের কাছ থেকে দেড় লাখ টাকা ছিনতাই করে নেন।

এরপর কোতোয়ালি থানা পুলিশ কৌশলে খলিল ও তার সহযোগী জাহাঙ্গীরকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নগরীর জেলা পরিষদ মার্কেটের সামনে থেকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

কোতোয়ালি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) নেজাম উদ্দিন বাংলানিউজকে বলেন, খলিলকে আগেরবার গ্রেফতারের পর তিনি বাদীকে ম্যানেজ করে জামিন নেন। জামিনে বের হয়ে আবারও ছিনতাইয়ে লিপ্ত হন তিনি।

কোতোয়ালি থানার এসআই জহির হোসেন বাংলানিউজকে জানান, মঙ্গলবার বিকেলে নগরীর আলমাস মোড়ে খলিলের নেতৃত্বে ৬-৭ জন ছিনতাইকারী বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা আলমগীরকে ‘ডিবি পুলিশ’ পরিচয়ে গ্রেফতারের কথা বলে তুলে নেন। এরপর তাকে সিআরবি এলাকায় নিয়ে গিয়ে দেড় লাখ টাকা কেড়ে নিয়ে ছেড়ে দেন। 

এ ঘটনায় আলমগীর থানায় অভিযোগ দায়েরের পর ছিনতাইকারীদের ধরতে অভিযানে নামে কোতোয়ালি থানা পুলিশ। তদন্তে খলিলের নাম আসার পর তাকে এক সহযোগীসহ গ্রেফতার করে পুলিশ।

এসআই জহির হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, খলিলের ছিনতাইকারী চক্রে আরও কয়েকজন সদস্য আছে। জিজ্ঞাসাবাদ করে তাদের পরিচয় পাবার চেষ্টা করছি। তাদের গ্রেফতারে অভিযান চলবে।

এর আগে গত ১৬ এপ্রিল রাতে বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা ওমর হান্নানকে বিআরটিসি এলাকা থেকে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে তুলে নেন খলিলসহ কয়েকজন। ওমর হান্নানের কাছে স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক এবং ইষ্টার্ন ব্যাংকের দু’টি এটিএম কার্ড ছিল। খলিল অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে দুই ব্যাংক থেকে ওই কার্ডের মাধ্যমে তাকে দুই লাখ টাকা তুলে দিতে ওমর হান্নানকে বাধ্য করেন।

এ ঘটনার পর খলিলুর রহমানকে দামপাড়া পুলিশলাইন থেকে আটক করে নগর গোয়েন্দা পুলিশ। পরে তাকে চাকরিচ্যুত করা হয়। কিন্তু একদিনের মধ্যেই বাদীর সঙ্গে সমঝোতা করে জামিনে বের হন খলিল।

আটক কনস্টেবল খলিলুর ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়া জেলার কসবা উপজেলার উজিরপাড়া এলাকার মৃত লাল মিয়ার ছেলে। তার কনস্টেবল নম্বর ছিল ১৬৬০।

বাংলাদেশ সময়: ২২৪৭ ঘণ্টা, জুন ২৬, ২০১৪

ঈদে প্রকাশ হলো ইকরিমিকরির গান
লকডাউন: মৃত্যুপথযাত্রী মাকেও দেখতে যাননি ডাচ প্রধানমন্ত্রী
নারগিস ফাখরির সঙ্গে তাপসের গান ‘নিত দিন জিয়া মারা’
কোটচাঁদপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত
ধরা পড়ে আবারও বিয়ের পিঁড়িতে নারী ভাইস চেয়ারম্যান


নারায়ণগঞ্জে সর্বোচ্চ করোনা শনাক্তের দিন শহর ফাঁকা!
বোলারদের মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ মিসবাহ’র
শিরোইল পুলিশ ফাঁড়ির ১৮ সদস্য কোয়ারেন্টিনে
লালা ব্যবহার নিষিদ্ধ হলে মানুষ আর ক্রিকেট দেখবে না: স্টার্ক
মুকসুদপুরে পৃথক সংঘর্ষের ঘটনায় ওসিসহ আহত ৪৫