php glass

ইজাহার-হারুনের বিরুদ্ধে আরও এক মামল‍ায় অভিযোগপত্র

452 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
হত্যা মামলায় হেফাজতে ইসলামের সিনিয়র নায়েবে আমির মুফতি ইজাহারুল ইসলাম ও তার ছেলে হারুন ইজাহারসহ পাঁচ আসামীর বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দিয়েছে পুলিশ। লালখানবাজার মাদ্রাসায় গ্রেনেড বানাতে গিয়ে বিস্ফোরণে তিনজন নিহতের ঘটনায় খুলশী থানায় হত্যা মামলাটি দায়ের হয়েছিল।

চট্টগ্রাম: হত্যা মামলায় হেফাজতে ইসলামের সিনিয়র নায়েবে আমির মুফতি ইজাহারুল ইসলাম ও তার ছেলে হারুন ইজাহারসহ পাঁচ আসামীর বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দিয়েছে পুলিশ। লালখানবাজার মাদ্রাসায় গ্রেনেড বানাতে গিয়ে বিস্ফোরণে তিনজন নিহতের  ঘটনায় খুলশী থানায় হত্যা মামলাটি দায়ের হয়েছিল।

বুধবার সকালে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নগরীর খুলশী থানার এস আই মো.শাহআলম চট্টগ্রাম মহানগর আদালতের সাধারণ নিবন্ধন শাখায় অভিযোগপত্রটি জমা দেন।

খুলশী থানার ওসি মাঈনুল ইসলাম ভূঁইয়া বাংলানিউজকে বলেন, তদন্ত শেষে আদালতে হত্যা মামলার অভিযোগপত্র জমা দেয়া হয়েছে। মাদ্রাসায় গ্রেনেড বিস্ফোরণের ঘটনায় তিনটি মামলা দায়ের হয়েছিল। দ্রুততম সময়ের মধ্যে তিনটি মামলারই তদন্ত শেষ করে আমরা অভিযোগপত্র দাখিল করতে সক্ষম হয়েছি।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার মুহাম্মদ রেজাউল মাসুদ অভিযোগপত্র পাবার বিষয়টি বাংলানিউজকে নিশ্চিত করে বলেন, সংশ্লিষ্ট আদালতে অভিযোগপত্রটি দাখিলের প্রক্রিয়া চলছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মুফতি ইজাহার এবং হারুন ইজাহার ছাড়া বাকি তিন আসামি হলেন তাদের সহযোগী জুনায়েদ, হাবিবুর রহমান ও মোহাম্মদ ইসহাক। তিন আসামী লালখান বাজার মাদ্রাসায় কর্মরত ছিলেন। মুফতি ইজাহার ছাড়া বাকি সবাই বর্তমানে কারাগারে আছেন।

আট পৃষ্ঠার অভিযোগপত্রে মোট ১৬ জনের নাম সাক্ষী হিসেবে উল্লেখ আছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে। অভিযোগপত্রে বলা হয়েছে, মুফতি ইজাহার ও তার ছেলের পৃষ্ঠপোষকতায় বোমাগুলো তৈরি করা হচ্ছিল। তাদের সহযোগী হিসেবে এ কাজে সহযোগিতা করছিলেন জুনায়েদ, হাবিবুর রহমান ও মোহাম্মদ ইসহাক।

গত বছরের ৭ অক্টোবর নগরীর লালখান মুফতি ইজাহারুল ইসলাম পরিচালিত জামেয়াতুল উলুম আল ইসলামিয়া মাদ্রাসায় হ্যান্ডগ্রেনেড বানাতে গিয়ে বিস্ফোরণে তিনজন মারা যায়। পরে পুলিশ সেখানে তল্লাশি চালিয়ে চারটি তাজা গ্রেনেড, ১৮ বোতল এসিড এবং বিপুল পরিমাণ গ্রেনেড তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করেন।

এ ঘটনায় পুলিশ বাদি হয়ে নগরীর খুলশী থানায় বিস্ফোরক আইনে, এসিড নিয়ন্ত্রণ আইনে এবং খুনের অভিযোগে পৃথক তিনটি মামলা দায়ের করেন।

বিস্ফোরক আইনের মামলায় গত ১০ ফেব্রুয়ারি অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। এতে আসামী হিসেবে আছেন মুফতি ইজাহার ও তার ছেলে হারুন ইজাহারসহ ৯ জন। অভিযোগ গঠনের পর এ মামলায় বর্তমানে সাক্ষ্যগ্রহণ চলছে।

এসিড নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় মুফতি ইজাহার ও তার ছেলেকে আসামী করে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়েছে গত ২৮ মে। মামলাটি বর্তমানে অভিযোগ গঠনের পর্যায়ে আছে।

সর্বশেষ হত্যা মামলায় বুধবার অভিযোগপত্র দাখিল করা হল।

বাংলাদেশ সময়: ১২৪৬ঘণ্টা, জুন ১১,২০১৪

এইচএসসিতে অকৃতকার্য হয়ে বরগুনায় ছাত্রের আত্মহত্যা
খুলনায় ইয়াবাসহ মাদক কারবারী আটক
কাজিপুরে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে ফাটল, আতঙ্ক
পঞ্চগড়ে অপহৃত স্কুলছাত্রী উদ্ধার, অটোচালক গ্রেফতার
জেমস-আইয়ুব বাচ্চুর গানে মঞ্চ মাতালেন নোবেল


টাইগারদের জন্য নিজেকে যোগ্য কোচ মনে করেন সুজন
লালবাগে ছুরিকাঘাতে নিহত ১
সাস্ট ক্লাবের সভাপতি কামরুল ও সম্পাদক রিন্টু
প্রিয়া সাহার অভিযোগ নিশ্চয়ই চক্রান্ত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
উপজেলা নির্বাচনে বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে কঠোর আ’লীগ