php glass

সরকারি কলেজে আসন সংকট: চাপ বাড়ছে বেসরকারি কলেজে

567 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
একাদশ শ্রেণির ভর্তিতে সরকারি কলেজে আসন সংকটের কারণে চাপ বাড়ছে বেসরকারি কলেজগুলোতে। এক্ষত্রে শিক্ষার মান, অবকাঠামো, দক্ষ ও অভিজ্ঞ শিক্ষক দ্বারা পরিচালিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকেই বেছে নিচ্ছে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।

চট্টগ্রাম: একাদশ শ্রেণির ভর্তিতে সরকারি কলেজে আসন সংকটের কারণে চাপ বাড়ছে বেসরকারি কলেজগুলোতে। এক্ষত্রে শিক্ষার মান, অবকাঠামো, দক্ষ ও অভিজ্ঞ শিক্ষক দ্বারা পরিচালিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকেই বেছে নিচ্ছে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।

নগরীর বেসরকারি কলেজ সূত্রে জানা গেছে, বিগত সময়ে পরীক্ষার্থী ও জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা কম থাকলেও বর্তমানে তা বেড়েছে কয়েকগুণ। সরকারি কলেজে আসন সংকটের কারণে বর্তমানে জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা তাদের কাঙ্খিত কলেজে ভর্তি হতে পারছে না। ফলে বেসরকারি কলেজের দিকেই ঝুঁকছে। এতে ক্রমান্বয়ে চাপ বাড়ছে মান সম্পন্ন বেসরকারি কলোজগুলোতে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডে এবার জিপিএ-৫ পেয়েছে দশ হাজার ৮৮৪ জন। কিন্তু নগরীর ৫টি সরকারি কলেজে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির সুযোগ পাবে মাত্র ৫ হাজার ৮২০ জন। ফলে জিপিএ-৫ প্রাপ্ত আরো ৫ হাজার ৬৪ শিক্ষার্থী ভালো কলেজে ভর্তির সুযোগ পাবেনা।

শহরের বেসরকারি (এমপিও ভুক্ত) কলেজে অথবা নগরীর বাইরে কোন সরকারি কলেজে ঠিকানা খুঁজে নিতে হবে এসব জিপিএ-৫ ধারীকে। কিন্তু শহরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির প্রবণতাও শিক্ষার্থীরে মধ্যে দিন দিন বাড়ছে। এর প্রভাব পড়ছে নগরীর বেসরকারি কলেজগুলোতে। ফলে সরকারি কলেজের পাশাপাশি শিক্ষার্থী ভর্তি করাতে গিয়ে হিমশিম খেতে হয় বেসরকারি কলেজগুলোকেও। এ ক্ষেত্রে ভাল কলেজগুলোতেই বেশি চাপ।

বেসরারি কলেজের মধ্যে চট্টগ্রাম বিজ্ঞান কলেজের প্রতি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের ঝোঁক রয়েছে। কলেজটি বিজ্ঞান শিক্ষায় সাফল্য অর্জন করায় শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়েছে বলে দাবি করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ।  তারা বলছেন, বেসরকারি কলেজের মধ্যে বিজ্ঞান কলেজ ভাল ফলাফল করায় বিজ্ঞানের শিক্ষার্থীরা মূলত এ কলেজকেই বেছে নেয়।

বেশি সংখ্যক বিজ্ঞান শিক্ষার্থী এই কলেজে পড়ছে এমন তথ্য দিয়ে কলেজ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে বিজ্ঞান কলেজের দুটি ক্যাম্পাসের সর্বমোট আসন সংখ্যা ও পাশের হার সরকারি কলেজের প্রায় সমান। জিপিএ প্রাপ্তির সংখ্যাও উল্লেখযোগ্য।

কলেজের প্রতিষ্ঠাতা ও অধ্যক্ষ ড. মোহাম্মদ জাহেদ খান জানান, চকবাজার ও আগ্রাবাদে কলেজের দুটি ক্যাম্পাস রয়েছে। গত বছর ২৫০ জন জিপিএ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীসহ মোট ৬০০ শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয়।

এ পরিমাণ বিজ্ঞান শিক্ষার্থী শিক্ষাবোর্ডের অধীনস্থ অন্য কোনো কলেজে নেই দাবি করে তিনি বলেন, কলেজের দুটি ক্যাম্পাসেই ভর্তির ক্ষেত্রে মেধাবীরা অগ্রাধিকার পাবে।

কলেজটির আগ্রাবাদ ক্যাম্পাসের দায়িত্বে রয়েছেন চট্টগ্রাম মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান ও চট্টগ্রাম কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর মুহম্মদ আবু জাফর চৌধুরী।

তিনি বাংলানিউজকে বলেন, মান সম্পন্ন পাঠদান ও ভাল ফলাফলের কারণে বিজ্ঞান কলেজ সবার নজর কেড়েছে। ফলে এখন বিজ্ঞানের সেরা শিক্ষার্থীরা কলেজে পড়তে আসছে।

রাজধানীতে ভাল কলেজগুলোর সবগুলোই বেসরকারি  উল্লেখ করে তিনি বলেন, চট্টগ্রামে বিজ্ঞান কলেজ এই স্থানটি দখল করেছে। পড়ালেখা ও ফলাফলের মানে বিজ্ঞান কলেজ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য চট্টগ্রামের সেরা কলেজ । কলেজটিতে এসি ক্লাশরুমসহ সকল আধুনিক সুযোগ সুবিধা বিদ্যমান।

এবারের এসএসসির ফলাফল বিশ্লেষণে দেখা যায়, দশ হাজার ৮৮৪ জিপিএ-৫ ছাড়াও, এ গ্রেড (জিপিএ-৪ থেকে জিপিএ-৫ এর নিচে) পেয়েছে ২৬ হাজার ৫৬৩  শিক্ষার্থী। এর মধ্যে ১২ হাজার ৮৬৭ জন ছাত্র এবং ১৩ হাজার ৬৯৬ জন ছাত্রী। জিপিএ-৩ দশমিক ৫ থেকে ৩ দশমিক ৯৯ পেয়েছে ১৯ হাজার ২৫৪ জন। এর মধ্যে ৯ হাজার ১২৬ জন ছাত্র ও ১০ হাজার ১২৮ জন ছাত্রী। জিপিএ-৩ থেকে ৩ দশমিক ৪৯ পেয়েছে ১৫ হাজার ৩৩৪ জন।
এর মধ্যে ৬ হাজার ৯৮৪ জন ছাত্র ও ৮ হাজার ৩৫০ জন ছাত্রী।

জিপিএ- ৫ প্রাপ্তদের পাশাপাশি এ- গ্রেড পাওয়া ২৬ হাজার ৫৬৩ এবং এ ‘মাইনাস’ পাওয়া ১৯ হাজার ২৫৪ শিক্ষার্থীর অধিকাংশ চাইবে নগরীর বেসরকারি কলেজগুলোতে ভর্তি হতে। কিন্তু আসন সংখ্যা কম হওয়ায় নগরীর বেসরকারি কলেজগুলো এই বিশাল সংখ্যক শিক্ষার্থীকে স্থান দিতে পারবেনা।

এ প্রসঙ্গে চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের কর্মকর্তারা জানান, সরকারি কলেজের পাশাপাশি ইদানিং বেসরকারি কলেজগুলোও ভালো ফল করছে। আগের চাইতে বেশি সংখ্যক শিক্ষার্থী কলেজগুলোতে ভর্তি হচ্ছে। বিশেষ করে জিপিএ-৫ প্রাপ্তরা প্রথম সারির কলেজে ভর্তির সুযোগ না পাওয়ায় বেসরকারি কলেজগুলোতে চাপ বাড়ছে।

চট্টগ্রাম বিজ্ঞান কলেজের মূল্যায়ন করতে গিয়ে কলেজের প্রাক্তন শিক্ষার্থী সৈয়দা আশরাফুন্নেছা রিজভী বলেন, আমি চট্টগ্রাম কলেজে ভর্তির সুযোগ না পেয়ে বিজ্ঞান কলেজেই ভর্তি হই। সেখান থেকে জিপিএ-৫ নিয়ে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করার পর চট্টগ্রাম মেডিকেলে পড়ছি।

প্রতিবছরই এ কলেজ থেকে জিপিএ-৫ নিয়ে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করা শত শত শিক্ষার্থী সরকারি মেডিক্যালক কলেজ, বুয়েট, চুয়েটসহ নাম করা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ছে।

বাংলাদেশ সময়:১২২৮ঘণ্টা, জুন ০৮,২০১৪   

কোরবানির পশুতে আমরা স্বয়ংসম্পূর্ণ: খসরু
কর্মকর্তাদের অসন্তোষে বড়পুকুরিয়া খনির এমডিকে অপসারণ
মানুষী নয়, ‘কিক ২’ করছেন জ্যাকুলিন!
কৃষক বাবার সেই ছেলের দায়িত্ব নিলেন ছাত্রলীগ সভাপতি
রাজধানীর উত্তরা থেকে অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার


দুধের নমুনা সংগ্রহে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি অনুসরণের আহ্বান 
সোহানের ব্যাটে লিডের পথে বিসিবি একাদশ
ছেলেমেয়েরা পড়াশোনায় মনোযোগী, বাজিমাত ইংরেজিতে!
৭ বছরের শিশুকে ধর্ষণ-হত্যা, ২ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট
ক্যামিকেল-রং দিয়েই ফলের জুস!