php glass

একমাসের মধ্যে নির্বাচন, নইলে আইনি ব্যবস্থা

894 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
একমাসের মধ্যে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি চট্টগ্রাম শাখার নির্বাচন দাবি করেছেন কার্যকরী কমিটির নেতারা। নইলে গঠনতন্ত্র অনুযায়ী আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন তারা।

চট্টগ্রাম: একমাসের মধ্যে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি চট্টগ্রাম শাখার নির্বাচন দাবি করেছেন কার্যকরী কমিটির নেতারা। নইলে গঠনতন্ত্র অনুযায়ী আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন তারা।

বর্তমান সভাপতি নুরুল আবছার ও সাধারণ সম্পাদক সুভাষ ধরের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও হয়রানির অভিযোগ এনে এ দাবি করেন তারা।

বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি(বাজুস) চট্টগ্রাম শাখার ব্যানারে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলন এসব দাবি জানান তারা। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বাজুস চট্টগ্রাম শাখার সিনিয়র সহ সভাপতি মৃণাল কান্তি ধর।

তিনি বলেন, এক বছর আগে কমিটির মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পরও বর্তমান কমিটির সভাপতি  ও সাধারণ সম্পাদক খোঁড়া ‍যুক্তি দিয়ে ক্ষমতা কুক্ষিগত করে রাখার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে।

বাজুস চট্টগ্রাম শাখার সভাপতি নুরুল আবছার ও সাধারণ সুভাষ ধরের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ এনে মৃণাল কান্তি বলেন, ২২ সদস্য কমিটির ১৯জনই কার্যকরী কমিটির সভায় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের প্রতি অনাস্থা জ্ঞাপন করেছে। সুতরাং তাদের এ পদে দায়িত্ব পালনের আর কোন অধিকার নেই। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী সাধারণ সভা ডেকে তাদেরকে বহিস্কার করা হবে। কোন ব্যবসায়ীকে বর্তমান সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে সম্পর্ক না রাখার অনুরোধ জানান তারা।

বাজুস কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে নির্বাচন দাবি করে তিনি বলেন, চট্টগ্রাম শাখার সকল কার্যকরী কমিটির কর্মকর্তা ও সদস্য আগামী এক মাসের মধ্যে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন দেখতে চাই। অন্যথায় গঠনতন্ত্র অনুযায়ী আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ তুলে ধরে মৃণাল কান্তি ধর বলেন, ব্যবসায়ীদের মধ্যে আভ্যন্তরীন বিভিন্ন ঝামেলার জের ধরে বিচারের নামে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। তারা ভয়ভীতি প্রদর্শন ও হামলা-মামলা দিয়ে ব্যবসায়ীদের হয়রানি করছে। এছাড়া সভাপতি নুরুল আবছার একজন সাম্প্রদায়িক ব্যক্তি। তিনি বিভিন্ন সময় সাম্প্রদায়িক উস্কানিমূলক কথাবার্তা বলেন। সাধারণ সম্পাদক একজন দখল‍বাজ ব্যক্তি। প্রভাব খাটিয়ে তিনি সাধারণ সদসদ্যের দোকান দখলে লিপ্ত।

তিনি বলেন, তাদের হয়রানির শিকার হয়ে কে সি দে রোডের আপন জুয়েলার্স, পুস্পিতা জুয়েলার্স, হাজারী লেনের শুভেচ্ছা জুয়েলার্স, দিদার মার্কেটের মোহনা স্বর্ণ বিতান, বিবিরহাটের সুরানী জুয়েলার্সের স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা ও  স্বর্ণ শিল্পী রুবেল নাথ ইতিমধ্যে সর্বশান্ত।

তিনি বলেন, জুয়েলারী ব্যবসায়ীদের অত্যন্ত প্রয়োজনীয় ৪০টি ‘ডিলিং লাইসেন্স’ তারা নষ্ট করে ফেলে। যা এখনো ফেরত পায়নি ব্যবসায়ীরা। যার কারণে এসব ব্যবসায়ীদের প্রতিনিয়ত হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে।   

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বাজুস চট্টগ্রাম শাখার সহ সভাপতি মো. কামাল পাশা, রিপন কান্তি ধর, আলমগীর, অতিরিক্ত সাধারণ সম্পাদক স্বপন চৌধুরী, যুগ্ম সম্পাদক সুজিত বরণ ধর, প্রকাশ ধর, সিদুঁল ধর, কোষাধ্যক্ষ গোপী নাথ ধর, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রদীপ গুহ, প্রচার ও দপ্তর সম্পাদক মো. নুরুল হক, সাহিত্য ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক আজিজ উল্লাহ, কার্যকরী সদস্য হারাধন মহাজন, লিটন বণিক লিটু, অলক চক্রবর্তী, নিখিল ধর, খোকন ধর, মামুন সরওয়ার।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৪২ ঘণ্টা, জুন ০৭, ২০১৪

৩৭তম বিসিএস থেকে ক্যাডার হলেন আরও ২২ জন
আড়াই কোটি মানুষ খেতে পায় না, সরকার বলে উন্নয়ন: রিজভী
অধিভুক্তি বাতিলের দাবিতে ২য় দিনেও ঢাবিতে বিক্ষোভ
সোহেল তাজের 'হটলাইন কমান্ডো'
সুপার ওভারে ছক্কার উত্তেজনায় মারা যান নিশামের কোচ


বিশ্বমানের পণ্য উৎপাদনে জনবল-কর্মক্ষেত্র বাড়াবে বিএবি
খাগড়াছড়িতে মৎস্য সপ্তাহ উদযাপনে র‌্যালি
মৎস্য কালোবাজারিদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে
বিলীন হচ্ছে সৈকতের ঝাউবন, ভাঙন ঠেকাতে জিওটিউব
মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ধ্বংস: হাইকোর্টের ‘অ্যাপ্রিশিয়েট’