সমিতির সঙ্গে সমঝোতা !

বর্জনে অচল চট্টগ্রাম আদালত

116 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
আদালত বর্জন কর্মসূচী নিয়ে বিএনপি সমর্থক আইনজীবীদের চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির অঘোষিত সমঝোতা হয়েছে। সমিতির শীর্ষ পদে আওয়ামী লীগ সমর্থক আইনজীবীরা থাকলেও আদালত অঙ্গণে অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতি এড়াতে সমিতি বর্জন কর্মসূচীর বিপক্ষে অবস্থান নেয়নি বলে জানা গেছে।

চট্টগ্রাম: আদালত বর্জন কর্মসূচী নিয়ে বিএনপি সমর্থক আইনজীবীদের চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির অঘোষিত সমঝোতা হয়েছে। সমিতির শীর্ষ পদে আওয়ামী লীগ সমর্থক আইনজীবীরা থাকলেও আদালত অঙ্গণে অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতি এড়াতে সমিতি বর্জন কর্মসূচীর বিপক্ষে অবস্থান নেয়নি বলে জানা গেছে।

এর ফলে রোববার চট্টগ্রামের জেলা ও মহানগর, পটিয়া, সাতকানিয়া, মিরসরাইসহ প্রায় দেড় শতাধিক আদালতের কার্যক্রম সকাল থেকে বন্ধ আছে। দুপুর ১টা পর্যন্ত এ কর্মসূচী চলবে বলে জানিয়েছেন বিএনপি সমর্থক আইনজীবীরা। এদিকে আদালতের কার্যক্রম বন্ধ থাকায় সাময়িকভাবে দুর্ভোগে পড়েছেন বিচারপ্রার্থীরা।

চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুর রশিদ বাংলানিউজকে বলেন, আদালত বর্জন কর্মসূচী আমরা মেনে নিয়েছি কিংবা আমাদের মধ্যে কোন সমঝোতা হয়েছে সেটা ঠিক না। আমরা চাইনা, আদালত অঙ্গণে যাতে কোন বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির সৃষ্টি হোক। আইনজীবীদের মধ্যে কোন সাংঘর্ষিক পরিস্থিতির সৃষ্টি হোক সেটা আমরা চাইনা।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, রোববার সকালে আদালতের কার্যক্রম শুরুর আগে চট্টগ্রাম জেলা ও দায়রা জজ, চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ, বিভিন্ন ট্রাইব্যুনাল ও বিশেষ আদালতের বিচারকদের কাছে বিএনপিপন্থী জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের নেতারা গিয়ে আদালত বর্জন কর্মসূচীর কথা জানান। এসময় তারা বিচারকদের এজলাসে না উঠার জন্য অনুরোধ করেন।

তবে সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মহানগর ও জেলা হাকিম আদালতের বেশ কয়েকজন ম্যাজিস্ট্রেট এজলাসে উঠেন। খবর পেয়ে বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা মিছিল নিয়ে এসব আদালতের সামনে যান। পরে ম্যাজিস্ট্রেটরা এজলাস থেকে নেমে যান।

চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুর রশিদ বাংলানিউজকে বলেন, কয়েকজন বিচারক কাজ শুরু করেছিলেন। শুনেছি তাদের নামিয়ে দেয়া হয়েছে। এটা উচিৎ হয়নি। সমিতির সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত ছাড়া কে‍ান একটি গোষ্ঠী আদালত বর্জনের ডাক দিলেই সেটা সবাই মানতে বাধ্য নয়।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার (প্রসিকিউশন) মুহাম্মদ রেজাউল মাসুদ বাংলানিউজকে বলেন, আদালতে কোন বিশৃঙ্খলা নেই। কয়েক দফা মিছিল হয়েছে। আদালতে তেমন কোন কার্যক্রম চলছে না। অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে পুলিশ মোতায়েন আছে।

বিচার বিভাগের স্বাধীনতা নিশ্চিত এবং অ্যাডভোকেট চন্দন সরকারসহ সব অপহরণ-খুনের বিচার দাবিতে শনিবার ডাকা আইনজীবী ফোরামের মহাসমাবেশে বাধা দেওয়ার প্রতিবাদে রোববার সারাদেশে আদালত বর্জনের ডাক দিয়েছে বিএনপি সমর্থিত জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম।

সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে সমাবেশ করতে না পেরে শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে খালেদা জিয়াকে নিয়ে সমাবেশ করে এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন ফোরামের সভাপতি রফিকুল ইসলাম মিয়া।

রোববার সকাল থেকে ১০টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত সুপ্রিম কোর্টসহ সারাদেশে আদালত বর্জন কর্মসূচি চলবে। এছাড়া সোমবার সারাদেশে বিক্ষোভ, মঙ্গলবার সারাদেশে মানববন্ধন এবং ২৮ ও ২৯ মে সারাদেশে কালো পতাকা মিছিল করবেন তারা।

বাংলাদেশ সময়: ১১৫০ ঘণ্টা, মে ২৫, ২০১৪ 

কাস্টম হাউসে করোনার থাবা, শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিতের দাবি
করোনায় দিশেহারা বোয়িং, ১২ হাজার কর্মী ছাঁটাই
কাঁঠালবাড়ী ঘাটে যাত্রীদের উপচে পড়া ভিড় 
কমেছে মাছ-মুরগি-সবজির দাম
সোশ্যাল মিডিয়ার বিরুদ্ধে নির্বাহী আদেশে ট্রাম্পের স্বাক্ষর


চিকিৎসাধীন চট্টগ্রামের শীর্ষ তিন করোনাযোদ্ধা
শনির দশা কাটছে না রাজশাহীর আমের
লিবিয়ায় বেঁচে যাওয়া বাংলাদেশি যে লোমহর্ষক বর্ণনা দিলেন
স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা
পত্নীতলায় সড়ক দুর্ঘটনায় ২ ভাইয়ের মৃত্যু