ইউএসটিসিতে অচলাবস্থা, তৃতীয় দিনও কর্মবিরতি-বিক্ষোভ

81 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
চাকরি বিধিমালা প্রণয়ণের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষক-চিকিৎসক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিক্ষোভ-কর্মবিরতিতে নগরীর বেসরকারি চট্টগ্রাম বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইউএসটিসি) অচলাবস্থা সৃষ্ঠি হয়েছে।

চট্টগ্রাম: চাকরি বিধিমালা প্রণয়ণের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষক-চিকিৎসক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিক্ষোভ-কর্মবিরতিতে নগরীর বেসরকারি চট্টগ্রাম বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইউএসটিসি) অচলাবস্থা সৃষ্ঠি হয়েছে।

টানা আন্দোলনের তৃতীয় দিন মঙ্গলবারও সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত  কর্মবিরতি পালিত হয়। এতে ক্লাস-পরীক্ষাসহ প্রশাসনিক কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ে অচলাবস্থার সৃষ্ঠি হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের এমবিবিএস তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী হামিদ হোসাইন বাংলানিউজকে বলেন, ‘সকালে ক্যাম্পাসে গিয়ে ফিরে এসেছি। বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাশ-পরীক্ষা তিনদিন ধরে হচ্ছে না। গতকাল আমার ফার্মাকোলজির পরীক্ষা ছিলো, আন্দোলনের কারণে তা স্থগিত করা হয়।’

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র জানায়, আন্দোলনের তৃতীয় দিনও ক্যাম্পাসে চাকরি বিধিমালা প্রণয়নের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করে শিক্ষক-চিকিৎসক, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। মিছিল শেষে তারা বিশ্ববিদ্যালয় অডিটোরিয়ামে গিয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করে। এতে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপ-উপাচার্য এ এইচ এম ইছহাক চৌধুরী, অধ্যাপক ডা. রফিকুল হক, ডা. কাজী রকিবুল ইসলাম, ডা. মোস্তফা কামাল, ডা. মাহবুবুল কদির, শিক্ষক, চিকিৎসক ও কর্মকর্তা কর্মচারী সমন্বয় পরিষদের সদস্য সচিব আনোয়ারুল ইসলাম বাপ্পী প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ‘ট্রাস্টি বোর্ডের কাজের জবাবদিহিতা না থাকার কারণে বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্জিত অর্থ নিয়ে লুটপাট চলছে।  শিক্ষক, চিকিৎসক, কর্মকর্তা-কর্মচারিদের ন্যায্য পারিশ্রমিক দেয়া হচ্ছে না। অবিলম্বে স্বাধীন চেতা ব্যক্তিদের দিয়ে সিন্ডিকেট গঠন এবং চাকুরি বিধিমালা প্রণয়ণের মধ্য দিয়ে এ সমস্যার সমাধান করতে হবে।

এদিকে, আন্দোলনের বিভিন্ন দিক ও প্রতিষ্ঠানের সমস্যা তুলে ধরতে মঙ্গলবার বিএমএ নেতৃবৃন্দের সঙ্গে বৈঠক করেছেন আন্দোলনকারিরা।

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে এগারোটায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অডিটোরিয়ামে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে বিএমএর পক্ষে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের চট্টগ্রাম শাখার সভাপতি ডা. মুজিবুল হক, যুগ্ম সম্পাদক ফয়সাল ইকবাল চৌধুরী, ট্রেজারার ডা. আরিফুল আমিন,  ডা. নুরুদ্দিন জাহেদ, ডা. এস এম মাহবুব কদির।

বৈঠক প্রসঙ্গে শিক্ষক, চিকিৎসক ও কর্মকর্তা-কর্মচারী সমন্বয় পরিষদের সদস্য সচিব আনোয়ারুল ইসলাম বাপ্পী বাংলানিউজকে বলেন, ‘বিএমএ নেতারা বৈঠকে আমাদের আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করেছেন এবং দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত সকল সহযোগিতা অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছেন।’

প্রসঙ্গত, চাকরি বিধিমালা প্রণয়ণের দাবিতে গত রোববার থেকে ইউএসটিসিতে ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ রেখে শিক্ষক-চিকিৎসক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আন্দোলন চলছে। আন্দোলন চলাকালে প্রতিদিন চার ঘণ্টা করে অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছে তারা। তবে, বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীভুক্ত হাসপাতালের কার্যক্রম চলছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৪৫ ঘণ্টা, মে ২০, ২০১৪

লেবার পার্টির শ্যাডো কেবিনেটে টিউলিপ
ফায়ার সার্ভিসের ল্যান্ড ফোন বিকল
মিরপুর ও নারায়ণগঞ্জে করোনা পরিস্থিতি ভয়ংকর
ঢাকার বাইরে করোনা রোগী বেড়েছে
এটিএম বুথগুলোর সামনে ‘সামাজিক দূরত্ব’ মানা হচ্ছে না!


ফেনীতে করোনা উপসর্গ নিয়ে একজনের মৃত্যু
বগুড়ায় হতদরিদ্রদের ৫০ বস্তা চালসহ কৃষক লীগ নেতা আটক
সাহায্যের জন্য নগদ অর্থ সংগ্রহ করবেন না: মুখ্যমন্ত্রী
সিলেটে প্রবাস ফেরত যুবককে কুপিয়ে খুন
নারায়ণগঞ্জে বিভিন্ন বাসার ছাদে সারারাত জামাতে নামাজ আদায়