php glass

ঢিলেঢালাভাবে শেষ জামায়াতের হরতাল

125 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
বন্দরনগরী চট্টগ্রামে জামায়াতের ডাকা হরতাল ঢিলেঢালাভাবে শেষ হয়েছে। হরতাল চলাকালে বুধবার দুপুরে নগরীর ব্যাটারি গলির সামনে একটি অটোরিক্সা ভাংচুর ছাড়া আর কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

চট্টগ্রাম: বন্দরনগরী চট্টগ্রামে জামায়াতের ডাকা হরতাল ঢিলেঢালাভাবে শেষ হয়েছে। হরতাল চলাকালে বুধবার দুপুরে নগরীর ব্যাটারি গলির সামনে একটি অটোরিক্সা ভাংচুর ছাড়া আর কোন অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

এদিকে হরতালের মধ্যে নগরীতে ব্যক্তিগত যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকলেও সকাল থেকে প্রচুর পরিমাণে গণপরিবহন রাস্তায় বের হয়েছে। দুপুরের পর নগরীতে হরতালের কোন চিহ্নই দেখা যায়নি। রিক্সা এবং অটোরিক্সা চলাচল পুরোপুরি স্বাভাবিক দেখা গেছে।

হরতালের মধ্যে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক ছিল। তবে মহাসড়কে দূরপাল্লার যানবাহন চলাচল বন্ধ ছিল। চলমান এইচএসসি পরীক্ষা হরতালের আওতামুক্ত ঘোষণা করেছিল জামায়াত।

বুধবার ভোর ৬টা থেকে হরতাল শুরুর পর থেকে নগরীতে জামায়াত-শিবিরের জোরালো কোন পিকেটিং কিংবা মিছিল-সমাবেশ চোখে পড়েনি। তবে সকাল ৯টার দিকে নগরীর জেল রোডে শিবির কর্মী সন্দেহে দু’যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

নগর পুলিশের কোতয়ালী জোনের সহকারী কমিশনার শাহ মো.আব্দুর রউফ বাংলানিউজকে বলেন, দুই যুবক রিক্সা করে যাচ্ছিল। পুলিশ দেখে তারা রিক্সা থেকে নেমে পালানোর চেষ্টা করে। এজন্য তাদের আটক করা হয়েছে।

তিনি জানান, দুপুর ১টার দিকে নগরীর আলমাস সিনেমা হলের অদূরে ব্যাটার গলির মুখে কয়েকজন যুবক ঝটিকা মিছিল করে একটি অটোরিক্সা ভাংচুর করে। এসময় তারা রাস্তায় ‘বিএসআরএম’র ডিভাইডারগুলোও এলোমেলো করে ফেলে রাখে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশ ধাওয়া দিলে তারা পালিয়ে যায়।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার বাবুল আক্তার বাংলানিউজকে বলেন, হরতালে নাশকতা মোকাবেলায় নগরীর অর্ধশতাধিক পয়েন্টে দু’হাজারেরও বেশি পুলিশ মোতায়েন ছিল। দিনভর নগরীর মোড়ে মোড়ে তল্লাশি চালানো হয়েছে।

এদিকে নাশকতা মোকাবেলায় নগরীতে টহল দিয়েছে র‌্যাব। প্রস্তুত ছিল  বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ(বিজিবি)ও।

জেলার মধ্যে জামায়াত অধ্যুষিত সাতকানিয়া, লোহাগাড়া, বাঁশখালীতে অতিরিক্ত সতর্ক অবস্থানে ছিল আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। তবে মহাসড়কে যানবাহন চলাচল কম ছিল বলে জানা গেছে।

চট্টগ্রামের সাতকানিয়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার এ কে এম এমরান ভূঁইয়া বাংলানিউজকে বলেন, মহাসড়কে হরতালের কোন প্রভাব ছিলনা। জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা কোথাও জড়ো হওয়ার চেষ্টা করেননি।

এদিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সীতাকুন্ড-মিরসরাই দিয়েও যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক ছিল বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (উত্তর) মো.শহীদুল্লাহ।

তিনি বাংলানিউজকে বলেন, চট্টগ্রাম থেকে দূরপাল্লার গাড়ি সীমিত আকারে ছেড়েছে। তবে ঢাকাসহ অন্যান্য জেলা থেকে স্বাভাবিক নিয়মেই গাড়ি চট্টগ্রামে ঢুকেছে। সীতাকুন্ড, মিরসরাইয়ে হরতালের সমর্থনে কোন পিকেটিংয়ের খবর পাইনি।

বুধবার সকালে নগরীর নিউমার্কেট, কাজির দেউড়িসহ বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, বিপুল পরিমাণে রিক্সা, অটোরিক্সা, টেম্পু, মিনিবাস চলাচল করছে। স্বাভাবিকভাবেই কর্মস্থলে যাচ্ছেন শ্রমজীবী মানুষ। তবে পণ্যবোঝাই পরিবহন চলাচল কম দেখা গেছে।

হরতালের মধ্যেও নগরীতে অধিকাংশ কল-কারখানা, পোশাক-কারখানা খোলা ছিল। সরকারী-বেসরকারী অফিস, বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান, কিছু কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা ছিল। চট্টগ্রাম বন্দরের ভেতরে পণ্য উঠানামা স্বাভাবিক ছিল বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

সোমবার চট্টগ্রাম নগরীতে জামায়াত কার্যালয়ে অভিযান চালিয়ে নগর শাখার আমির ও সাবেক সংসদ সদস্য আ ন ম শামসুল ইসলামসহ ২১ জনকে আটকের প্রতিবাদে চট্টগ্রাম জেলা, তিন পার্বত্য জেলা ও কক্সবাজারে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল আহ্বান করা হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৯০১ ঘণ্টা, মে ১৪, ২০১৪

চেকপোস্টে দুর্বৃত্তের হামলায় ৩ পুলিশ আহত, অস্ত্রসহ আটক ২
পাবনায় সরকারিভাবে আমন সংগ্রহের কার্যক্রম শুরু
বায়িং হাউজগুলোর দক্ষতা বাড়ানোর ওপর জোরারোপ
ওয়ারীতে দেশি অস্ত্রসহ ৬ ডাকাত আটক
সিলেটে ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার


কেরানীগঞ্জে বাসচাপায় অটোরিকশাযাত্রী নিহত
পাইকগাছায় ঘের ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা 
দুর্গাসাগর দীঘিতে নিখোঁজের ৮ ঘণ্টা পর যুবকের মরদেহ উদ্ধার
সারাদেশের পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহার
বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার অবদান লিপিবদ্ধ করার দাবি