php glass

চন্দনাইশ উপজেলা চেয়ারম্যানসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে অপহরণ মামলা

140 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

আব্দুল জব্বার চৌধুরী

walton
চট্টগ্রামের চন্দনাইশ থেকে নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান ও এলডিপি নেতা আব্দুল জব্বার চৌধুরীসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে অপহরণ ও হত্যা প্রচেষ্টার অভিযোগে মামলা করেছেন শেখ শওকত হোসেন নামে এক আওয়ামী লীগ কর্মী।

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রামের চন্দনাইশ থেকে নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান ও এলডিপি নেতা আব্দুল জব্বার চৌধুরীসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে অপহরণ ও হত্যা প্রচেষ্টার অভিযোগে মামলা করেছেন শেখ শওকত হোসেন নামে এক আওয়ামী লীগ কর্মী।

বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামের মুখ্য মহানগর হাকিম (সিএমএম) মো.মশিউর রহমানের আদালতে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে।

শেখ শওকত হোসেন চন্দনাইশ পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ কর্মী এবং মধ্যম চন্দনাইশ এলাকার সাবেক চেয়ারম্যান আহমেদ হোসেনের ছেলে। গত ২ এপ্রিল তিনি আব্দুল জব্বারের বিরুদ্ধে নির্বাচনী সহিংসতার অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেছিলেন। পরে আবার তিনি মামলাটি প্রত্যাহারও করেন।

বাদিপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মোস্তফা মোহাম্মদ এমরান বাংলানিউজকে বলেন, আদালত অপহরণ ও হত্যা প্রচেষ্টার মামলাটি গ্রহণ করে বাদির জবানবন্দি রেকর্ড করেছেন। এরপর চট্টগ্রাম নগর গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী কমিশনার (উত্তর) মো.কামরুজ্জামানকে তদন্ত করে ১৫ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলার যাদের অভিযুক্ত করা হয়েছে তারা হলেন, দক্ষিণ জেলা এলডিপির জ্যেষ্ঠ্য সহ-সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল জব্বার, তার অনুসারী সিরাজুল ইসলাম, নজরুল, মোজাম্মেল হোসেন, মারুফুর রহমান, তৈয়ব আলী, সবুজ, নজরুল প্রকাশ সিডি নজরুল এবং সোহেল চৌধুরী।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, মামলার এজাহারে বাদি অভিযোগ করেন, গত ১৫ মার্চ চন্দনাইশ উপজেলার নির্বাচনের দিন ১৯ দল সমর্থিত প্রার্থী এলডিপি নেতা আব্দুল জব্বার চৌধুরীর নেতৃত্বে শেখ শওকত হোসেনের ওপর হামলা হয়। এ ঘটনায় চন্দনাইশ থানায় মামলা করার পর ২ এপ্রিল বিকেলে শওকত হোসেন আইনজীবীর সঙ্গে দেখা করার জন্য আদালতে এলে তাকে আসামীরা অপহরণ করে নগরীর কোতয়ালী থানার রিয়াজউদ্দিন বাজার এলাকায় সফিনা হোটেলে নিয়ে যায়।

রাতে তার কাছ থেকে বিভিন্ন খালি স্ট্যাম্প, আপোষনামা, হলফনামা ও ওকালতনামায় জোরপূর্বক স্বাক্ষর নেয়। পরদিন তা আদালতে উপস্থাপন করে জামিন নেয়া হয়। এসময় জোরপূর্বক নেয়া মামলা প্রত্যাহারের আবেদনও আদালতে জমা দেয়া হয়।

এরপর তাকে কক্সবাজারে নিয়ে গিয়ে হোটেল দি কক্স টু ডে’র ০৩০ নম্বর কক্ষে আটকে রাখে। ৫ এপ্রিল সন্ধ্যায় কৌশলে শওকত হোসেন তার এক বন্ধুকে অপহরণ ও অবস্থান জানান।

খবর পেয়ে শওকতের ভাই দ্রুত কক্সবাজারে গিয়ে থানায় একটি জিডি করেন। রাতে পুলিশ হোটেলে অভিযান চালিয়ে শওকতকে উদ্ধার করে এবং চট্টগ্রাম নগরীর কোতয়ালী থানায় পাঠিয়ে দেয়। শওকত কোতয়ালী থানায় এসে মামলা করতে চাইলে পুলিশ মামলা নিতে অস্বীকৃতি জানায়।

এরপর শওকত বৃহস্পতিবার জব্বারসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে সিএমএম আদালতে দণ্ডবিধির ৩৮৬, ১৯৬, ২০৩, ৩৬৪, ৩৬৫, ১৪৩, ৩৪১, ৩২৩, ৩২৪, ৩৭৯, ৫০৬ এবং ৩৪ ধারায় মামলা দায়ের করেন।

বেশকিছু সংহিস ঘটনার মধ্য দিয়ে গত ১৫ মার্চের নির্বাচনে বিজয়ী হন এলডিপি নেতা আবদুল জব্বার চৌধুরী।

নির্বাচনে তিনি পান ৪৩ হাজার ৯৪৯ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত মোহাম্মদ কাসেম মোটরসাইকেল প্রতীকে পান ৪০ হাজার ১৫৮ ভোট।

আব্দুল জব্বার চৌধুরী গতবারও চন্দনাইশ উপজেলায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৮০০ঘণ্টা, এপ্রিল ১০,২০১৪

মানিকগঞ্জে কলেজ ছাত্রীর মৃত্যু
ঢাকার নতুন ফরাসি রাষ্ট্রদূত জ্যঁ-ম্যারি শু
হাইটেক সিটিতে বায়ো-টেকনোলজি নিয়ে কাজ করবে ওরিক্স
সাভারে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে প্রাইভেটকার নদে, হতাহতের শঙ্কা
‘কর্নেল তাহের দেশপ্রেমিক, জিয়া বিশ্বাসঘাতক’


ছাগলনাইয়ায় ২ মরদেহ উদ্ধার
নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ ও বিআরটিসিতে নতুন চেয়ারম্যান
প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার ধুমপানের ছবি ভাইরাল
ছোট ফেনী নদীতে কৃষক নিখোঁজ
কোরবানির বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় ফ্রি ব্যাগ, ৪ লাখ লিফলেট