চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারে পৌনে ৩৪ কেজি স্বর্ণ উদ্ধার

291 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: প্রতীকী

walton
চট্টগ্রামের শাহ আমানত বিমানবন্দর থেকে ৫৩টি স্বর্ণের বারসহ আনিছ নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। কক্সবাজার থেকে উদ্ধার করা হয়েছে আরো ২৭ কেজি ৭৬৫ গ্রাম স্বর্ণালংকার। আটক করা হয়েছে ৩ জনকে।
php glass

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রামের শাহ আমানত বিমানবন্দর থেকে ৫৩টি স্বর্ণের বারসহ আনিছ নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। কক্সবাজার থেকে উদ্ধার করা হয়েছে আরো ২৭ কেজি ৭৬৫ গ্রাম স্বর্ণালংকার। আটক করা হয়েছে ৩ জনকে।

সব মিলিয়ে উদ্ধারকৃত স্বর্ণের পরিমাণ প্রায় পৌনে ৩৪ কেজি।

সোমবার সকাল সোয়া আটটার দিকে দুবাই থেকে আসা বাংলাদেশ বিমানের (০২৪) এক যাত্রীর কাছ থেকে ৫৩টি স্বর্ণবার উদ্ধার করা হয়।

এর আগে রোববার দিনগত রাত ১২টার দিকে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)-১৭ ও পুলিশ যৌথভাবে অভিযান চালিয়ে প্রায় পৌনে ২৮ কেজি স্বর্ণালঙ্কার উদ্ধার করে বলে ‍জানান বিজিবির সেক্টর কমান্ডার কর্নেল ফরিদ হাসান।

চট্টগ্রামে আটক আনিছের বাড়ি বোয়ালখালী উপজেলায়।

কাস্টমসের শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক নাহিদ নওশাদ মুকুল বাংলানিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

তিনি জানান, দুবাই থেকে আসা ওই ব্যক্তির কাছ থেকে ৬ কেজি ৮ গ্রাম ওজনের ৫৩টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। এগুলোর মূল্য আড়াই কোটি টাকা হবে।

এদিকে, কক্সবাজারের চকরিয়া পৌর এলাকার বায়তুল শরফ সড়ক এলাকায় এক স্বর্ণ ব্যবসায়ীর ঘরে অভিযান চালিয়ে ২৭ কেজি ৭৬৫ গ্রাম বন্ধকী স্বর্ণালংকার ও নগদ প্রায় সাড়ে ১১ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে।

এ সময় স্বর্ণ ব্যবসায়ী ও মহাজন নন্দরাম ধর এবং তার দুই ছেলে পলাশ ধর ও সুমন ধরকে আটক করা হয়। অভিযানে নেতৃত্ব দেন কক্সবাজার ১৭ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল খন্দকার সাইফুল ইসলাম।

তিনি জানান, মধ্যরাতে স্বর্ণ ব্যবসায়ী নন্দরাম ধরের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়। এসময় ওই বাড়ি থেকে নগদ ১১ লাখ ৪৯ হাজার ৯৫২ টাকা ও বস্তা ভর্তি বিপুল পরিমাণ স্বর্ণালংকার উদ্ধার করা হয়। সেই সঙ্গে আটক করা হয় মহাজন ও তার দুই ছেলেকে।

তিনি আরো জানান, এসব স্বর্ণালংকার চকরিয়া থানায় জমা দেওয়ার পর তা পরিমাপ করে দেখা যায় যে এতে ২৭ কেজি ৭৬৫ গ্রাম স্বর্ণালংকার রয়েছে।

মহাজন নন্দরাম ধরের স্ত্রী পারুল বালা ধর অভিযোগ করে বলেন, আমার স্বামীর পায়ে গুলি করা হয়েছে। আমার স্বামী লাইসেন্স নিয়েই মহাজনী ব্যবসা করেন। তাদের ঘর থেকে উদ্ধার করা স্বর্ণালংকার স্থানীয় গ্রামবাসীর বন্ধকী স্বর্ণ। বিপদে-আপদে পড়ে গ্রামের নারীরা মহাজনের কাছে স্বর্ণালংকার বন্ধক রাখেন। পরে টাকা পরিশোধ করে তা ফেরত নিয়ে যান।

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ ফরহাদ জানান, অভিযানের সময় তার পায়ে গুলি লেগেছে। এ ব্যাপারে স্বর্ণ চোরাচালান ধারায় মামলা দায়ের করা হচ্ছে।

কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. রুহুল আমিন জানান, একজন মহাজন তার ঘরে এতো স্বর্ণ কীভাবে রাখেন, সেটাই এখন বড় প্রশ্ন। কারণ এতো স্বর্ণ নিয়ে অনেক বড় দুর্ঘটনাওতো ঘটতে পারতো।

আমি এখন থেকে সব মহাজনকে এভাবে আইনের আওতায় আনবো।

বাংলাদেশ সময়: ১০৩৫ ঘণ্টা, এপ্রিল ০৭, ২০১৪

 কবি হায়াৎ সাইফের প্রয়াণে স্মরণসভা
চুয়াডাঙ্গায় বাড়িতে ট্রাক ঢুকে গৃহকর্তা নিহত
ছত্তিশগড়ে জিপ-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ৬
নতুন কর্মস্থলে যোগ দিলেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী
ঘুষ নেওয়ার অভিযোগে ৩ পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে  মামলা


সাভারে সেপটিক ট্যাংকে পড়ে নারীর মৃত্যু
সহকারী শিক্ষকদের থেকেই পদোন্নতি দিয়ে প্রধান শিক্ষক
মানিকগঞ্জে পুলিশ সদস্যের মরদেহ উদ্ধার
আবাসিকে রমরমা বাণিজ্য
ঈদে ঈশ্বরদী-ঢাকা-ঈশ্বরদী রুটে স্পেশাল ট্রেন