php glass

দুর্নীতির অভিযোগ প্রমাণিত

পদ্মা অয়েলের এমডির বিরুদ্ধে শাস্তির নির্দেশ দুদকের

227 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
দুর্নীতির অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশনের (বিপিসি) প্রতিষ্ঠান পদ্মা অয়েল কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল খায়েরের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

চট্টগ্রাম: দুর্নীতির অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশনের (বিপিসি)  প্রতিষ্ঠান পদ্মা অয়েল কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল খায়েরের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

দুদক সূত্র জানায়, নিয়োগ বিধি না মেনে তিন দফায় চুক্তিভিত্তিক কর্মরত ৮৮ জনকে পদ্মা অয়েল কোম্পানিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে অনিয়মের অভিযোগে দুদকের দায়ের করা তিনটি মামলার অনুসন্ধানে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এছাড়া আবুল খায়ের এর সম্পদ বিবরনী তদন্তের জন্য দুর্নীতি দমন কমিশনের একজন উপ-পরিচালককে কর্মকর্তা নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

সূত্র জানায়, নিয়োগ বিধি না মেনে তিন দফায় চুক্তিভিত্তিক কর্মরত ৮৮ জনকে পদ্মা অয়েল কোম্পানীতে নিয়োগ দেন আবুল খায়ের। এ অভিযোগে গত বছরের ১০ জুলাই নগরীর সদরঘাট থানায় তিনটি মামলা দায়ের করেন দুদক চট্টগ্রাম কার্যালয়ের ডেপুটি ডিরেক্টর মোরশেদ আলম।

মামলার তদন্ত প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে ২০১০ সালের ২৬ জানুয়ারি থেকে ৩ মার্চ পর্যন্ত ক্ষমতার অপব্যবহার করে কোন প্রকার বিজ্ঞপ্তি ও কোন নিয়োগ পরীক্ষা না নিয়ে তিন দফায় ৮৮জনকে পদ্মা অয়েল কোম্পানীতে অবৈধভাবে নিয়োগে অনিয়মের প্রমাণ পায় দুদক।

এর ভিত্তিতে আবুল খায়েরের বিরুদ্ধে বিভাগীয় শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেওয়া হয়। গত ১৬ ফেব্রুয়ারি সি-১২১, ১২২, ১২৩/ ২০১৩ চট্টগ্রাম অনু ও তদন্ত-২  স্মারক মূলে জ্বালানি মন্ত্রণালয়কে লিখিতভাবে এ ব্যাপারে অবহিত করা হয়।

তবে এ আদেশের এক মাসের বেশি সময় অতিবাহিত হলেও মো.আবুল খায়েরের বিরুদ্ধে কোন ধরণের ব্যবস্থা নেয়নি কর্তৃপক্ষ। এত বড় অনিয়ম প্রমাণিত হওয়ার পরও তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেয়া রহস্যজনক বলে মনে করছেন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

দুদক সূত্রে জানা গেছে, আবুল খায়ের সম্পদ বিবরনীর তদন্তের জন্য দুদুকের উপ-পরিচালক আহসান আলীকে কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

বিপিসির আওতাধীন দুর্নীতিগ্রস্ত প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিচিত পদ্মা অয়েল কোম্পানিতে জ্বালানী তেল চুরিসহ নানা অনিয়মের মাধ্যমে অন্তত ৫০ কোটি টাকা হস্তগত করার অভিযোগ রয়েছে আবুল খায়েরের বিরুদ্ধে। অনুসন্ধান শেষে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা আবুল খায়েরের সম্পদ বিবরনী চাওয়ার সুপারিশ করেন।

এই পরিপ্রেক্ষিতে দুদক তার সম্পদ বিবরনী চায়। সম্পতি তিনি সম্পদ বিবরনী দাখিল করেন। এদিকে ২টি মামলা, ৩টি অভিযোগপত্র এবং ১টি অনুসন্ধান অনুমোদন করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন।

বাংলাদেশ সময়: ১২১৪ ঘণ্টা, মার্চ ২৪, ২০১৪

ইমরুলের দ্রুত বিদায়
উত্তরায় গাড়িমুক্ত সড়ক উদ্বোধন
গণহত্যা বিষয়ক সম্মেলনে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রীর স্মৃতিচারণ
তাজরীন হত্যাকাণ্ডের ৭ম বার্ষিকীতে ক্ষতিপূরণের দাবি
আসামের নাগরিকত্ব তালিকা বাতিলের ইঙ্গিত অমিত শাহের


দেশের মানুষের জন্য এ সরকারের চিন্তা নেই: ফখরুল
পাটুরিয়া ঘাটে পারের অপেক্ষায় শতাধিক যানবাহন
সার্কের স্বার্থে রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান জরুরি
প্রাঙ্গনেমো’র আয়োজনে দুই বাংলার নাট্যমেলার ১১তম আসর
ঘুমের সমস্যায়, এক মিনিটের থেরাপি!