ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৩ আগস্ট ২০২০, ২২ জিলহজ ১৪৪১

জলবায়ু ও পরিবেশ

বিদ্যুৎহীন রাজশাহীতে তাণ্ডব চালাচ্ছে আম্পান

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০২১১ ঘণ্টা, মে ২১, ২০২০
বিদ্যুৎহীন রাজশাহীতে তাণ্ডব চালাচ্ছে আম্পান .

রাজশাহী: প্রবল ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে রাজশাহীতে চলছে ভারী বর্ষণ। দিনভর গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হলেও বুধবার (২০ মে) রাত ১০টার পর থেকে শুরু হয় ভারী বর্ষণ। এরপর থেকে মুষলধারে বৃষ্টি চলছেই। সেইসঙ্গে বয়ে যাচ্ছে ঝড়ো হাওয়া।

এরই মধ্যে পুরো শহরই প্রায় বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়েছে। ঝড়-বৃষ্টির আগেই বিদ্যুৎ চলে গেলে শহরজুড়ে নেমে আসে অন্ধকার।

বর্তমানে পুরো ভূতুড়ে নগরীতে পরিণত হয়েছে রাজশাহী। এর মধ্যেই চোখ রাঙাচ্ছে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় আম্পান। আন্ধাকারচ্ছন্ন নগরবাসী ভারী বর্ষণে হিমশিম খাচ্ছেন।

এদিকে, ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে রাজশাহীতে ঝড়ো হাওয়াসহ ভারী বর্ষণে উঠতি আম ও ফসলের ব্যাপক  ক্ষয়ক্ষতি হচ্ছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। মারাত্মক ফসলহানীর আশঙ্কায় স্থানীয় কৃষকদের রাতের ঘুম হারাম হয়ে গেছে। এরইমধ্যে রাজশাহী মহানগরী ও আশপাশের এলাকায় থাকা টিনের ঘর ও উপজেলা পর্যায়ে থাকা কাঁচা ঘর-বাড়ির চালা উড়ে যাওয়া ও ধসে পড়া এবং গাছপালা উপড়ে যাওয়ার খবর পাওয়া যাচ্ছে।

ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’ বর্তমান সাতক্ষীরা ও আশেপাশের এলাকায় অবস্থান করছে। এটি আরও উত্তর দিকে যাচ্ছে। কিন্তু ঝড়ের লেজ উপকূলের দিকে থাকায় ১৫ ফুট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

আবহাওয়া অধিদফতর সর্বশেষ বিজ্ঞপ্তিতে বুধবার (২০ মে) রাতে বলা হয়েছে- ঘূর্ণিঝড় আম্পান আরও উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে উপকূল অতিক্রম সম্পন্ন করে বর্তমানে সাতক্ষীরা জেলা ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে ঘূর্ণিঝড় হিসেবে। এটি আরও উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে বৃষ্টি ঝড়িয়ে ক্রমান্বয়ে দুর্বল হয়ে যেতে পারে।

এদিকে, ঘুর্ণিঝড় পর্যবেক্ষণকারী ওয়েবসাইট উইনডি ডটকম দেখাচ্ছে, বৃহস্পতিবার (২১ মে) সকাল ৮টার দিকে আম্পান' দুর্বল হয়ে পড়ে মূল কেন্দ্র ভারতীয় সীমান্ত দিয়ে রাজশাহী প্রবেশ করবে। রাজশাহী অতিক্রম করে সেটি চাঁপাইনবাগঞ্জ হয়ে ভারতের মালদার দিকে চলে যাবে। তখন এর তেমন শক্তি থাকবে না।

জানতে চাইলে রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের জ্যেষ্ঠ পর্যবেক্ষক রাজিব খান বাংলানিউজকে বলেন, ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাব রাজশাহীতে বুধবার সারাদিনই থেমে থেমে বৃষ্টি হয়েছে। কখনও গুঁড়ি গুঁড়ি কখনও মুষলধারে বৃষ্টি হয়েছে। তবে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় আম্পান উপকূলে আঘাত হানার পর রাতে বৃষ্টিপাতের ধরন ও মাত্রা পাল্টেছে উত্তরের বিভাগীয় শহর রাজশাহীতেও।

বুধবার দিনগত রাত দেড়াটার দিকে তিনি বাংলানিউজকে বলেন, বর্তমানে রাজশাহীর ওপর দিয়ে ২৫ নটিক্যাল মাইল অর্থাৎ ৪৬ কিলোমিটার বেগে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যাচ্ছে। রাজশাহীতে বুধবার (২০ মে) ভোর ৪টা থেকে বুধবার দিনগত রাত ১২টা পর্যন্ত ৩৯ দশমিক ৩ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। এখনও ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি চলছেই। পরিমাণও বাড়বে।

তিনি আরও জানান, ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে রাজশাহীতে বুধবার সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রার ব্যবধানও কমে আসে। এটি শীতকালের কোনো কোনো সময় সাধারণত হয়ে থাকে।

বুধবার রাজশাহীর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ২৫ দশমিক ০ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৫ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

বাংলাদেশ সময়: ০২১১ ঘণ্টা, মে ২১, ২০২০
এসএস/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa