ভোলায় এরইমধ্যে ৫০ হাজার লোক আশ্রয়কেন্দ্রে

ছোটন সাহা, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

আশ্রয়কেন্দ্রে আসছে মানুষ

walton

ভোলা: ভোলার মূল ভূখণ্ড থেকে বিচ্ছিন্ন চরফ্যাশন ও মনপুরা উপজেলার বিভিন্ন দ্বীপচরের মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্রে আনা হচ্ছে। এরইমধ্যে ৫০ হাজার মানুষকে ট্রলারে করে আনা হয়েছে আশ্রয়কেন্দ্রে।

বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশু, প্রতিবন্ধী এবং বয়স্কদের জন্য আলাদাভাবে কাজ করছে টিম।

ভোলা জেলা প্রশাসক (ডিসি) মাসুদ আলম ছিদ্দিক বাংলানিউজকে বলেন, জেলার ২১টি বিচ্ছিন্ন চরের ৩ লাখ মানুষকে মঙ্গলবার (১৯ মে) সকাল থেকে আশ্রয়কেন্দ্রে আনার কাজ শুরু হয়েছে।রাতভরও নৌযানে করে তাদের আনার কাজ চলবে। আশ্রয় অবস্থানদের জন্য ইফতার, রাতের খাবার এবং সেহরির ব্যবস্থা থাকবে। এছাড়াও ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে নগদ টাকা, শুকনো খাবার ও শিশুখাদ্য বরাদ্দ হয়েছে। বুধবার (২০ মে) সকাল ১০টার মধ্যে সবাইকে আনতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের (ইউএনও) নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।   

বিভিন্ন উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে নৌবাহিনী, নৌপুলিশ, জেলা পুলিশ ও কোস্টগার্ডের সহায়তায় মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্রে আনার কাজ শুরু হয়। নদী ও সাগরের মাছধরা জেলেরা ফিরতে শুরু করেছেন। ঘাটে নোঙর করা হয়েছে শত শত জেলে নৌকা।

জেলায় ৭ নম্বর বিপদ সংকেত থাকায় ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচি (সিপিপি) ও রেড ক্রিসেন্টকর্মীরা ভোলার উপকূলের বাসিন্দাদের নিরাপদ আশ্রয়ে আনতে মাইকিং করছেন।

** ভোলায় ৩ লাখ মানুষকে আশ্রয় কেন্দ্রে আনা হচ্ছে

বাংলাদেশ সময়: ১৭৩০ ঘণ্টা, মে ১৯, ২০২০
এসআরএস

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: ভোলা ঘূর্ণিঝড় আম্পান
Nagad
আজ আবার করোনা টেস্ট, দোয়া চাইলেন মাশরাফি 
দাম্মাম থেকে ফিরলেন ৪১২ বাংলাদেশি
ছোটপর্দায় আজকের খেলা
অবশেষে মাস্ক পরলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প!
সুন্দরবনে নিশি যাপন, শোনা যাবে বাঘের গর্জন!


লেজিসলেটিভ-সংসদ বিভাগের সচিব সস্ত্রীক করোনা আক্রান্ত
ঢাকায় ভারতীয় নতুন হাইকমিশনার হচ্ছেন বিক্রম দোরাইস্বামী
গণভবন থেকে সেনাকুঞ্জ কোথায় নেই তারা
ক্রেতাশূন্য দক্ষিণবঙ্গের সবচেয়ে বড় পশুর হাট ‘সাতমাইল’
মিরপুরে বিকেল হলেই বসে চোরাই মোবাইলের বাজার