ঢাকা, সোমবার, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৩ আগস্ট ২০২০, ১২ জিলহজ ১৪৪১

পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্য

অস্ট্রেলিয়া দাবানল: ৪৬ হাজার কোয়ালার মধ্যে বাঁচলো ৯ হাজার

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০১-১৫ ০৫:৫১:১৯ পিএম
অস্ট্রেলিয়া দাবানল: ৪৬ হাজার কোয়ালার মধ্যে বাঁচলো ৯ হাজার যে প্রাণীগুলোর শরীর খুব বেশি পুড়ে গেছে, সেগুলোকে চেতনানাশক দিয়ে মেরে ফেলা হচ্ছে। ছবি: সংগৃহীত

তিন মাসেরও বেশি সময় ধরে দাবানলে পুড়ছে অস্ট্রেলিয়া। এতে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বন্যপ্রাণীরা। দেশটির পরিবেশবিদদের অনুমান, দাবানলে পুড়ে মারা গেছে প্রায় একশ’ কোটি গৃহপালিত ও বন্যপ্রাণী। প্রতিদিনই আহত প্রাণীদের ভিড় বাড়ছে পশু হাসপাতালে।

সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত প্রাণীদের মধ্যে রয়েছে কোয়ালা। সাউথ অস্ট্রেলিয়া রাজ্যের জরুরি পশু চিকিৎসা ব্যবস্থাপনা দলের প্রধান স্টিভেন সেলউড বলেন, দাবানলের আগে ক্যাঙারু আইল্যান্ডে প্রায় ৪৬ হাজার কোয়ালা বাস করতো।

এখন মাত্র নয় হাজার কোয়ালা বেঁচে আছে, যা খুবই দুঃখজনক।

তিনি বলেন, এখানকার দাবানল অনেক ভয়াবহ ছিল। এতো দ্রুত তা ছড়িয়ে পড়েছে যে অনেক প্রাণী সঙ্গে সঙ্গেই পুড়ে মরে গেছে। তাই অন্য সময় দাবানলে আমরা যতো আহত প্রাণী দেখি, এবার ততো দেখা যায়নি।

উদ্ধার করা হলেও সবাইকে বাঁচানোও সম্ভব হয় না। যে প্রাণীগুলোর শরীর খুব বেশি পুড়ে গেছে, সেগুলোকে চেতনানাশক দিয়ে মেরে ফেলা হচ্ছে।

অস্ট্রেলিয়ান পরিবেশমন্ত্রী সুসান লে বলেন, কয়েক মাসব্যাপী চলমান এ দাবানলে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কোয়ালারা। সম্ভাবনা রয়েছে, প্রথমবারের মতো বিপন্ন প্রাণীদের তালিকায় ওদের নাম উঠবে। এ প্রজাতির ভবিষ্যৎ রক্ষায় বেঁচে থাকা কোয়ালাগুলোর দিকে বিশেষ খেয়াল রাখতে হবে।

ক্যাঙারু আইল্যান্ডের প্রায় অর্ধেকই পুড়ে গেছে দাবানলে। এতে পুড়ে মারা গেছে প্রায় ৮০ শতাংশ কোয়ালা। যতোটা সম্ভব প্রাণীদের উদ্ধার ও চিকিৎসায় কাজ করছেন উদ্ধারকর্মী ও পশু-চিকিৎসকরা। তবে উদ্ধারের পর প্রাণীগুলো কোথায় রাখা হবে তা নিয়ে নতুন উদ্বেগ সৃষ্টি হয়েছে। আগুনে পুড়ে গেছে ওদের বাসস্থান। তাই চিকিৎসার পর আপাতত ওদের খাঁচায় রাখা হচ্ছে।

বাংলাদেশ সময়: ১২৫০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৫, ২০২০
এফএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa