php glass

করমজলে ৩২টি ডিম দিয়েছে ‘বাটাগুর বাসকা’

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

‘বাটাগুর বাসকা’ বায়ে। ডানে ডিমগুলো বালুর নিচে রাখা হচ্ছে। ছবি-বাংলানিউজ

walton

বাগেরহাট: বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের চাঁদপাই রেঞ্জের করমজল বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্রে বিলুপ্ত প্রজাতির কচ্ছপ ‘বাটাগুর বাসকা’ ৩২টি  ডিম পেড়েছে। 

সোমবার (১১ মার্চ) ভোরে করমজল প্রজনন কেন্দ্রে একটি বাটাগুর বাসকা ৩২টি ডিম দেয়। ডিমগুলো প্রাকৃতিক উপায়ে ইনকিউবেশন (বালুর মধ্যে রেখে) করে বাচ্চা ফোটানো হবে। এতে ৬০ থেকে ৬৫ দিন সময় লাগতে পারে বলে জানিয়েছে বনবিভাগ।

** সঙ্গী খুঁজতে গিয়ে বিপাকে ‘বাটাগুর বাসকা’

এ নিয়ে তৃতীয় বারের মতো করমজলে ডিম পাড়লো বিলুপ্ত প্রজাতির কচ্ছপ বাটাগুর বাসকা। এর আগে ২০১৭ সালে দু’টি বাটাগুর ৬৩টি ডিম দেয়, যা থেকে ৫৭টি বাচ্চা হয়। পড়ে ২০১৮ সালে দু’টি কচ্ছপ ৪৬টি ডিম দেয়, তাতে ২৪টি বাচ্চা ফোটে।

সুন্দরবন করমজল কৃত্রিম প্রজনন কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আজাদ কবির বলেন, সকালে একটি কচ্ছপ ৩২টি ডিম দিয়েছে। এর মধ্যে একটি ডিম কিছুটা ফাটা। একসঙ্গে ডিম পাড়ার কারণে একটি ফেটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আমরা সবগুলো ডিমই প্রাকৃতিক উপায়ে ইনকিউবেশন (বালুর মধ্যে রেখে) করে বাচ্চা ফোটানোর চেষ্টা করবো। আশা করি, ৬০ থেকে ৬৫ দিনের মধ্যে সবগুলো ডিম থেকে বাচ্চা বের হবে।

উল্লেখ, ২০০০ সালে বন্যপ্রাণী গবেষকরা মনে করেছিলেন, পৃথিবীতে আর বাটাগুর বাসকার কোনো অস্তিত্ত্ব নেই। পরে ২০০৮ সালে গবেষকরা প্রকৃতিতে বাটাগুর বাসকা আছে কিনা তা খুঁজতে শুরু করেন। খুঁজতে খুঁজতে নোয়াখালী ও বরিশালের বিভিন্ন জলাশয়ে আটটি বাটাগুর বাসকা পান তারা। যার মধ্যে চারটি পুরুষ ও চারটি স্ত্রী। প্রজননের জন্য গাজীপুরে নিয়ে যাওয়া হয় কচ্ছপগুলোকে। বনবিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত লোকেরা নিবিড়ভাবে লালন-পালন ও প্রজননের চেষ্টা করেন বাটাগুর বাসকাগুলোকে। তারপরও তেমন সাফল্য পাওয়া যাচ্ছিল না। কয়েক বছরে গাজীপুরে প্রায় ৯৪টি বাচ্চা দেয় স্ত্রী কচ্ছপগুলো। সেখানে ভালো সাড়া না পাওয়ায় ২০১৪ সালে মূল আটটি বাটাগুর বাসকা ও তাদের থেকে জন্ম নেওয়া ৯৪টি ছানা করমজল কৃত্রিম প্রজনন কেন্দ্রে নিয়ে আসা হয়। চারটি কচ্ছপের ডিমে বাচ্চা ফোটার পরে বর্তমানে এখানে ১৮৩টি কচ্ছপ রয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ২০৫৫ ঘণ্টা, মার্চ ১১, ২০১৯
এসআই

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: বাগেরহাট
ksrm
জবিতে ভর্তি আবেদনের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ
কক্সবাজারে ছাত্রলীগ সভাপতিসহ ৪ জনকে কোপালো সন্ত্রাসীরা
চ্যানেলমুখে নাব্য সংকট, রাতে চলছে মাত্র ৪ ফেরি
ডা. জাফরুল্লাহর বিরুদ্ধে ভাঙচুর-মারধরের অভিযোগে মামলা
মাহিন্দ্রার পেছনে মোটরসাইকেলের ধাক্কা, চালক নিহত


চার্জার মেরামতকালে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে অটোচালকের মৃত্যু
টেকনাফে ওয়ার্ড যুবলীগ সভাপতিকে গুলি করে হত্যা
বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের র‌্যাংকিং উন্নয়নে প্রস্তাব
রপ্তানি বেড়েছে চামড়াজাত পণ্যের, কমেছে চামড়ার
দেশ নিয়ে চাওয়া পাওয়া