ভিটামিন ‘সি’ ভরপুর করমচা

2416 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি : বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
মুখরোচক ফল হিসেবে করমচা বেশ সমাদৃত। এই ফল আমাদের দেশে মোটামুটি সহজলভ্য। বাড়ির আঙিনা কিংবা ছোটখাটো বাগানেও করমচা দেখা যায়। আমাদের প্রাচীন কাব্য-কথায়ও এ গাছের উল্লেখ রয়েছে।

ঢাকা: মুখরোচক ফল হিসেবে করমচা বেশ সমাদৃত। এই ফল আমাদের দেশে মোটামুটি সহজলভ্য। বাড়ির আঙিনা কিংবা ছোটখাটো বাগানেও করমচা দেখা যায়। আমাদের প্রাচীন কাব্য-কথায়ও এ গাছের উল্লেখ রয়েছে। গাছ ও পাতার গড়ন নান্দনিক হওয়ায় কেউ কেউ শুধু সৌন্দর্যের জন্যও এগাছ রোপণ করেন। আর কেউ কেউ রোপণ করেন কেবল ফলের সৌন্দর্য উপভোগ করার জন্য।

টকের পরিমাণ কিছুটা বেশি হওয়ায় অন্য কোনো খাবারের সঙ্গে মিশিয়ে করমচা খেতে হয়। তবে ইদানীং মিষ্টি জাতের করমচাও বাজারে পাওয়া যায়। তবুও তুলনামূলকভাবে দেশি টকজাতের করমচাই বেশি দেখা যায়।

করমচা (Carrisa carandas) শক্ত কাঁটাঅলা ঝোপাল ধরনের চিরসবুজ গাছ। পাতার রং চকচকে সবুজ। গড়নে ডিম্বাকৃতির। ফুলের রং সাদা বা ঈষৎ গোলাপি ধরনের। গুচ্ছবদ্ধ ফুলগুলো দেখতে বেশ আকর্ষণীয়। করমচার সঙ্গে চেরি ফলের কিছুটা মিল রয়েছে। এ কারণেই আমাদের দেশে করমচাকে রং মাখিয়ে চেরি ফল নামে বিক্রি করা হয়।


ফুল ফোটে ফেব্রুয়ারি মাসে আর ফল পাকে জুন-জুলাই মাসে। তবে বছরের অন্য সময়েও ফল পাওয়া যেতে পারে। ফলে খাদ্যাংশের পরিমাণই বেশি, ভেতরে থাকে ৪/৫টি বীজ। মাত্র ১০০ গ্রাম তাজা ফল থেকে ৭ জনের একদিনের ভিটামিন সি’র অভাব পূরণ করা যায়। গ্রামে করমচা দিয়ে ডাল রান্না করার পদ্ধতি বেশ পুরনো। স্বাদের ভিন্নতার কারণে বর্তমানে অনেকেই মিষ্টি জাতের করমচা চাষে উৎসাহী হয়ে উঠেছেন।

ছবিগুলো বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা থেকে তোলা।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৫৪ ঘণ্টা, জুন ২৭, ২০১৪

স্ত্রীর সঙ্গে অভিমান: শ্বশুরবাড়ীতেই স্বামীর আত্মহত্যা
রাজউক আর দুর্নীতি এখন সমার্থক: ইফতেখারুজ্জামান
ভোটগ্রহণের পরিবেশ নিশ্চিত করুন: ইসিকে তাবিথ
সেই নারীর খোঁজে হাসপাতালে স্বামী
প্রচারণার জোয়ার ভোটের বাক্সেও দেখতে চান মেনন


আমার কোনো গ্রুপ নেই, চবি ছাত্রলীগ নিয়ে নওফেল
দারুণ দুর্দশায় মাইলি সাইরাস
মোদী ঢাকায় আসছেন ১৭ মার্চ
ঢাকার ভোট পর্যবেক্ষণে থাকছেন ৬৭ বিদেশি পর্যবেক্ষক
করোনাভাইরাস আতঙ্ক প্রভাব ফেলেছে চীনের ক্রীড়াঙ্গনেও