রম্যলেখক সাজ্জাদ কবীর আর নেই

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

সাজ্জাদ কবীর

walton

ঢাকা: রম্য লেখক সাজ্জাদ কবীর আর নেই (ইন্না লিলাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন)। রোববার (১০ মে) রাজধানীর ল্যাব এইড হাসপাতালে তিনি মারা যান। তিনি দীর্ঘদিন উন্মাদ পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। 

সাজ্জাদ কবীরের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে উন্মাদ পত্রিকার সহযোগী সম্পাদক বিপনু চৌধুরী বাংলানিউজকে বলেন, সাজ্জাদ কবীর দীর্ঘদিন ধরে ক্যান্সারে ভুগছিলেন। সম্প্রতি ভারতে চিকিৎসাও করিয়েছিলেন। তিনি জানান, রাতেই সাজ্জাদ কবীরের মরদেহ নিয়ে যাওয়া হবে যশোরে তার পৈত্রিক ভিটায়। সেখানেই তার দাফন সম্পন্ন হবে।

রম্যলেখক সাজ্জাদ কবীর ১৯৬২ সালের ১২ জুন যশোরে জন্মগ্রহণ করেন। বই পড়ার নেশা থেকেই সাজ্জাদ কবীরের লেখালেখির শুরু। ১৯৮৭ সালে বাংলাদেশ কথাশিল্পী সংসদ আয়োজিত গল্প প্রতিযোগিতায় প্রথম পুরস্কার পাওয়ার মধ্য দিয়ে লেখক হিসেবে তার প্রথম আত্মপ্রকাশ। পত্রিকায় তার প্রথম গল্প বের হয় সাপ্তাহিক চিত্রালীতে। তার পর একে একে প্রকাশিত হয় তার গল্প, প্রবন্ধ, কলাম ও রম্য রচনা। মৌলিক লেখা ছাড়াও অনুবাদ করেছেন বিভিন্ন ধরনের গল্প, উপন্যাস ও প্রবন্ধ। 

পদার্থবিজ্ঞানে লেখাপড়ার শেষ ধাপে এসে তিনি স্নাতকোত্তর করেন বাংলা সাহিত্যে। ভর্তি হয়েছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। যদিও পেশাগত কারণে তা সম্পন্ন করেননি। কর্মজীবনে নানা পদের পেশার সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়েছেন। কখনও সাংবাদিকতা, কখনও বেতারে নাটক, রম্য কথিকা রচনা, কখনও মুদ্রণ ব্যবসা।

দীর্ঘদিন তিনি উন্মাদ পত্রিকার নির্বাহী সম্পাদক ছিলেন। সম্পাদনা করছেন কিশোর বেলা নামের একটি কিশোর পত্রিকার। তার প্রকাশিত গ্রন্থ রয়েছে ২০টি।

বাংলাদেশ সময়: ০৪৩০ ঘণ্টা, মে ১১, ২০২০
ডিএন/টিএম/এসআইএস

দেশকে চরম বিপদের দিকে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে: মির্জা ফখরুল
ট্রেনে ভাড়া বাড়ছে না: রেলমন্ত্রী   
রোববার স্ব স্ব প্রতিষ্ঠান খুলতে প্রস্তুত দোকানিরা
আন্তঃজেলায় বাসের ভাড়া ৮০ শতাংশ বাড়াতে বিআরটিএর সুপারিশ
৩০ ভাগ করোনা রোগীরও চিকিৎসা দিতে পারছে না সরকার: রিজভী


সিরাজগঞ্জে যমুনার স্পার বাঁধে ধস
করোনাযোদ্ধাদের আইসোলেশন সেন্টার সংকট ও করণীয়
করোনাকাল: ভোগান্তিতে নতুন মাত্রা যোগ করবে বাস ভাড়া বৃদ্ধি
অনলাইনে টিকিট কেটে ট্রেন ভ্রমণ করতে হবে: রেলমন্ত্রী
চলে গেলেন সাবেক ফুটবলার হেলাল