অমর একুশে গ্রন্থমেলা

বহুল বিক্রিত বইয়ের কথা

দীপন নন্দী ও হোসাইন মোহাম্মদ সাগর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

শেষদিনে বইমেলায় ছিল উপচে পড়া ভিড়। ছবি: শাকিল আহমেদ

walton

গ্রন্থমেলা প্রাঙ্গণ থেকে: সমাপ্তিরেখা টেনে গেছে অমর একুশে গ্রন্থমেলার। রোববার (১ মার্চ) থেকে আর শোনা যাবে না বইয়ের পাতা উল্টানোর শব্দ। এবারের মেলায় সর্বমোট চার হাজার ৯১৯টি নতুন বই এসেছে। বিপুলসংখ্যক এসব বইয়ের মধ্যে পাঠক সমাদৃত বইয়ের সংখ্যা হাতেগোনা।

শনিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) মেলা প্রাঙ্গণ ঘুরে জানা গেলো, এবারের মেলায় সর্বাধিক বিক্রিত বইয়ের তথ্য। বিভিন্ন প্রকাশনীর সত্বাধিকারী ও বিক্রয় প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলাপ করে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

নিঃসন্দেহে এবারের মেলায় সর্বোচ্চ পাঠকসমাদৃত এবং বহুল বিক্রিত বইয়ের নাম ‘আমার দেখা নয়াচীন’। জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমান রচিত বাংলা একাডেমি প্রকাশিত গ্রন্থটি রয়েছে পাঠক চাহিদার শীর্ষে। ইতোমধ্যে বঙ্গবন্ধুর লেখা তৃতীয় বইটির প্রথম মুদ্রণের ২০ হাজার কপি চলে গেছে বইপ্রেমীদের বাড়িতে। বর্তমানে দ্বিতীয় মুদ্রণের ১০ হাজার কপিও রয়েছে শেষের পথে। এর পাশাপাশি বাংলা একাডেমি প্রকাশিত এম আবদুল আলীম রচিত ‘বঙ্গবন্ধু ও ভাষা আন্দোলন’ গ্রন্থটির প্রথম মুদ্রণ শেষ হয়ে বেরিয়েছে দ্বিতীয় মুদ্রণ।

একক লেখক হিসেবে এবারের মেলায় সবচেয়ে বেশি পাঠক টেনেছেন শিশু সাহিত্যিক মুহম্মদ জাফর ইকবাল। তার বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী ‘প্রজেক্ট আকাশলীন’ এর পঞ্চম সংস্করণ প্রকাশিত হয়েছে। ৩৪ বছরের বিরতি ভেঙে এবার দিব্যপ্রকাশ থেকে প্রকাশিত হয়েছে কবি হেলাল হাফিজের দ্বিতীয় মৌলিক কাব্যগ্রন্থ ‘বেদনাকে বলেছি কেঁদো না’। আনিসুল হকের রাজনৈতিক উপন্যাস ‘এখানে থেমো না’ চলছে বেশ। প্রথমা থেকে প্রকাশিত বইটির ৩ হাজার কপির প্রথম সংস্করণ শেষে এসেছে দ্বিতীয় সংস্করণ। পাঞ্জেরী থেকে আসা ধ্রুব এষের উপন্যাস ‘পরেশের বউ’ নজর কেড়েছে পাঠকের। সেই দুই হাজার কপির প্রথম সংস্করণ শেষে দ্বিতীয় সংস্করণ এসেছে। বাতিঘর থেকে প্রকাশিত মহিউদ্দিন আহমদের লেখা রাজনীতিবিষয়ক বই  ‘বেলা-বেলা : বাংলাদেশ ১৯৭২-১৯৭৫’র  প্রথম মুদ্রণ শেষে বেরিয়েছে গ্রন্থটির দ্বিতীয় সংস্করণ। একই প্রকাশনী থেকে এই লেখকের ‘৩২ নম্বর পাশের বাড়ি’ শীর্ষক স্মৃতিচারণমূলক গ্রন্থটিরও দ্বিতীয় সংস্করণ বেরিয়েছে। প্রকাশনা সংস্থা বায়ান্ন থেকে প্রকাশিত মারজুক রাসেলের ‘দেহবণ্টনবিষয়ক দ্বিপক্ষীয় চুক্তি স্বাক্ষর’ কাব্যগ্রন্থটি পেয়েছে ব্যাপক পাঠকপ্রিয়তা। ইতোমধ্যেই শেষ হয়েছে বইটির একাদশ সংস্করণ।

ভালো বিক্রি হওয়া বইগুলোর মধ্যে আরও রয়েছে সুমন্ত আসলামের ‘প্রধানমন্ত্রী প্রতিদিন চা খেতে আসেন’ (কথাপ্রকাশ), আনা ইসলাম রচিত ‘নভেরা : বিভুঁইয়ে স্বভূমে’ (জার্নিম্যান বুকস), ইমদাদুল হক মিলনের শিশুতোষ গ্রন্থ ‘বাবান ও টুনটুনি পাখি’ (অনন্যা), সাদাত  হোসাইনের  ‘মেঘেদের দিন’ ও ‘মরণোত্তম’ (অন্যপ্রকাশ), একই লেখকের ‘তোমাকে দেখার অসুখ’ (অন্যধারা), আসিফ নজরুলের ‘মানবাধিকার’ (প্রথমা), আয়মান সাদিক ও সাদমান সাদিকের ‘কমিউনিকেশন হ্যাকস’, মোশতাক আহমেদের ‘প্যারাসাইকোলজি জোছনার ছায়া’ (অনিন্দ্য), আফসান চৌধুরী সম্পাদিত গবেষণাগ্রন্থ ‘হিন্দু জনগোষ্ঠীর একাত্তর’ (ইউপিএল), জয়দীপ দের ‘কাসিদ’ (দেশ পাবলিকেশন্স)।

বাংলাদেশ সময়: ২০০০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৯, ২০২০
ডিএন/এইচএমএস/ এইচএডি/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০২০
সোনাইমুড়িতে জ্বর-শ্বাসকষ্টে ইতালি প্রবাসীর মৃত্যু
আদ্-দ্বীন মেডিকেল কলেজে চলছে অনলাইনে ক্লাস-পরীক্ষা
প্রতিনিয়তই লকডাউন হচ্ছে রাজধানীর নতুন এলাকা
রক্তাক্ত ধর্ষিতা শিশুকে থানায় নিয়ে মায়ের আহাজারি
ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ থেকে বিকল্প পথে গ্রামগঞ্জে শতশত মানুষ


যমুনা টিভির এক সাংবাদিক করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত
ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যে ঘরেই শবেবরাতের ইবাদতে রাজধানীবাসী
বাংলাদেশের অস্থায়ী সরকার গঠন
বিএসএমএমইউ’র অধ্যাপক ও মেয়ে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত
করোনা:আইসিইউ থেকে ওয়ার্ডে ফিরলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী জনসন