সৌম্য-ইমরুল বিষয়ে মাশরাফির সঙ্গে আলোচনা হয়নি!

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফি বিন মর্তুজা। ফাইল ফটো

চলতি এশিয়া কাপের প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১৩৭ রানের জয় দিয়ে শুরু করার পর বাংলাদেশ দলকে নিয়ে বিশেষজ্ঞদের আশা ছিল অনেক। কিন্তু এরপরই টানা দুই ম্যাচে বড় ব্যবধানে হার বাংলাদেশের এশিয়া কাপে টিকে থাকা নিয়েই প্রশ্ন তুলেছে। এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতেই হঠাৎ করেই দলে ডাকা হয়েছে সৌম্য সরকার ও ইমরুল কায়েসকে। 

কিন্তু অবাক করা বিষয় হলো তাদের দলে ডাকা নিয়ে কিছুই জানতেন না খোদ অধিনায়ক মাশরাফি, সংবাদ মাধ্যমের সামনে এমনটাই দাবি তার। 

মূলত ক্রমাগত ওপেনারদের ব্যর্থতার কারণেই সৌম্য-ইমরুলকে ডাকা। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে শূন্যরানে ও আফগানদের বিপক্ষে ৬ রানে বিদায় নেওয়া লিটন দাস শনিবার (২১ সেপ্টেম্বর) ভারতের বিপক্ষেও মাত্র ৭ রানে বিদায় নেন। 

অন্যদিকে তামিম ইকবাল না থাকায় দলে সুযোগ পাওয়া নাজমুল হোসেন শান্তও নিজেকে প্রমান করতে ব্যর্থ। আফগানদের বিপক্ষে নিজের অভিষেক ম্যাচে খালি হাতে ফেরত যাওয়া এই ওপেনার ভারতের বিপক্ষে করেন মাত্র ৭ রান।

ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ চলাকালীনই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) আনুষ্ঠানিকভাবে জানিয়ে দেয় সৌম্য-ইমরুলের স্কোয়াডে অন্তর্ভুক্তির সিদ্ধান্তের কথা। আর বোর্ডের এই সিদ্ধান্ত সম্পর্কে মোটেই জানতেন না মাশরাফি, এমনটাই জানান ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে।
সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফি বলেন, ‘ওরা যে আসছে, আমি সিওর না। আমি মাঠে ছিলাম। তাই পুরোপুরি ক্লিয়ার না। আমার সঙ্গে আলোচনা হয়নি।’

গেলো অক্টোবরে সর্বশেষ ওয়ানডে খেলেন সৌম্য-ইমরুল। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডেতে ইনিংসের মাঠে নামেন তারা। কিন্তু ব্যর্থতা নিয়েই মাঠ ছাড়েন। সে ম্যাচে ইমরুল এক ও সৌম্য ৮ রান করেন। ছিটকে যান দলের বাইরে।

মাঝে সৌম্য আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে রান পেলেও ওয়ানডে দলে ফেরার মতো কিছু করেননি। ইমরুলের নেই তেমনও কোনো পারফরম্যান্স। তবু এশিয়া কাপের মতো আসরে হঠাৎ করেই ডাক পাওয়া। সংশয়ে আছেন খোদ অধিনায়ক।

বলেন, ‘ওরাও কিন্তু এমন পারফর্ম না করেই দল থেকে বের হয়েছে। আবার এসে এই ধরনের টুর্নামেন্টে এত চাপ নিয়ে, আমি জানি না ওরা টেকনিক্যালি কী কাজ করেছে। যে সমস্যার কারণে দলের বাইরে গিয়েছিল, সেগুলো ঠিক করে আসছে কি না। এটা কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষ করে আফগানিস্তানের ম্যাচ যদি চিন্তা করেন, আমার মনে হয় তাদের (সৌম্য ও ইমরুল) আরও কঠিন বোলার মোকাবিলা করতে হবে।’
বাংলাদেশ অধিনায়কের মতে, বর্তমান পরিস্থিতিতে দলে যারা আছেন তাদের জন্য কাজটা সহজ হচ্ছে না, যারা আসবেন তাদের জন্য আরও কঠিন হবে। এ প্রসঙ্গে অধিনায়ক বলেন, ‘এটা নিশ্চিত যে কারো জন্যই এটা সহজ হবে না। যারা আছে তাদের জন্যও সহজ হচ্ছে না। যারা আসবে তাদের জন্যও সহজ হবে না। এর ভেতরেই রান করতে হবে। এর ভেতরে ব্যাটিং-বোলিং ভালো করে করতে হবে। যেটা আগে-পরে এভাবে আমরা ফিরে এসেছি। কাজেই অসম্ভব কিছুই না। যে খেলুক, দায়িত্ব তো নিতেই হবে।’

বিসিবি হাইপারফরম্যান্স (এইচপি) ইউনিটের অধীনে সৌম্য-ইমরুল দুজনই চার দিনের ম্যাচ খেলছিলেন খুলনায়। সে ম্যাচ ছেড়ে শনিবার (২১ সেপ্টেম্বর) ভোরে খুলনা থেকে ঢাকায় ফিরে সন্ধ্যা ৭টা ৪০ মিনিটে দুবাইয়ের বিমান ধরেন।

বাংলাদেশ সময়: ০৯৫৫ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৮
এমকেএম

রোনালদোর ৪০০ গোলের মাইলফলকেও জয়বঞ্চিত জুভেন্টাস
ব্যারিস্টার মঈনুল হোসেনকে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান
৭ প্রকল্পে মিলেছে সৌদি ঋণ, পাইপ লাইনে ৪ প্রকল্প
আলফ্রেড নোবেলের জন্ম
ইতিহাসের এই দিনে

আলফ্রেড নোবেলের জন্ম

শেষ মুহূর্তে ম্যানইউ’র হোঁচট, কোচের ধ্বস্তাধস্তি 
হেড-নেক ক্যান্সার প্রতিরোধে তামাক দ্রব্য পরিহার
গণতন্ত্র রক্ষায় সবকিছু করতে প্রস্তুত আ.লীগ
রাবিতে মাথাচাড়া দিয়েছে ভর্তি জালিয়াত চক্র
দুর্বল বার্নলিকে উড়িয়ে দিয়ে শীর্ষে গার্দিওলার সিটি
রহস্য দ্বীপ (পর্ব-৯৩)