ঢাকা, শুক্রবার, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৪ আগস্ট ২০২০, ২৩ জিলহজ ১৪৪১

জাতীয়

সৌদি আরবে বিমানকে জরিমানা ‘২০১৭ সালের ঘটনায়’

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৫৬ ঘণ্টা, জুলাই ১৫, ২০২০
সৌদি আরবে বিমানকে জরিমানা ‘২০১৭ সালের ঘটনায়’

ঢাকা: সৌদি আরবে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সকে ২০১৭ সালের এক ঘটনায় জরিমানা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়।

বুধবার (১৫ জুলাই) মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত কয়েক দিন ধরে ‘বিমান-কে এক কোটি টাকা জরিমানা করেছে সৌদি আরব’ শিরোনামে বিভিন্ন পত্রপত্রিকা ও অনলাইন নিউজ পোর্টালে সংবাদ পরিবেশিত হচ্ছে। মূলত যে ঘটনার জন্য বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সকে জরিমানা করা হয় তা ২০১৭ সাল ও তার নিকটবর্তী সময়ের ঘটনা।

যে বা যাদের দায়িত্ব ও কর্তব্যে অবহেলার কারণে এই জরিমানার টাকা পরিশোধ করতে হয়, তাদের চিহ্নিত করে বিভাগীয় ব্যবস্থা নিতে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।  

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সৌদি আরবের জেদ্দা হেলথ ডিপার্টমেন্টের নিয়ম অনুযায়ী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ঢাকা-জেদ্দা-ঢাকা রুটে পরিচালিত ফ্লাইটে ‘ওয়ান শট স্প্রে’ নামক একটি জীবাণুনাশক ব্যবহার করতে হয়। নিয়ম অনুযায়ী জীবাণুনাশক দেওয়ার পর তার খালি টিউব জেদ্দা হেলথ ডিপার্টমেন্টের কাছে পরিদর্শনের জন্য উপস্থাপন করার কথা। কিন্তু সেই সময় বিমানের ওই ফ্লাইটে কর্মরত কারো কারো অবহেলার দরুণ তা যথাযথভাবে ও নির্দিষ্ট সংখ্যায় উপস্থাপন না করার কারণে সৌদি আরব কর্তৃপক্ষ ২০১৭ সালের মার্চ ও তার নিকটবর্তী সময়ে এ রকম বেশ কয়েকটি ঘটনায় ওই জরিমানা করে। সে জরিমানার টাকা ওই সময়ই পরিশোধ করা হয়। কিন্তু সে সময় তা তদন্ত কার্যক্রমের বাইরে রয়ে গিয়েছিল।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বর্তমান ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ দায়িত্ব নেওয়ার পর বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স থেকে বিদ্যমান সব অনিয়ম দূর করতে আন্তরিক প্রচেষ্টা নিয়েছে। তারই অংশ হিসেবে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সে কর্মরত কারও অবহেলার কারণে ভবিষ্যতে রাষ্ট্রীয় অর্থ ও দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণকারী এ ধরনের কর্মকাণ্ড রোধ করতেই এই তদন্ত আবশ্যক। এছাড়াও পূর্বের বা বর্তমানের যে কোনো অনিয়ম পাওয়া গেলে বিমান কর্তৃপক্ষ তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণ করছে। বিমান কর্তৃপক্ষ বিশ্বাস করে, রাষ্ট্রীয় ভাবমূর্তি ও প্রতিষ্ঠানের সুনাম ক্ষুণ্ণ হয় এ রকম কাজের জন্য প্রকৃত দোষী ব্যক্তিদের শনাক্ত করে শাস্তির মুখোমুখি করলে ভবিষ্যতে এ ধরনের কর্মকাণ্ড রোধ করা সম্ভব হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫৬ ঘণ্টা, জুলাই ১৫, ২০২০
এমআইএইচ/টিএম/এইচজে 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

জাতীয় এর সর্বশেষ

Alexa