ঢাকা, বুধবার, ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৫ আগস্ট ২০২০, ১৪ জিলহজ ১৪৪১

জাতীয়

নীলফামারীতে তিস্তার পানি বিপৎসীমার ৩৫ সেন্টিমিটার উপরে

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৭-১১ ১০:৪৯:৪১ এএম
নীলফামারীতে তিস্তার পানি বিপৎসীমার ৩৫ সেন্টিমিটার উপরে

নীলফামারী: ভারী বৃষ্টি আর উজানের ঢলে ফের গর্জে উঠেছে তিস্তা। শনিবার (১০) সকালে নীলফামারীর ডালিয়া পয়েন্ট দিয়ে তিস্তার পানি বিপৎসীমার ৩৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

তিস্তা ব্যারাজের উপ-সহকারী (পানি পরিমাপক) প্রকৌশলী আমিনুর রশিদ বাংলানিউজকে এ তথ্য জানান।  

তিনি জানান, ভারী বৃষ্টিপাত ও উজানের পাহাড়ি ঢলে শুক্রবার (১০ জুলাই) রাত ৯টা থেকে ডালিয়া পয়েন্টে পানি বিপৎসীমার ৩৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

বানের পানির এমন উঠা-নামায় তিস্তা পাড়ের চরাঞ্চলের মানুষ আতঙ্কে রয়েছে।

উপজেলার টেপাখড়িবাড়ী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ময়নুল হক বাংলানিউজকে জানান, তিস্তার পানি উঠা-নামায় কিসামত ছাতনাই ও ঝুনাগাছ চাপানি ইউনিয়নের ছাতুনামা, ভেণ্ডাবাড়ী ও ফরেস্টের চড়ের আশপাশ এলাকায় ব্যাপক ভাঙন দেখা দিয়েছে। এতে ক্ষতির মুখে পড়েছে এলাকার ১০ হাজার পরিবার। তিস্তা অববাহিকায় চর বেষ্টিত নিম্নাঞ্চলগুলোতে বন্যা দেখা দিয়েছে।  

পূর্ব ছাতনাই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফ খান বাংলানিউজকে জানান, খগাখড়িবাড়ী, টেপাখড়িবাড়ী, খালিশা চাপানী, ঝুনাগাছ চাপানী ইউনিয়নের ১৫টি চর ও চর গ্রাম বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে। ওই সব এলাকার বসবাসকারীরা পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন।  

এদিকে, জেলার জলঢাকা উপজেলার শৌলমারী বানপাড়ায় ডানতীর গ্রাম রক্ষা বাঁধে ভাঙন দেখা দিয়েছে। ওই এলাকার বাসিন্দা আশরাফ আলী জানান, পরিবার-পরিজন নিয়ে খুবই আতঙ্কে আছেন। এই বাঁধ ভেঙে শুধু বানপাড়ায় নয়, ডাউয়াবাড়ি, শৌলমারী ও কৈমারী ইউনিয়নের ২০ হাজারেরও বেশি পরিবারের ঘরবাড়ি তিস্তার পানিতে তলিয়ে যাবে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) ডালিয়ার নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম বাংলানিউজকে জানান, ভারী বৃষ্টি আর উজানে ঢলের কারণে শুক্রবার (১০ জুলাই) রাত ৯টা থেকে শুরু হয়ে শনিবার সকালেও ডালিয়া পয়েন্টে পানি ৩৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। যা কিনা শুক্রবার সকালেও এই পয়েন্টে বিপৎসীমার ১২ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে পানি প্রবাহিত হয়েছে। তবে দুপুরের পর থেকে পানি বেড়ে বিকেলে ১৫ সেন্টিমিটার ও সন্ধ্যা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত বিপৎসীমার ২৮ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়। তবে বন্যার পানি সামাল দিতে তিস্তা ব্যারাজের ৪৪টি জলকপাট খুলে রাখা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১০৪৮ ঘণ্টা, জুলাই ১১, ২০২০
এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

জাতীয় এর সর্বশেষ

Alexa