ঢাকা, শুক্রবার, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৪ আগস্ট ২০২০, ২৩ জিলহজ ১৪৪১

জাতীয়

শ্রমিক নেতা হত্যার প্রতিবাদে সিলেট রাতভর মিছিল

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৬৪৩ ঘণ্টা, জুলাই ১১, ২০২০
শ্রমিক নেতা হত্যার প্রতিবাদে সিলেট রাতভর মিছিল

সিলেট: আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সিলেট জেলা ট্যাংকলরি শ্রমিক ইউনিয়নের সেক্রেটারি ইকবাল হোসেন রিপনকে (৪০) কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় উত্তাল সিলেট। এ ঘটনার প্রতিবাদ জানাতে রাস্তায় নেমে এসেছেন ট্যাংকলরি শ্রমিকরা।

শুক্রবার (১০ জুলাই) রাত সাড়ে ১০টার দিকে সিলেটের দক্ষিণ সুরমার বাবনা পয়েন্টে এ ঘটনা ঘটে। এরপর রাত সাড়ে ১১টা থেকে সিলেটের প্রবেশদ্বার চন্ডিপুল এলাকায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করে রেখেছেন শ্রমিকরা।

এসময় রাস্তার মাঝখানে ট্যাংকলরি এলোপাতাড়ি রেখে লাঠি হাতে বিক্ষোভ করেন তারা। এতে সিলেট-ঢাকা মহাসড়কে দীর্ঘ যানজট সৃষ্টি হয়।

শ্রমিকরা দাবি করেন, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ইকবাল হোসেন রিপনকে কুপিয়ে হত্যা করেছে। এর নেপথ্যে রেলওয়ে আইডব্লিউ শাখা এবং দুই মাস আগে বাবনা পয়েন্ট সংলগ্ন এলাকায় রোকেয়া এন্টারপ্রাইজ নামক একটি দোকানে চাঁদাবাজির ঘটনার প্রতিবাদ করায় রিপনকে হত্যা করা হয়েছে। তারা আরও বলেন, এ দু’টি ঘটনায় একই সুতোয় গাঁথা।

সিলেট বিভাগীয় ট্যাংকলরি শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মনির উদ্দিন বলেন, প্রায় দুই মাস আগে বাবনা পয়েন্ট সংলগ্ন এলাকায় রোকেয়া এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী ইউনুছ মিয়ার কাছে প্রকাশ্যে চাঁদা দাবি করে স্থানীয় সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনার প্রতিবাদ করেছিলেন রিপন। বিষয়টি নিয়ে দক্ষিণ সুরমা থানায় গেলেও প্রশাসন কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। এরপর সপ্তাহখানেক আগে সিলেট রেলওয়ে আইডব্লিউ শাখার কর্তারা ট্যাংকলরির কাছে মোটা অংকের টাকা দাবি করেন। এ ঘটনারও প্রতিবাদ করায় শ্রমিকদের ওপর হামলা করে। উপরন্তু তাদের শ্রমিকদের বিরুদ্ধে দক্ষিণ সুরমা ও সিলেট রেলওয়ে জিআরপি থানায় পৃথক মামলা করা হয়।

তিনি বলেন, আমরা মামলা করতে গেলে সিলেটের দক্ষিণ সুরমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খায়রুল ফজল ও সেকেণ্ড অফিসার রিপন দাস বলেন, সরকারি লোকের বিরুদ্ধে মামলা করা যায় না। এছাড়া দক্ষিণ সুরমা ফাঁড়ির ইনচার্জও ঘটনার বিষয়বস্তু জানার পরও ব্যবস্থা নেননি।

তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, ওনারা সরকারি লোক, আর আমরা কি আফগানিস্তান থেকে এসেছি? পুলিশ প্রশাসনের আস্কারা পেয়েই আইডব্লিউ’র কর্তারা টাকার বিনিময়ে ট্যাংকলরি শ্রমিক নেতা রিপনকে হত্যা করিয়েছে। শনিবারের মধ্যে হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও ওসি খায়রুলসহ তিন পুলিশ কর্মকর্তাকে প্রত্যাহার না করলে রোববার থেকে সারা দেশে ট্যাংকলরি ধর্মঘটের ডাক দেওয়া হবে।

সিলেট বিভাগীয় ট্যাংকলরি শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আমির হোসেন বলেন, রেলওয়ে আইডব্লিউর লোকজন এ হত্যার ঘটনায় জড়িত। শনিবারের মধ্যে তাদের গ্রেফতার করা না হলে রোববার থেকে সারা দেশে ট্যাংকলরি ও পেট্টোল পাম্পগুলো বন্ধ করে দেওয়া হবে। এছাড়া সারাদেশে ১১টি ট্যাংকলরি ইউনিয়ন মিলে ফেডারেশন দেশব্যাপী কর্মসূচি পালন করবে। এরই মধ্যে অনেক জায়গায় হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ শুরু হয়ে গেছে।

এদিকে, সিলেট জেলা বাস মিনিবাস কোচ মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রুনু আহমেদ হত্যার প্রতিবাদে ট্যাংকলরি শ্রমিকদের করা আন্দোলনে সমর্থন দিয়ে বলেন, রিপনের হত্যাকারীদের গ্রেফতার দাবিতে করা সব আন্দোলনে তিনি ও তার শ্রমিকরা একাত্বতা প্রকাশ করবে।

শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে সিলেটের দক্ষিণ সুরমার বাবনা এলাকা ইকবাল হোসেন রিপনকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। নিহত রিপন খোজারখলা এলাকার আবুল হোসেনের ছেলে। দুর্বৃত্তদের হামলায় বাবলা তালুকদার নামে আরেকজন আহত হয়েছেন।

বাংলাদেশ সময়: ০৬৩০ ঘণ্টা, জুলাই ১১, ২০২০
এনইউ/ওএইচ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

জাতীয় এর সর্বশেষ

Alexa