চাঁদপুরে করোনায় আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে ৫ জনের মৃত্যু

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল। ছবি: বাংলানিউজ

walton

চাঁদপুর: চাঁদপুরে করোনায় আক্রান্ত হয়ে একজন ও উপসর্গ নিয়ে চার জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে তিন জন পুরুষ ও দুই জন নারী।  

বৃহস্পতিবার (২৮ মে) ভোর থেকে শুক্রবার (২৯ মে) দিনগত রাত পৌঁনে ৩টার মধ্যে এই ৫ জনের মৃত্যু হয়।

আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে মৃত ব্যক্তিদের স্বজন এবং সংশ্লিষ্ট হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার মধ্য রাতে করোনা উপসর্গ নিয়ে চাঁদপুর শহরের ট্রাকরোডে রোজ গার্ডেন নামে একটি ভবনে ছকিনা বেগম (৮০) নামে এক নারীর মৃত্যু হয়। 

শুক্রবার (২৯ মে) দুপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উপস্থিতিতে স্বাস্থ্য বিধি মেনে তার দাফন সম্পন্ন হয়।

শুক্রবার সকাল ১১টায় শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কের আমজাদ খান বাড়ীতে করোনা উপসর্গ নিয়ে মহরম খানের স্ত্রী সাহিদা বেগম (৪৫) মৃত্যুবরণ করেন। বিকেলে তার করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহের পর পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

জেলার মতলব উত্তর উপজেলার মোসলেম বেপারী (৬৫) করোনায় আক্রান্ত হয়ে ঢাকা থেকে ফরাজিকান্দি গ্রামে নিজ বাড়িতে আসেন। হোম আইসোলেশনে থাকা অবস্থায় তার অবস্থার অবনতি হলে অ্যাম্বুলেন্সে করে মতলব থেকে ঢাকায় চিকিৎসার জন্য নেওয়ার পথে শুক্রবার বিকেল ৩টার দিকে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টায় শহরের ট্রাক রোড কাজী অফিস সংলগ্ন ৪ তলা ভবনে মো. আবুল খায়ের মিজি (৫২) করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যান। তিনি সদর উপজেলার মৈশাদী ইউনিয়নের মৈশাদী গ্রামের মো. শহীদ উল্লাহ মিজির ছেলে। তিনি গত ৪দিন জ্বর, সর্দি ও কাশি নিয়ে ভুগছিলেন। 

শনিবার (৩০ মে) সকাল ৯টায় উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ করোনার নমুনা সংগ্রহের পর দুপুর ১২টায় নিজ বাড়িতে নামাজে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তার দাফন করা হয়।

সর্বশেষ শুক্রবার দিনগত রাত পৌনে ৩টার দিকে করোনা উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন ফরিদগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আবুল হাসনাত খান (৫৫)। 

রাত ১২টার দিকে নিজ বাসায় তার শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে সদর হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। শনিবার (৩০ মে) সকাল ১০টার দিকে তার করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করেন স্বাস্থ্য বিভাগ। পরে নামাজে জানাজা ও দাফনের জন্য দুপুর ১২টার দিকে তার নিজ বাড়ি উপজেলার দক্ষিণ রাজাপুর গ্রামে নিয়ে যাওয়া হয়।

চাঁদপুরের সিভিল সার্জন ডা. মো. সাখাওয়াত উল্লাহ বাংলানিউজকে বলেন, কোনো ধরনের মৃত্যুই আমাদের কাম্য নয়। কোনো ব্যক্তির করোনা উপসর্গ দেখা দিলে চিকিৎসা না নিয়ে যদি তিনি বাড়িতেই থাকেন, সেটা খুবই দুঃখজনক। কারণ আমরা তাদের চিকিৎসা দেওয়ার সুযোগও পাচ্ছি না। তারা শেষ মুহূর্তে হাসপাতালে এসে মৃত্যুবরণ করছেন। এই ক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া খুবই জরুরি।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৩০ ঘণ্টা, মে ৩০, ২০২০
আরএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: চাঁদপুর
Nagad
সাংবাদিক লাবলুকে হারানোর এক বছর
সিলেটে দুই চিকিৎসকসহ করোনায় আক্রান্ত আরো ৭৪ জন
রাজধানীতে মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে যুবক নিহত
দুই বন্ধুকে পোড়াচ্ছে এন্ড্রু কিশোরের ফেলে যাওয়া স্মৃতি
ঈদুল আজহাকে কেন্দ্র করে সক্রিয় জালনোট প্রতারক চক্র


সিঙ্গাপুর থেকে ফিরলেন আটকে পড়া ১৬২ বাংলাদেশি
 হেফাজতের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র বরদাশত করা হবে না: আল্লামা শফী
জার্মান বিনিয়োগকারীদের গুরুত্বপূর্ণ গন্তব্য হবে বাংলাদেশ
স্বাস্থ্যসুরক্ষায় ডিআরইউর নতুন সংযোজন অক্সিজেন কনসেনট্রেটর
নোয়াখালীতে করোনায় আরো একজনের মৃত্যু, মোট ৫৩