দেশে বাড়ছে মেধাস্বত্ব সংরক্ষণ প্রবণতা

ফিচার রিপোর্টার | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

কপিরাইট অফিস

walton

ঢাকা: সৃজনশীল ব্যক্তি তার মেধা প্রয়োগ করে যা কিছু সৃজন করেন তাই মেধাসম্পদ। আর এই মেধাসম্পদের যথাযথ যত্ন করা বা মালিকানা নিবন্ধনের লক্ষ্যে দীর্ঘদিন থেকে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে কপিরাইট অফিস।

রাজধানীর আগারগাঁওয়ে অবস্থিত সরকারি প্রতিষ্ঠানটি ব্যক্তির সাহিত্যকর্ম, নাট্যচর্চা, সংগীতচর্চা, রেকর্ড, শিল্পকর্ম, চলচ্চিত্র বিষয়ককর্ম, বেতার সম্প্রচার, টেলিভিশন সম্প্রচার, কম্পিউটার-সফটওয়্যারকর্মসহ বিবিধ মেধাস্বত্ব নিবন্ধন করে।

কপিরাইট অফিস সূত্রে জানা যায়, বর্তমানে মেধাস্বত্ব সংরক্ষণে গুরুত্ব দিচ্ছেন সৃজনশীল ও সচেতন ব্যক্তিরা। নিজের মেধা নিজের হিসেবে একটি প্রমাণপত্র রাখতেই দিন দিন মেধাস্বত্ব সংরক্ষণের তাগিদ বাড়ছে বলেই অনুমেয়।

প্রমাণ হিসেবে বলা যায়, ২০১৮ সালে মেধাস্বত্ব সংরক্ষণের জন্য আবেদন দাখিল হয় এক হাজার ৭৯৫ টি। ২০১৯ সালে তা গিয়ে দাঁড়ায় তিন হাজার ২০৫ টিতে। চলতি বছরের মার্চের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত মেধাস্বত্ব সংরক্ষণের জন্য আবেদন দাখিল হয়েছে প্রায় এক হাজার ২০০টি। 

সব মিলিয়ে মেধাস্বত্ব সংরক্ষণে গুরুত্ব দিন দিন বাড়ছে বলেই জানান এই অফিসের কর্মকর্তারা।

শুধু মেধাস্বত্ব সংরক্ষণ নয়, বরং একই সঙ্গে আপিল মামলা নিষ্পত্তিতে কপিরাইট বোর্ডকে সহায়তা, পাইরেসি বন্ধকরণে টাস্কফোর্স অভিযান পরিচালনা ও ওয়ার্ল্ড ইন্টেলেকচুয়াল প্রোপার্টি অর্গানাইজেশনের (ডাব্লিউআইপিও)ফোকাল পয়েন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালনের মধ্য দিয়ে কাজ করে যাচ্ছে এ প্রতিষ্ঠানটি।

অফিস সূত্র জানায়, এসব কাজের মধ্য দিয়ে সম্প্রতি শিরোনামহীন, ওয়ারফেইজ, টিটুর ‘আমিতো ভালা না’সহ বিভিন্ন অভিযোগের নিষ্পত্তিও করেছে এই প্রতিষ্ঠানটি। 

কপিরাইট অফিসের একাধিক কর্মকর্তা জানান, অন্যের তৈরি কোনো কিছু কপি বা চুরি করে নিজের নামে চালিয়ে দেওয়া পাইরেসি। আর বাংলাদেশে এই পাইরেসি একটা বড় সমস্যা। পাইরেসি বন্ধ করার জন্য সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের একটি টাস্কফোর্স গঠন করা আছে, যা পরিচালত হয় কপিরাইট অফিসের মাধ্যমে। টাস্কফোর্সের আহ্বায়ক বরাবর কোনো ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তি আবেদন জানালে সংশ্লিষ্ট সব পক্ষের সঙ্গে সমন্বয় করে টাস্কফোর্স অভিযান পরিচলনা করে।

সব মিলিয়ে কপিরাইট নিবন্ধন করা হলে সৃষ্টিকর্মের নৈতিক ও আর্থিক অধিকার অর্থাৎ, মালিকানা সংরক্ষণ সহজ হয়। এছাড়া কপিরাইট নিবন্ধন আইনানুযায়ী বাধ্যতামূলক না হলেও, সৃষ্টিকর্মের মালিকানা নিয়ে আইনগত জটিলতা দেখা দিলে ‘কপিরাইট নিবন্ধন সনদ’ প্রমাণপত্র হিসেবে আদালতে ব্যবহৃত হতে পারে বলেও এসময় জানান তারা।

বাংলাদেশ সময়: ২১১২ ঘণ্টা, এপ্রিল ০৬, ২০২০
এইচএমএস/এএ

করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন কিনা জানা যাবে গণস্বাস্থ্যের কিটে
নারায়ণগঞ্জে মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে বাবা গ্রেফতার
নরসিংদীতে নতুন ৪৩ জনের করোনা শনাক্ত, আক্রান্ত বেড়ে ৬৮৪
অণু মোস্তাফিজের সংগীতায়োজনে গাইলেন রথীন্দ্রনাথ রায়
স্বাস্থ্যখাতে দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযানের প্রস্তুতি দুদকের


২১ জুন বলয়গ্রাস সূর্যগ্রহণ
নলডাঙ্গায় সড়ক দুর্ঘটনায় স্বামী নিহত-স্ত্রী আহত
বান্দরবানে জগন্নাথ দেবের স্নানযাত্রা অনুষ্ঠিত
হাসপাতালে করোনা রোগীদের ভোগান্তি বন্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে
খাদ্যের খোঁজে দল বেঁধে ঘুরছে হনুমান, কামড়ালো ১২ জনকে