কিছু বন্দির মুক্তি বিষয়ে মন্ত্রণালয়ে কারা অধিদপ্তরের চিঠি

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়

walton

ঢাকা: করোনা ভাইরাস সংক্রমণ মোকাবিলার অংশ হিসেবে কারাবিধির ৫৬৯ ধারা অনুযায়ী কিছু বন্দিকে জামিনে মুক্তি দেওয়া যায় কি-না, এ সংক্রান্ত একটি চিঠি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে কারা অধিদপ্তর।

বুধবার (০১ এপ্রিল) বিকেলে আইজি প্রিজন্স ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোস্তফা কামাল পাশা বাংলানিউজকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, অনেক সাজাপ্রাপ্ত বন্দি আছে, যারা ২০ বা ১০ বছর ধরে সাজা খাটছে। তাদের পরিপূর্ণ সাজা শেষ হতে আর দুই মাস বা তিন মাস বাকি আছে। কারাগারের ভেতরে তারা ভালো কাজ করছে। তাদের দুই তিন মাস হাতে রেখে মুক্ত করা যায় কি-না, এই বিষয়ক একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে মন্ত্রণালয়ে।

‘ভালো কাজ বা ব্যবহার করে থাকলে সরকার বন্দিদের দুই মাস এক মাস হাতে রেখে মুক্তি দিয়ে থাকে। সারাদেশে ৬৮টি কারাগারে এ রকম ১৪০০ সাজাপ্রাপ্ত আসামি আছেন। যাদের সাজার মেয়াদ শেষ হতে দুই এক মাস বাকি আছে। তারাসহ ৫৬৯ ধারায় আরও কিছু বন্দিকে (সাধারণ বন্দি) মুক্তি দেওয়া যায় কি-না এ বিষয়েই মূলত চিঠি হয়েছে। তবে বন্দিদের কোনো সংখ্যার কথা তিনি বলেননি।

এদিকে, ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার মাহবুবুর ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, কিছুদিন আগে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে ১১৪৮ জন সাধারণ বন্দির নাম উল্লেখ করে একটি চিঠি দেওয়া হয়েছে কারা অধিদপ্তরে। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ঠেকানোর ব্যবস্থা হিসেবে তাদের মুক্তি দেওয়া যায় কি-না, এ বিষয়ে কারা অধিদপ্তরকে চিঠিটি দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ২০১০ ঘণ্টা, এপ্রির ০১, ২০২০
এজেডএস/টিএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: করোনা ভাইরাস
করোনার কারণে সংকুচিত হচ্ছে কর্মসংস্থান
ফ্লয়েড করোনা আক্রান্ত ছিলেন
কুড়িগ্রামে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে তরুণীর মৃত্যু
ইন্দুরকানীতে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১০
আশুলিয়ায় বাসচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত


রণবীরের ‘৮৩’ নিয়ে দীপিকার বিড়ম্বনা
করোনায় ২৪ ঘণ্টায় ৩৫ মৃত্যু, শনাক্ত ২৪২৩ জন
ভালুকায় এনআরবিসি ব্যাংকের উপশাখার কার্যক্রম শুরু
ভারতে করোনায় মৃত্যুহারে শীর্ষে মোদীর রাজ্য
মানুষকে সুরক্ষিত করতে প্রাণপণে চেষ্টা করছি: প্রধানমন্ত্রী