php glass

গণহত্যা বিষয়ক সম্মেলনে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রীর স্মৃতিচারণ

ইউনিভার্সিটি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

বক্তব্য রাখছেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম থালিদ।

walton

ঢাকা: বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তী ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীকে সামনে রেখে বাংলা একাডেমিতে শুরু হয়েছে দুই দিনব্যাপী ১৯৭১-এর গণহত্যা আন্তর্জাতিক সম্মেলন। অনুষ্ঠানে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ গণহত্যা নিয়ে স্মৃতিচারণ করেছেন।

শুক্রবার (২২ নভেম্বর) বেলা সোয়া ১১টায় একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্য বিশারদ মিলনায়তনে প্রধান অতিথি হিসেবে এ সম্মেলনের উদ্বোধন করেন তিনি।

সম্মেলনে ১৯৭১: গণহত্যা-নির্যাতন আর্কাইভ ও জাদুঘর ট্রাস্টের সভাপতি মুনতাসীর মামুনের সভাপতিত্বে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ভারতের সাংবাদিক ও লেখক হিরন্ময় কার্লেকার ও স্বাগত বক্তব্য রাখেন আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক হাশেম খান।

সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম থালিদ বলেন, একাত্তরে খুব কাছ থেকে গণহত্যা দেখেছি। আমার নির্বাচনী এলাকায় একটি মাত্র উপজেলার ২০ কিলোমিটারের মধ্যে ১৭টি বধ্যভূমি রয়েছে। একটি বধ্যভূমিতে ১৬৫ জনকে হত্যা করা হয়েছে, যাদের নাম ঠিকানা আমাদের কাছে রয়েছে। ব্রহ্মপুত্র নদের সুন্দরী ডোবায় শত শত মৃতদেহ আটকে থাকতো। ময়মনসিংহের ডাকবাংলোয় এম এ হান্নানের নেতৃত্বে গণহত্যা চালানো হয়েছে।

এসময় প্রতিমন্ত্রী নিজের ও তার পরিবারের একাত্তরের গণহত্যার দুঃসহ স্মৃতি বয়ে বেড়ানোর কথা বর্ণনা করেন। 

বাংলাদেশ সময়: ১৩৫৭ ঘণ্টা নভেম্বর ২২, ২০১৯
এসকেবি/এফএম

লালমনিরহাট মুক্ত দিবস পালিত
বই উৎসবে বরিশালে সোয়া ২ কোটি নতুন বই
লালমনিরহাটে হানাদারমুক্ত দিবস পালিত
ফাইনালে উড়ন্ত বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা
বরখাস্ত হলেন ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকার প্রধান নির্বাহী


হাটহাজারীতে জোড় ইজতেমা শুরু
‘যুদ্ধে হিট অ্যান্ড রানে বিশ্বাসী ছিলাম’
ভারতে সেনা ক্যাম্প থেকে রাইফেল-গুলি চুরি, জরুরি সতর্কতা
মূল্য নিয়ন্ত্রণে ভারতের বাজার আগাম পর্যবেক্ষণ জরুরি
শিক্ষাঙ্গনে নৈরাজ্যের জন্য অসুস্থ রাজনীতি দায়ী