জাতীয় পুরস্কারের অর্থের পরিমাণ বাড়লো

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

...

walton

ঢাকা: রাষ্ট্রীয় বা জাতীয় পুরস্কারের অর্থের পরিমাণ বৃদ্ধি করে সংশোধিত ‘জাতীয় পুরস্কার/পদক সংক্রান্ত নির্দেশাবলী’ প্রকাশ করেছে সরকার।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ বৃহস্পতিবার (২১ নভেম্বর) এ সংক্রান্ত নির্দেশাবলী প্রকাশ করেছে।

এর আগে ২০১৭ সালের ১৫ মে জাতীয় পুরস্কার/পদক সংক্রান্ত নির্দেশাবলী সংশোধন করে অর্থের পরিমাণ বাড়ানো হয়েছিল।

বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য বর্তমানে স্বাধীনতা পুরস্কার, একুশে পদক, বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পুরস্কার, বেগম রোকেয়া পদক, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ও জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার প্রদান করে সরকার।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ প্রদত্ত বেসামরিক সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় পুরস্কার হলো স্বাধীনতা পদক। এক্ষেত্রে পুরস্কারপ্রাপ্ত ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে আগে স্বর্ণের পদকের সঙ্গে ৩ লাখ টাকা দেয়া হতো। আগামী বছর থেকে দেয়া হবে ৫ লাখ টাকা। এছাড়া আগের মতোই থাকছে ১৮ ক্যারেট মানের পঞ্চাশ গ্রাম স্বর্ণের পদক, পদকের একটি রেপ্লিকা ও একটি সম্মাননাপত্র।

দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় পুরস্কার হলো একুশে পদক। এক্ষেত্রে ১৮ ক্যারেট মানের পঞ্চাশ গ্রাম স্বর্ণের পদক, পদকের একটি রেপ্লিকা ও একটি সম্মাননাপত্রের সঙ্গে ২ লাখ টাকা দেয়া হতো। অর্থের পরিমাণ আরও ২ লাখ বাড়িয়ে ৪ লাখ টাকা করা হয়েছে। অার পদকে স্বর্ণের পরিমাণ কমিয়ে ৩৫ গ্রাম করা হয়েছে। সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় এ পদক দিয়ে থাকে।

কৃষি মন্ত্রণালয় প্রদত্ত পুরস্কার হলো বঙ্গবন্ধু জাতীয় কৃষি পুরস্কার। ‘বঙ্গবন্ধু কৃষি পুরস্কার ট্রাস্ট আইন’ অনুযায়ী নির্ধারিত হবে বলে নির্দেশনায় বলা হয়েছে।

বেগম রোকেয়া পদকের ক্ষেত্রে অর্থ ছিল ২ লাখ টাকা। এখন তা বেড়ে হয়েছে ৪ লাখ টাকা। এছাড়া রয়েছে আগের মতোই ১৮ ক্যারেট মানের ২৫ গ্রাম স্বর্ণের পদক, পদকের রেপ্লিকা ও একটি সম্মাননাপত্র। এ পুরস্কার দিয়ে থাকে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

তথ্য মন্ত্রণালয় জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার দিয়ে থাকে। তবে ১৮ ক্যারেট মানের ১৫ গ্রাম স্বর্ণের একটি পদক, পদকের একটি রেপ্লিকা, একটি সম্মাননাপত্র দেয়া হয়। অর্থের পরিমাণ নির্ধারণ করা ছল ভিন্ন।

তবে এখন থেকে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের ক্ষেত্রে আজীবন সম্মাননাপ্রাপ্তক ৩ লাখ টাকা। শ্রেষ্ঠ পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রযোজক, শ্রেষ্ঠ স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রযোজক, শ্রেষ্ঠ প্রামাণ্য চলচ্চিত্র প্রযোজক, শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র পরিচালককে ২ লাখ টাকা করে দেয়া হবে। অন্যান্য ক্ষেত্রে ১ লাখ টাকা করে দেয়া হবে।

আগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের ক্ষেত্রে আজীবন সম্মাননাপ্রাপ্তকে দেড় লাখ টাকা। শ্রেষ্ঠ পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রযোজক ও শ্রেষ্ঠ স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রযোজক, শ্রেষ্ঠ প্রামাণ্য চলচ্চিত্র প্রযোজক, শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র পরিচালককে ১ লাখ টাকা করে দেয়া হতো। অন্যান্য ক্ষেত্রে দেয়া হত ৫০ হাজার টাকা।

যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় প্রদত্ত জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কারের ক্ষেত্রে আগে ৫০ হাজার টাকা দেয়া হতো। এখন ১ লাখ টাকা করে দেয়া হবে। এছাড়াও আগের মত ১৮ ক্যারেট মানের ২৫ গ্রাম স্বর্ণের পদক, একটি সম্মাননাপত্র পাবেন।

বাংলাদেশ সময়: ১১২৮ ঘণ্টা, নভেম্বর ২১, ২০১৯
এমআইএইচ/এমএমএস

Nagad
ইউরোপের উচিত পরমাণু সমঝোতা মেনে চলা: ইরান
সিলেটে ৫ চিকিৎসকসহ আরও ৮০ জন করোনায় আক্রান্ত
বিচ্ছেদের পর আবার বিয়ে, অতঃপর খুন
জামালপুর-শেরপুর উন্নয়ন প্রকল্পে আরও ১৩৩ কোটি টাকা বরাদ্দ
মনগড়া করোনার রিপোর্টেই কোটি টাকা আদায় রিজেন্টের


ফেসবুকে মাদকসহ নিষিদ্ধ পণ্য বিক্রির অভিযোগে আটক ৩ 
‘মোদীকে ক্ষমা চাইতে হবে’ দাবিতে সরব কংগ্রেস
বিচার করে দুর্নীতিবাজদের মেরে ফেলতে বললেন ড. সৈয়দ আনোয়ার
বুধবার ফুলকোর্ট সভা ডেকেছেন প্রধান বিচারপতি
কণ্ঠশৈলীর জন্য অমর হয়ে থাকবেন এন্ড্রু কিশোর: রুনা লায়লা