থানায় ডেকে ধর্ষকের সঙ্গে বিয়ে: সত্যতা মিলেছে তদন্তে

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

পাবনা সদর থানা

walton

পাবনা: পাবনায় গণধর্ষণের পর থানায় ডেকে বিয়ের ঘটনার প্রাথমিক সত্যতা পেয়েছে মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের নির্দেশে গঠিত তদন্ত কমিটি।
 

রোববার (১৫ সেপ্টেম্বর) রাত ৮টার দিকে সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ে পাবনা জেলা প্রশাসক কবির মাহমুদ একথা জানান।

এর আগে, পাবনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওবায়দুল হককে প্রত্যাহার ও উপ-পরিদর্শক (এসআই) একরামুল হককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

গণধর্ষণের ঘটনায় মামলায় নথিভুক্ত পাঁচ আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। প্রধান আসামি রাসেল আহম্মেদ ১৬৪ ধারায় আদালতের কাছে স্বীকারক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। আদালতের মাধ্যমে আসামিদের জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

নির্যাতিতাকে ডাক্তারি পরীক্ষা শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। 

প্রথম পর্যায়ে পুলিশ তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে। সেখানেও ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে বলে স্বীকার করেছেন পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলাম। 

এর আগে, পাবনা শহরে গণধর্ষণের শিকার ওই নারী সদর থানায় অভিযোগ করেন। গত ৬ সেপ্টেম্বর রাতে তাকে সদর থানায় ডেকে নিয়ে আগের স্বামীকে তালাক দিতে বাধ্য করা হয় ও ধর্ষণের ঘটনায় মূল অভিযুক্তকে বিয়ে করতে বাধ্য করা হয়। থানা প্রাঙ্গণেই তাদের বিয়ে দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ সময়: ০৫৫৫ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৯
এমইউএম/একে

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: ধর্ষণ পাবনা
ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন কৃষক কন্যা মরিয়মের
বেনাপোলে সর্দারকে বেঁধে রাখলেন সাধারণ শ্রমিকরা
করোনা সন্দেহে মরদেহ রেখে উধাও স্বজনরা
বরিশালে আরও ৪০ জনের করোনা শনাক্ত
বাস ভাড়া হয়ে গেল প্রায় প্লেনের সমান!


জিপিএ ৫- এ মধুপুর শহীদ স্মৃতি উচ্চ মাধ্যমিক সেরা 
মৌলভীবাজারে আরও ৩০ জনের করোনা শনাক্ত 
অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চললেও প্লেনের ভাড়া বাড়েনি
নাগরপুরের এসিল্যান্ড করোনায় আক্রান্ত
করোনা: চট্টগ্রামে নতুন আক্রান্ত ১১৮ জন