php glass

টিকিটের আশায় ঘুমিয়েই রাত পার তাদের 

তামিম মজিদ, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

কমলাপুর রেলস্টেশনে অগ্রিম টিকিট প্রত্যাশীরা। ছবি: ডিএইচ বাদল

walton

ঢাকা: মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল ফিতর। সেই উৎসবে আপনজনের সঙ্গে আনন্দ ভাগাভাগি করতে রাজধানী ছাড়েন কোটি মানুষ। স্বাচ্ছন্দ্যে ও নিরাপদে বাড়ি ফিরতে রেলপথকে বরাবরই বেছে নেন যাত্রীরা। এবারও তার ব্যতিক্রম নয়। তবে অন্য বছরের মতো কমলাপুরজুড়ে লাখো মানুষের অপেক্ষা না থাকলেও টিকিটের আশায় জেগে-ঘুমিয়ে পার করেছেন অনেক টিকিট প্রত্যাশী। 

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) সকাল ৯টায় দ্বিতীয় দিনের মতো রাজধানীর কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে টিকিট বিক্রি কার্যক্রম শুরু হবে। আজ দেওয়া হবে ১ জুনের টিকিট। 

কিন্তু বুধবার (২২ মে) মধ্য রাত থেকেই বিছানা-বালিশ নিয়ে কমলাপুর এসেছেন অনেক টিকিট প্রত্যাশী। উদ্দেশ্য একটাই, বাড়ি ফেরার টিকিট নিশ্চিত করা। তারা বলছেন, টিকিট পেলেই কষ্ট করা স্বার্থক হবে। মুখে স্বপ্নজয়ের হাসি ফুটবে। 

রাজধানীর একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা তাহারিমা সুলতানা হাসি বুধবার মধ্য রাত থেকেই কমলাপুরে অবস্থান নিয়েছেন। তিনি বলেন, টিকিট পেলেই রাত জেগে কষ্ট করা সফল হবে। 

নিয়াজুল হক নামে আরেক টিকিট প্রত্যাশী বলেন, আমি বিছানা নিয়ে এসেছি। রাত এখানেই কাটিয়েছি। এখন লাইনে আছি। দিনাজপুরের টিকিট কিনতে এসেছি। টিকিট পেলেই কষ্ট করা লাঘব হবে। 

বৃহস্পতিবার সকাল ৮টার পর থেকে কমলাপুর রেলস্টেশনে ভিড় বাড়ছে। টিকিট প্রত্যাশীরা অবস্থান নিয়েছেন স্টেশনের প্লাটফর্মে। 

বাংলাদেশ সময়: ০৯২২ ঘণ্টা, মে ২৩, ২০১৯
টিএম/আরবি/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: ঈদে বাড়ি ফেরা
নলডাঙ্গায় কলেজছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার
সময় পেলেই ঘুরে আসুন নারায়ণগঞ্জের কিছু দর্শনীয় স্থান
নলডাঙ্গায় কলেজছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার
ফোনের চার্জ কখন দেবেন!
‘ভারপ্রাপ্ত’ দিয়েই চলছে আদিতমারী উপজেলার কার্যক্রম


খালিহাতে ৯ ফুট আকারের কুমির ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড়!
শীতের সবজি বাজারে, লাভে কৃষকের মুখে চওড়া হাসি
‘মোগো মাছ দাদারা নিয়া যায়’
হার্ট ভালো রাখতে প্রথমেই গুরুত্ব দিন মানসিক সুস্থতায়
১৬ শিক্ষার্থীর জন্য ৪ শিক্ষক, ‍সিঁড়ি নেই রয়েছে দ্বিতল ভবন!