লক্ষ্মীপুরে সাত দিনে সড়কে ঝরলো ১১ প্রাণ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

সড়ক দুর্ঘটনা

লক্ষ্মীপুর: লক্ষ্মীপুরে গত সাত দিনে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় নারী ও শিশুসহ ১১ জন প্রাণ হারিয়েছে। এ মৃত্যুর মিছিলে একই পরিবারের ৬ জন রয়েছে। আহত হয়েছে অন্তত ৩০ ব্যক্তি।

বৃহস্পতিবার (১৭ জানুয়ারি) দুপুর থেকে বুধবার (২৩ জানুয়ারি) ভোর পর্যন্ত গত সাত দিনে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার বিভিন্নস্থানে এসব দুর্ঘটনা ঘটে। বুধবার ভোর ৫টায় বেগমগঞ্জ-লক্ষ্মীপুর সড়কের রতনপুর এলাকায় এক মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ৬ জনসহ ৭ জন নিহত হন।

নিহতরা হলেন- অটোরিকশার যাত্রী একই পরিবারের শাহ আলম, নাছিমা আক্তার, রোকেয়া বেগম, শামছুন নাহার, রুবেল, অমিত ও অটোরিকশাচালক নুরু। এরা সবাই লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়নের বসুদহিতা এলাকার বাসিন্দা।

নিহতের স্বজনরা জানান, নিহত শাহ আলমের ছেলে ছাত্রলীগ কর্মী নাদিম মাহমুদ অন্তরকে মঙ্গলবার (২২ জানুয়ারি) রাতে লক্ষ্মীপুরের সাদারঘর এলাকায় দুর্বৃত্তরা কুপিয়ে আহত করে। আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহত নাদিমকে দেখতে তার পারিবারের লোকজন হাসপাতালে যাচ্ছিলেন। পথে বেগমগঞ্জ-লক্ষ্মীপুর সড়কের রতনপুর এলাকায় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাক অটোরিকশাটিকে চাপা দিলে তা রাস্তার পাশে উল্টে যায়। এ সময় একই পরিবারের ৬ জনসহ ৭ জন নিহত হন।

সোমবার (২১ জানুয়ারি) সকালে লক্ষ্মীপুরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় একজন নিহত ও অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। সদর উপজেলার টুকামিয়া সড়ক ও যাদৈয়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, সদর উপজেলার মজুপুর এলাকার টুকা মিয়া সড়কে একটি ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা লাগে। এতে অটোরিকশা যাত্রী কাজী সিরাজুল ইসলাম ঘটনাস্থলেই মারা যান। তিনি কমলনগর উপজেলার চর জাঙ্গালিয়া গ্রামের আব্দুল মতিনের ছেলে।

একই দিন, নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা আনন্দ পরিবহনের একটি বাস উপজেলার যাদৈয়া এলাকায় পৌঁছালে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে যায়। এতে বাসের ২০ যাত্রী আহত হন।

শনিবার (১৯ জানুয়ারি) সকালে রামগতি-লক্ষ্মীপুর সড়কের নুড়ি গাছতলা এলাকায়  লেগুনা ও পিকআপ ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে মো. আলাউদ্দিন স্বপন (৫০) নামে এক পথচারী নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় মো. সৌরভ নামে এক লেগুনা যাত্রী আহত হন। নিহত আলাউদ্দিন স্বপন সদর উপজেলার দক্ষিণ মজুপুর গ্রামের বাসিন্দা।

শুক্রবার (১৮ জানুয়ারির) সকালে লক্ষ্মীপুর মজুচৌধুরীরহাট সড়কে ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী গৃহবধূ সুমি নিহত হয়েছেন। নিহত সুমি লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চর রমনী মোহনএলাকার জয়দলের স্ত্রী। এ দুর্ঘটনায় স্বামী জয়দল আহত হন। তারা স্বামী-স্ত্রী মোটরসাইকেলে করে মজুচৌধুরীরহাট যাচ্ছিলেন। পথে একটি ট্রাক মোটরসাইকেলটিকে চাপা দিলে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

বৃহস্পতিবার (১৭ জানুয়ারি) দুপুরে লক্ষ্মীপুর-মজুচৌধুরীর হাট সড়কে পিকআপ ভ্যানচাপায় মো. ইদ্রিস মিয়া (৩৫) নামে এক বালু শ্রমিক নিহত হয়েছেন। নিহত ইদ্রিস সদর উপজেলার শাকচরগ্রামের আবদুল মতিনের ছেলে। দুর্ঘটনার আগে  পিকআপ ভ্যানে বালু তুলছিলেন ইদ্রিস। এ সময় পেছন থেকে অপর একটি মালবাহী পিকআপ ভ্যান তাকে চাপা দেয়। এতে গুরুতর আহত হন তিনি। তাৎক্ষণিকভাবে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৪২৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৩, ২০১৯
এসআর/এমজেএফ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: সড়ক দুর্ঘটনা নিরাপদ সড়ক চাই
কালো ভুনা
বাল্যবিয়ে আয়োজনে কাজী ও কনের বাবার জরিমানা
চকবাজার ট্র্যাজেডির দায় সরকার এড়াতে পারে না: কাদের
তিতাসে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ডাকাত নিহত
চকবাজারের ঘটনার পুনরাবৃত্তি হবে না


চকবাজার ট্র্যাজেডি: সব ধর্মাবলম্বীদের প্রার্থনার আহ্বান
কালিয়াকৈরে যুবককে কুপিয়ে হত্যা
ডিএনএ'র নমুনা সংগ্রহে ঢামেকে সিআইডির টিম
তদন্ত অবশ্যই আলোর মুখ দেখবে
ভোলার তজুমদ্দিনে তিরোধান উৎসবে পুণ্যার্থীদের ঢল