php glass

‘বেলাশেষে’র হিন্দি রিমেকে ঋষি-নীতু

বিনোদন ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ঋষি কাপুর ও নীতু সিং

walton

২০১৫ সালের পশ্চিমবঙ্গের বাংলা সিনেমা ‘বেলাশেষে’ হিন্দি ভাষায় রিমেক হতে যাচ্ছে। এতে জুটি বেঁধে হাজির হবেন বলিউডের তারকা দম্পতি ঋষি কাপুর ও নীতু সিং।

১৯৭৪ সালে ‘জ্যাহরিলা ইনসান’ সিনেমার প্রথমবার একসঙ্গে অভিনয় করেন ঋষি-নীতু। তবে সর্বশেষ ২০১৩ ছেলে রণবীর কাপুরের ‘বেশরম’ সিনেমায় তাদের হাজির হতে দেখা যায়। প্রায় ছয় বছর পর তারা আবার একসঙ্গে অভিনয় করতে যাচ্ছেন।

সিনেমাটি সংশ্লিষ্ট সূত্র ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘এরই মধ্যে ঋষি কাপুর ও নীতু সিং কাজ করার ব্যাপারে মত দিয়েছেন। দীর্ঘদিন পর তারা কেন্দ্রীয় চরিত্রে একসঙ্গে হাজির হতে যাচ্ছে।’

‘বেলাশেষে’র রিমেকে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের চরিত্রে ঋষি কাপুরকে এবং স্বাতীলেখা সেনগুপ্তের চরিত্রে নীতু সিংকে দেখা যাবে।

‘বেলাশেষে’ নির্মাণ করেছেন যুগল পরিচালক শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় ও নন্দিতা রায়। এক দম্পতির ৪৯ বছরের দাম্পত্যজীবনের ইতি টানা নিয়ে এগিয়েছে এর গল্প। হঠাৎ একদিন বিশ্বনাথ মজুমদার (সৌমিত্র) ঘোষণা করেন তিনি স্ত্রী আরতির (স্বাতীলেখা) সঙ্গে বিয়ের সম্পর্কের ইতি টানতে আইনি প্রক্রিয়া চূড়ান্ত করেছেন। এতে ঝড় ওঠে সংসারে, তাদের নিয়ে পারিবারিক বৈঠকে বসেন সন্তানেরা। এরপর আদালত নির্দেশ দেন ১৫ দিন একসঙ্গে থাকতে হবে বিশ্বনাথ ও আরতিকে। এই সময়কালকে ব্যবচ্ছেদ করে ‘বেলাশেষে’ সিনেমাটি।

সৌমিত্র জানিয়েছেন, হিন্দি রিমেকে শুরুতে অমিতাভ বচ্চনকে নেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সে জায়গায় নানা পাটেকর চুক্তিবদ্ধ হন। তবে ‘#মিটু’ ক্যাম্পেইনের পর সিনেমাটি থেকে তিনি সরে দাঁড়ান। এর পরই ঋষি কাপুর যুক্ত হন। পরবর্তীতে নীতুকে নেওয়া হয়।

ঋষি কাপুরের প্রতীক্ষিত সিনেমা ‘দ্য বডি’ মুক্তি পেতে যাচ্ছে আগামী ১৩ ডিসেম্বর। 

বাংলাদেশ সময়: ১৩৩৬ ঘণ্টা, নভেম্বর ২১, ২০১৯
জেআইএম

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: বলিউড সিনেমা
ডিসি হিল সংস্কৃতিচর্চার জন্য উন্মুক্ত করার দাবি
বিশ্বকাপ নয়, আপাতত বিপিএল নিয়েই ভাবছেন সানি
ধরে নিয়ে যাওয়া ২ জেলেকে ফেরত দিলো বিএসএফ
মৌসুমের শুরুতেই ভোলায় জেঁকে বসেছে শীত
মঞ্চ প্রস্তুত, উদ্বোধনের অপেক্ষা


চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন মাহফুজুর রহমান খান
ঢাকায় তেল-গ্যাস রক্ষা কমিটির মহাসমাবেশ ৩ এপ্রিল
সন্তানকে বাঁচাতে পারলেও মারা গেলেন বাবা
বরিশালে ই-নামজারি বিষয়ক কর্মশালা
বান্দরবান পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের বেহাল দশা