php glass

ফোকফেস্টে দেখা মিললো শাবনাজ-বিন্দুর

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

শাবনাজ ও আফসানা আরা বিন্দু, ছবি: বাংলানিউজ

walton

ঢাকা (আর্মি স্টেডিয়াম থেকে):  হাজার হাজার দর্শক-শ্রোতা যখন গানের সাগরে ডুবে আছেন ঠিক তখন ফোকফেস্টের মঞ্চে সামনে দর্শক সাড়িতে দেখা মিললো নব্বই দশকের বড় পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী শাবনাজের। তার পাশেই দাঁড়িয়ে মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে মাটির গানের স্বাদ নিচ্ছিলেন এক সময়ের বড় ও ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী আফসানা আরা বিন্দু। তাদের দেখে ভক্তরা ঘিরে ধরেন। হাসিমুখেই সবার সঙ্গে ছবি তুলে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন এ তারকাদ্বয়।

শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) রাতে শাবনাজ বাংলানিউজকে বলেন, ‘লোকসংগীত আমার অনেক পছন্দের। ফোকফেস্টে এলে ভিন্নরকম এক তৃপ্তি পাই।’ তবে বিন্দু কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। তবে জানান তিনি এখন বাংলাদেশেই আছেন।

২০০৬ সালের লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার প্রতিযোগিতার প্রথম রানার আপ হয়ে অভিনয়ে ক্যারিয়ার গড়েন আফসান আরা বিন্দু। ২০১৪ সালে আসিফ সালাহউদ্দিন মালিকের সঙ্গে ঘর বাঁধেন বিন্দু। সে থেকেই তিনি অভিনয় থেকে দূরে রয়েছেন। ‘দারুচিনি দ্বীপ’, ‘জাগো’, ‘পিরিতের আগুন জ্বলে দ্বিগুণ’ ও সর্বশেষ ‘এই তো প্রেম’ সিনেমা তাকে অভিনয় করতে দেখা যায়।

নব্বই দশকে ‘চাঁদনী’ সিনেমার মধ্য দিয়ে সিনেমায় অভিষিক্ত হন শাবনাজ। এরপর ‘জিদ’, ‘চোখে চোখে’, ‘অনুতপ্ত’, ‘সোনিয়া’, ‘আমি তোমার প্রেমে পাগল’, ‘আগুন জ্বলে’, ‘জনম’, ‘প্রেমের সমাধি’সহ অনেক ব্যবসাসফল সিনেমা উপর দেন তিনি। ১৯৯৪ সালে নাঈমের সঙ্গে ঘর বেঁধে অভিনয় থেকে বিদায় নেন তিনি। তবে প্রায়ই সিনেমা সংশ্লিষ্ট নানা অনুষ্ঠানে তাকে দেখা যায়।

বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) সন্ধ্যায় ‘ঢাকা আন্তর্জাতিক লোকসংগীত উৎসব ২০১৯’ এর পর্দা উঠে। শনিবার (১৬ নভেম্বর) এই উৎসবের পঞ্চম আসরের পর্দা নামবে।

বাংলাদেশ সময়: ১১১২ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৫, ২০১৯
জেআইএম/ওএইচ/

হবিগঞ্জ আ’লীগের সম্মেলনে ৭০০০ কর্মীর জন্য বিরিয়ানি
ক্রেতাদের বাজেট অনুযায়ী পোশাক তৈরি করছে ‘সারা’
মায়ের ওপর অভিমান, রাজধানীতে স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা
নোয়াখালীতে ট্রাক-অটোরিকশা সংঘর্ষে প্রাণ গেলো দু’জনের
প্রণব মুখার্জি-খান আতার জন্ম


খালেদার মুক্তির জন্য স্বেচ্ছায় কারাভোগে রাজি ফেনী বিএনপি
‘মাথাপিছু আয় ৬০০০ ডলারের আগেই সবার কাছে গাড়ি থাকবে’
দলের জন্য সবটুকু অভিজ্ঞতা ঢেলে দেবেন গিবস
কর দিতে হয়রানি হলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা: অর্থমন্ত্রী
মিয়ানমারে গণহত্যার বিচার শুরু, সন্তুষ্ট রোহিঙ্গারা