ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৩ আগস্ট ২০২০, ২২ জিলহজ ১৪৪১

অর্থনীতি-ব্যবসা

ক্রেতাদের বাজেট অনুযায়ী পোশাক তৈরি করছে ‘সারা’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৬০৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১১, ২০১৯
ক্রেতাদের বাজেট অনুযায়ী পোশাক তৈরি করছে ‘সারা’ ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা: সব বয়স ও শ্রেণীর মানুষের জন্য পোশাক তৈরি করছে সারা। স্বল্পমূল্য, টেকসই ও মানসম্মত পণ্য বাজারে আনার পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করছে প্রতিষ্ঠানটি।

মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) মিরপুর ডিওএইচএসে লাইফস্টাইল ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান সারা লাইফস্টাইল লিমিটেডের কর্মকর্তারা জানালেন এমনটাই।  

সারা লাইফস্টাইল লিমিটেডের এজিএম (অপারেশন) প্রিয়ম ইবনে আমিন বাংলানিউজকে বলেন, আমি বিশ্বাস করি, আমাদের যে অভিজ্ঞতা আছে সে অনুযায়ী টিম মেম্বারদের নিয়ে আমরা সারা ফ্যাশনকে এগিয়ে নিতে পারবো।

এখন বাজারে সবকিছু উন্মুক্ত। কোনো কিছুই লুকিয়ে রাখা যায় না। আমরা কোথা থেকে ফেব্রিক্স কিনছি, কোন দেশ থেকে আনছি, সবাই জানে। শুধুমাত্র তফাৎ থাকে প্রোডাক্টের মূল্যে। আমরা সবসময় চাই বাজেটের মধ্যে ক্রেতারা যেন আমাদের পণ্য কিনতে পারেন।  ‘সারা’ ক্রেতাদের কাছ থেকে স্বল্প লাভ করতে চায়। অন্য প্রতিষ্ঠানের তুলনায় আমরা কম লাভে আমাদের প্রোডাক্ট বিক্রি করছি।  

কর্মীদের কাজে সন্তুষ্ট সারা’র কর্মকর্তারা।  ছবি: বাংলানিউজ

প্রতিষ্ঠানটির প্রধান ফ্যাশন ডিজাইনার ও অ্যাসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার সিলভিয়া স্বর্ণা বলেন, আমরা মূলত তরুণ ক্রেতা ও বয়স্কদের কথা মাথায় রেখে কাজ করি। বিশ্বমানের ও দক্ষিণ এশিয়ার পোশাকের ডিজাইন অনুযায়ী আমাদের পোশাক তৈরি করা হয়। ক্রেতারা যেন ইউরোপীয় ও দেশীয় ফ্যাশন অনুযায়ী পোশাক পান এমন ডিজাইনেই তৈরি করছি। ক্রেতারা কোন ট্রেন্ডের পোশাক চাইছেন এগুলো মাথায় রেখে বিভিন্ন ডিজাইন অ্যানালাইজ করে কাজ করছি। কোন ধরনের রং, কোন ধরনের পেইন্ট চাচ্ছেন ক্রেতারা এসব বিষয় অ্যানালাইজ করে কাজ করছি আমরা।

তিনি আরও বলেন, আসলে সিজনের মধ্যে সামার, স্প্রিং, উইন্টারের মধ্যে যে জিনিসগুলো পড়ে সে অনুযায়ী আমরা পোশাক তৈরি করছি। সিজনের পাশাপাশি অকেশন নিয়েও কাজ করছি। অকেশন অনুযায়ী ক্রেতাদের পোশাক দেওয়ার চেষ্টা করি। আমাদের শোরুমগুলোতে ভিন্ন ধরনের পোশাক রাখার চেষ্টা করে থাকি। সব বয়সী ক্রেতাদের জন্যই পোশাক তৈরি করছি আমরা।

তরুণ ও উদ্যমী ক্রিয়েটিভ টিম রয়েছে সারার।  ছবি: বাংলানিউজ

প্রতিষ্ঠানটির অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর (অপারেশন) মো. মতিউর রহমান বাংলানিউজকে বলেন, সারা’র দলটি তরুণ ও উদ্যমীদের নিয়ে কাজ করছে। আমরা ভালো করছি, ভবিষ্যতে আরও ভাল করবো। দুই বছরে যতদূর এসেছি, এতে আমরা সন্তুষ্ট। মার্কেটে ক্রেতাদের পজেটিভ ফিডব্যাক পাচ্ছি। আমরা সবাই বন্ধুত্বপূর্ণভাবে কাজ করছি। মার্চেন্ডাইজার ও ডিজাইনার টিম মিলে কাজ করছি। নতুন কোম্পানির অনেক চ্যালেঞ্জ, তবে সেগুলো বড় কোনো বাধা নয়। সবাই মিলেই আমরা বাধাগুলো ওভারকাম করছি।

বাংলাদেশ সময়: ০১০২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১১, ২০১৯
এমএমআই/একে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

অর্থনীতি-ব্যবসা এর সর্বশেষ

Alexa