ঢাকা, শুক্রবার, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৪ আগস্ট ২০২০, ২৩ জিলহজ ১৪৪১

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

নগরের দৃষ্টিনন্দন স্থাপনায় পরিণত হবে সনদ দত্ত মহাশশ্মান

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১১০ ঘণ্টা, জুলাই ১৩, ২০২০
নগরের দৃষ্টিনন্দন স্থাপনায় পরিণত হবে সনদ দত্ত মহাশশ্মান বক্তব্য দেন এম মনজুর আলম

চট্টগ্রাম: মোস্তফা-হাকিম ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনায় ও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র এম মনজুর আলমের উদ্যোগে ১৯৯৬ সালে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মৃতদেহ ধর্মীয় বিধি-বিধান অনুযায়ী সৎকার করার জন্য পাঁচ লাখ টাকা ব্যয়ে প্রতিষ্ঠা করা হয় উত্তর কাট্টলী সনদ দত্ত সার্বজনীন মহাশশ্মান।

পরে চট্টগ্রাম-৪, সীতাকুণ্ড আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ দিদারুল আলম এমপির উদ্যোগে প্রায় ১৫ লাখ টাকা ব্যয়ে শশ্মানকে দ্বিতীয়বার সংস্কার করা হয়।

বর্তমানে করোনাকালীন নগরের সনাতন ধর্মের মৃত্যুবরণকারীদের মৃতদেহ দাহ করার জন্য শশ্মানটি নির্ধারণ করা হলে শশ্মানটির সড়কসহ অবকাঠামোগত সমস্যার কারণে দাহ কার্যক্রমে কিছুটা সমস্যা দেখা দেয়।

তৃতীয়বারের মত আবারো সনাতনধর্মাবলম্বীদের পাশে এগিয়ে এলেন এম মনজুর আলম।

১৫ টাকা ব্যয়ে প্রায় এক কিলোমিটার সড়কটি পুনঃসংস্কারসহ শশ্মানের অবকাঠামোগত উন্নয়ন করা হয়। বার বার শশ্মানটির উন্নয়নে এগিয়ে আসা সাবেক মেয়র মনজুর আলমকে শুভেচ্ছা জানাতে ও শশ্মানের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করতে উত্তর কাট্টলী সনদ দত্ত সার্বজনীন মহাশশ্মান কমিটির উদ্যোগে সোমবার সকাল ১০টায় উত্তর কাট্টলী আলহাজ্ব মোস্তফা-হাকিম কলেজ চত্বরে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

শশ্মান কমিটির সভাপতি বিরেন্দ্র লাল দে’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এম মনজুর আলম।  

মনজুর আলম বলেন, ‘২৪ বছর আগে শশ্মানটি প্রতিষ্ঠায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছিলাম। আর যখনি এতে কোন সমস্যা দেখা দিয়েছে তখনি তা সমাধানে সচেষ্ট ছিলাম। এতদিন এখানে সময়ে সময়ে দাহ কার্যক্রম চললেও এখন বৈশ্বিক মহামারী করোনার কারণে প্রায় প্রতিদিনই মৃতদেহ দাহ করা হচ্ছে। শশ্মানটির সড়কসহ অবকাঠামোগত উন্নয়নও করা হয়েছে সম্প্রতি। প্রয়োজন অনুযায়ী আরো উন্নয়নের বিষয়েও সহযোগিতা করা হবে। ’
    
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন মোস্তফা-হাকিম কলেজের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলমগীর। সংগঠক টুনটু দাশ বিজয়ের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কৈবল্যধামের ট্রাস্টি অজয় মিত্র শংকু।

উপস্থিত ছিলেন, শশ্মান কমিটির সাধারণ সম্পাদক কনকন দাশ শর্মা, শশ্মান কমিটির সহ সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার তরুণ তপন দত্ত, জুয়েল শীল, দিলীপ দাশ বাবুল, ইঞ্জিনিযার কৃষ্ণ ভজন আচার্য্য, যামিনী দে, সুভাষ চন্দ্র দে, জোতিম্ময় দাশ, সবিতা বিশ^াস, ডা. মুকেশ দত্ত, মিথুন সরকার, অলক সেন প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ২১০৭ ঘণ্টা, জুলাই ১৩, ২০২০
টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

চট্টগ্রাম প্রতিদিন এর সর্বশেষ

Alexa